Inqilab Logo

রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২২ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

আঘাতে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণেই মাসুমের মৃত্যু ঘটেছে!

আনোয়ারায় মাসুম হত্যার ময়না তদন্তের রিপোর্ট

আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ৬:৫২ পিএম

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় কলেজ ছাত্র আবদুল্লাহ্ আল মাসুমের (১৮) হত্যার ঘটনায় পুলিশ আদালতে ময়না তদন্তের রিপোর্ট দাখিল করেছেন। রিপোর্টে উল্লেখ করা হয় মাসুমের মাথায় আঘাত করার কারণে মস্তিষ্কে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মৃত্যু হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিকালে আদালতে ময়না তদন্তের এ রিপোর্ট প্রদান করা হয়েছে নিহত মাসুমের পিতা মো. ইউসুফ জানান। এছাড়া মাসুমের ঘাড়ে এবং পায়ের হাঁটুর উপরেও আঘাতের কথা বলা হয়েছে। সেই সাথে বিদ্যুৎস্পৃষ্টের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার কথা আনোয়ারা থানার পুলিশ স্বীকার করলেও এ বিষয়ে বক্তব্য দিতে রাজি হয়নি।
ময়না তদন্তের রিপোর্টে জানাযায়, মাসুমের মৃত্যুর একাদিক কারণ রয়েছে। এর মধ্যে মাথায় আঘাত করার ফলে তার রক্তক্ষরণ হয়েছে। এছাড়া মাসুমের ঘাঁড়ের বাম পাশে, হাটুর উপরেও আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ময়না তদন্তে মাসুমের বিদ্যুৎস্পৃষ্টের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে।
এদিকে মাসুম নিহতের পর থেকেই মাসুমের পরিবার তাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবী করেন। এ হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে স্থানীয় লোকজন মিছিল সমাবেশ ও থানা অবরোধের ঘটনাও ঘটেছে। তবে ঘটনার পর আনোয়ারা থানা পুলিশ বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মাসুমের মৃত্যু ঘটেছে বলে জানায়।
আনোয়ারা থানার সহকারী পুলিশ পরিদর্শক নওফেল আলম বলেন, ময়না তদন্তের রিপোর্ট থানায় এসছে তবে এখনো আমার হাতে পৌঁছায়নি। রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানাযাবে।
উল্লেখ্য গত ২ অক্টোবর শনিবার রাতে আনোয়ারা পরৈকোড়া কৈইখাইন গ্রামের মো. ইউসুফের ছেলে আবদুল্লাহ আল মাসুম (১৮) কে পূর্ব সিংহরা গ্রামের সনজিত দত্ত প্রকাশ সাগর দত্তের ছেলে দীপ্ত দত্ত রাতে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে যাওয়ার ২ ঘন্টা পর তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কিন্তু পুলিশ মাসুম বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছে বলে দাবী করে একটি অপমৃত্যু মামলা নিলেও মাসুমের পরিবার ৯ জনকে আসামী করে আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করে। আদালত শুনানি শেষে সংশ্লিষ্ট থানায় কোন ইউডি, মামলা কিংবা নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে কিনা, ময়নাতদন্ত ও সুরতহাল রিপোর্টের কপি ২ কার্যদিবসের মধ্যে আদালতে দাখিল করতে আনোয়ারা থানা পুলিশকে নির্দেশ দিলে পুলিশ গত বৃহস্পতিবার বিকালে ময়না তদন্তের রিপোর্ট আদালতে দাখিল করে বলে জানাযায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ