Inqilab Logo

সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৩ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

তুর্কি ড্রোন কিনতে পারে ব্রিটেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৬:৪৪ পিএম

তুরস্কের কাছ থেকে অত্যাধুনিক সশস্ত্র ড্রোন কেনার বিষয়টি বিবেচনা করছে ব্রিটেন। তুরস্কের শিল্প ও প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা ভারঙ্ক শুক্রবার এই তথ্য জানিয়েছেন।

সিএনএন তুর্ককে দেয়া সাক্ষাতকারে ভারঙ্ক বলেন, ‘যুক্তরাজ্য তুরস্কের সশস্ত্র ড্রোনের ব্যাপারে খুব আগ্রহী। এখন তাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমরা তাদের কাছে বিকল্পগুলো উপস্থাপন করেছি। এখনই, তারা এই বিকল্পগুলো গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করছে।’ চলতি বছরের শুরুতে ইস্তাম্বুলে একটি প্রতিরক্ষা ও মহাকাশ শিল্প অনুষ্ঠানে তিনি একই ধরনের মন্তব্য এবং আশাবাদ ব্যক্ত করেছিলেন। সেখানে তিনি বলেছিলেন যে, ‘আমি বিশ্বাস করি যে খুব নিকট ভবিষ্যতে, আমরা ইউরোপের আকাশে বায়ারক্তার এবং আনকাসকে (তুরস্কের দূরনিয়ন্ত্রিত ড্রোন) উড়ন্ত অবস্থায় দেখতে পাব। যা তুরস্ক থেকে কেনা হবে।’

গত বছর সিরিয়া, লিবিয়া এবং নাগর্নো-কারাবাখের সংঘাতের সময় যুদ্ধে তাদের সাফল্য এবং কার্যকারিতার পর তুরস্কের তৈরি ড্রোন বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তা অর্জন করে। তারপর থেকে, ইউক্রেন, পোল্যান্ড, সউদী আরব, ইরাক, মরক্কো এবং আলবেনিয়া সহ বেশ কয়েকটি দেশ তুরস্কের কাছে বায়রাকতার টিবি ২ এর মতো ড্রোনের বহর কেনার অনুরোধ করেছে। যুক্তরাজ্যও তুর্কি যুদ্ধ ড্রোনের প্রতি বিশেষ আগ্রহ দেখিয়েছে। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেন ওয়ালেস এগুলোকে ‘গেম-চেঞ্জিং’ এবং শত্রুদের কাছে ‘আসল চ্যালেঞ্জ’ হিসেবে প্রশংসা করেছেন।

ইউএভিগুলো (আনম্যানড এরিয়াল ভেহিকল) তুরস্কের অভ্যন্তরীণ অস্ত্র শিল্পকেও উৎসাহিত করেছে এবং সামগ্রিকভাবে এর মূল্য বৃদ্ধি করেছে। তুর্কি এক্সপোর্টার্স অ্যাসেম্বলি (টিআইএম) প্রকাশ করেছে যে, চলতি বছরের প্রথম তিন চতুর্থাংশে প্রতিরক্ষা ও বিমান রফতানির পরিমাণ ২১০ কোটি ডলার, যা গতবছরের তুলনায় ৩৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। সূত্র: মিডল ইস্ট মনিটর।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাজ্য-তুরস্ক
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ