Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর তার সীমা জানা উচিত : এরদোগান

প্রকাশের সময় : ১৪ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ইরাকের প্রধানমন্ত্রীকে হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন যে তার সীমা জানা উচিত। তিনি বলেন, তুর্কি সেনাবাহিনী এমন অবস্থানে পৌঁছেনি যে তার কাছ থেকে নির্দেশ নিতে হবে। ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল এবাদি ইরাকে তুর্কি সেনাবাহিনীর উপস্থিতির সমালোচনা করার পর এরদোগান এ হুঁশিয়ারি দেন। খবর রয়টারস
সিরিয়া ও ইরাকের সাথে ন্যাটো সদস্য তুরস্কের সাড়ে ৭শ’ মাইল সীমান্ত রয়েছে। উভয় দেশ থেকেই দেশটি ইসলামিক স্টেটের (আইএস) হুমকির সম্মুখীন। তারা উদ্বিগ্ন যে আইএসকে ধ্বংসের আন্তর্জাতিক চেষ্টা তাদের জন্য নতুন বিপদ সৃষ্টি করতে পারে।
তুর্কি সেনাবাহিনী আইএসকে বিতাড়িত করা ও কুর্দি মিলিশিয়া যোদ্ধাদের এলাকা দখলে বাধা দিতে আগস্টে সিরিয়ার মধ্যে অভিযান চালায়। ওয়াশিংটন তুরস্কের শত্রু কুর্দিদের সমর্থন দেয়ায় আংকারা উদ্বিগ্ন। এরদোগান বলেন, তুরস্ক ইরাকের ক্ষেত্রেও অনুরূপ ব্যবস্থা নিতে পারে। সেখানে মসুলে আইএসের উপর হামলার সম্ভাবনা বাড়ছে। তিনি ইস্তাম্বুলে ইসলামী নেতাদের এক বৈঠকে বলেন, আমরা ইরাকে অভিযান চালাব। এ অভিযান শিঘ্রই মসুলে একই উদ্দেশ্যে চালানো হবে। তিনি বলেন, তুরস্ক তার ঠিক পাশেই হুমকির বিরুদ্ধে হস্তক্ষেপ করবে না কেন? আমরা কখনোই এটা মেনে নেব না। এ জন্য আমাদের অনুমতি প্রয়োজন নেই। আর তা পাওয়ার পরিকল্পনাও আমাদের নেই।
এ বক্তব্যের প্রধান কথা হচ্ছে ইরাকের উত্তরে মূলত বাশিকা শিবিরে তুর্কি সৈন্যদের উপস্থিতি যেখানে সুন্নী মুসলিম ও কুর্দি পেশমের্গা ইউনিটগুলোর প্রশিক্ষণ দিয়ে মসুল অভিযানে তুরস্ক তাদের অংশগ্রহণ চায়।
তবে বাগদাদ সরকার মসুল অভিযানে তাদের সৈন্যদের অগ্রণী ভূমিকায় দেখতে আগ্রহী।
দু’সপ্তাহ আগে তুরস্কের পার্লামেন্ট সন্ত্রাসী সংগঠনের মোকাবেলায় উত্তর ইরাকে ২ হাজার সৈন্য মোতায়েনের পক্ষে ভোট দেয়। এ সন্ত্রাসী সংগঠন বলতে কুর্দি জঙ্গি ও ইসলামিক স্টেট দুইই বোঝায়।
ইরাক এ ভোটের নিন্দা করে। প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল এবাদি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন যে তুরস্ক একটি আঞ্চলিক যুদ্ধ শুরুর ঝুঁকি নিচ্ছে। আর সরকার এ বিষয়টি আলোচনার জন্য জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠকের অনুরোধ জানায়। অন্যদিকে কূটনৈতিক বিরোধ জোরদার হওয়ায় দু’দেশ একে অন্যের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে।
এরদোগান বলেন, ইরাকি প্রধানমন্ত্রী আমাকে অপমান করছেন। আপনাকে আপনার সীমা জানতে হবে। বাশিকার ব্যাপারে আমাদের কাছে ইরাকের নির্দিষ্ট অনুরোধ ছিল। কিন্তু এখন তারা আমাদের বাশিকা ত্যাগ করতে বলছে। কিন্তু তুর্কি সেনাবাহিনী এমন অবস্থায় পৌঁছেনি যে তাদের আপনার কাছ থেকে আদেশ নিতে হবে।
তুরস্ক বলেছে, মসুল থেকে আইএসকে বিতাড়িত করতে শিয়া মিলিশিয়াদের অন্তর্ভুক্তি শান্তি আনবে না। তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম পার্লামেন্টে ক্ষমতাসীন একে পার্টির সদস্যদের এক সভায় বলেন, আপনারা যদি মসুলে জনসংখ্যাগত কাঠামো পরিবর্তনের চেষ্টা করেন তাহলে আপনারা বড় রকমের গোষ্ঠিগত যুদ্ধের আগুন জ¦ালাবেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু বলেন, তুরস্ক আগস্ট মাসে সিরিয়া অভিযানের মত মসুল অথবা রাক্কার  ক্ষেত্রেও একই ভূমিকা পালন করতে পারে। সে সময় তুরস্ক আইএসবিরোধী সিরীয় বিদ্রোহীদের সমর্থনে ট্যাংক ও জঙ্গি বিমান পাঠিয়েছিল।
কাভুসোগলু তুরস্কের এ-হাবের টেলিভিশনের সাথে সাক্ষাতকারে বলেন, তুরস্ক জারাব্লুসের ক্ষেত্রে যা করেছে রাক্কা বা মসুলের ক্ষেত্রেও সে সমর্থন দিতে পারে। তিনি বলেন, সিরিয়া ও ইরাককে দায়েশ (আইএস) মুক্ত করতে যে কোনো ধরনের সমর্থন দিতে তুরস্ক প্রস্তুত।



 

Show all comments
  • فلان ১৪ অক্টোবর, ২০১৬, ৩:০১ এএম says : 0
    এরদোগানের-ও তার সীমা জানা উচিত
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ