Inqilab Logo

শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৮ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

কসবায় আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. গোলাম হাক্কানী বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত

কসবা (ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৭:০৩ পিএম | আপডেট : ৭:১১ পিএম, ১৮ অক্টোবর, ২০২১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মো. গোলাম হাক্কানীকে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। আজ সোমবার প্রতীক বরাদ্দের দিনে নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান লিখিতভাবে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় মেয়র নির্বাচিত ঘোষণা করেন। এ ছাড়াও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর হিসাবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন নয় জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৩৪ জন।
পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সুত্রে জানা গেছে, কসবা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২ নভেম্বর। সপ্তম ধাপের পৌরসভার নির্বাচনে ব্রা‏হ্মণবাড়িয়ার কসবা পৌরসভাসহ ১০টি পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন হবে ইভিএমে। আজ সোমবার প্রতীক বরাদ্দের দিনে নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান লিখিতভাবে মো. গোলাম হাক্কানীকে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় মেয়র নির্বাচিত ঘোষনা করেন।
গত ১০ অক্টোবর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মো. গোলাম হাক্কানী ব্যতিত আর কোন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা করেনি। কোন প্রতিদ্বন্ধিতা না থাকায় মো. গোলাম হাক্কানীকে মেয়র পদে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।
এ ছাড়াও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর হিসাবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছিলেন সংরক্ষিত এক নং ওয়ার্ড থেকে তিনজন, দুই নং ওয়ার্ড থেকে চারজন এবং তিন নং ওয়ার্ড থেকে দুই জন। তারা প্রত্যেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন ৩৬ জন। তাদের মধ্যে দুই নং ওয়ার্ড থেকে মো. আবদুল আউয়াল এবং ৭ নং ওয়ার্ড থেকে প্রনব সাহা মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় ৩৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।
নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে আরো জানা গেছে, কসবা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা ২৯ হাজার ১৬৩জন। এদের মধ্যে পুরুষ ১৪ হাজার ৭২৯, মহিলা ভোটার ১৪ হাজার ৪৩৩ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গ একজন রয়েছেন। নির্বাচনী কেন্দ্রের সংখ্যা রয়েছে ১০টি।
রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান বলেন, মেয়র পদে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মো. গোলাম হাক্কানী ব্যতিত আর কোন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা করেনি। কোন প্রতিদ্বন্ধি না থাকায় মো. গোলাম হাক্কানীকে মেয়র পদে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে নয়জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদের মনোনয়ন দাখিল করে ৩৪ জন প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। ইভিএমে আগামী ২ নভেম্বর সংরক্ষিত কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
নব নির্বাচিত মেয়র মো. গোলাম হাক্কানী বর্তমানে কসবা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক। ১৯৮২ সালে তিনি সৈয়দাবাদ আদর্শ মহাবিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আসেন। এরপর ১৯৮৪ সাল থেকে তিনি কসবা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৮ সাল থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত পরপর দুইবার কসবা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৯৫ সাল থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত কাউন্সিলরদের ভোটে পরপর দুইবার উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০৪ সাল হতে ব্রা‏‏হ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের দুইবার ওয়ার্কিং বোর্ডের সদস্য ছিলেন। ২০১৩ সালে তিনি কসবা উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ছিলেন।
নব নির্বাচিত মেয়র মো. গোলাম হাক্কানী বলেন, কসবা পৌরসভাকে একটি আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলার জন্য তিনি কাজ করবেন। মাননীয় আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য আনিসুল হক এর এলাকার উন্নয়ন বাস্তবায়নের জন্য কাজ করবেন।
আওয়ামীলীগ দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মেয়র পদে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন কসবা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক মো. গোলাম হাক্কানী। কসবা পৌরসভার বর্তমান মেয়র এমরান উদ্দিন। তিনি গত নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত হয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি আওয়ামীলীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছিলেন। এ ছাড়াও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেনে কসবা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এম.এ আজিজ, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি মো. ফজলুর রহমান, বাংলাদেশ শ্রমিক লীগ কসবা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন জামিল, আওয়ামীলীগ কর্মী মো. মাহবুবুর রহমান



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন