Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৮ মাঘ ১৪২৭, ০৮ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

সংরক্ষিত বাগান উজাড় করে বনভূমি জবর-দখলের অভিযোগ

প্রকাশের সময় : ১৫ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা সীমান্তে ভান্ডারজুড়ি বিটের জৈষ্টপুরা পাহাড়ে সংরক্ষিত সেগুন বাগান উজাড় করে বনভূমি জবর দখলের উৎপাত করছে বনদস্যুদল। বাধার মুখে এখানে ভিলেজার এবং বনদস্যুদের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে। জানা যায়, রাঙ্গুনিয়া সীমান্তে গর্জন্যা দোচাল্যা নামক এলাকায় প্রায় ৫শ একর বনভূমিতে রয়েছে বন বিভাগের সংরক্ষিত সেগুন বাগান। বন সম্পদের সংরক্ষণ এবং বন বিভাগের উন্নয়ন কাজে সহযোগী হিসেবে নিকটবর্তী রাঙ্গুনিয়া রেঞ্জের বড়খোলাপাড়া এলাকার পাহাড়ি এবং বাঙালি ভিলেজারগণ দীর্ঘদিন যাবৎ গভীর অরণ্যে দোচাল্যা সেগুন বাগান দেখভাল করে আসছে। বিনিময়ে বনাঞ্চলের নিচু এলাকায় জুম চাষাবাদ এবং ফলজ বাগান করে জীবিকা নির্বাহ করে এসব ভিলেজার পরিবার। ইদানীং দুর্ধর্ষ বনদস্যুরা বাগান উজাড় করে প্রতিদিন পাচার করছে মূল্যবান সেগুন গাছ। বোয়ালখালী উপজেলার ভান্ডালজুরি ও জৈষ্টপুর এলাকা দিয়ে নির্বিঘেœ এসব চোরাই সেগুন পাচার হচ্ছে। বেপরোয়া পাচারে দোচাল্যা সেগুন বাগানের বিস্তীর্ণ এলাকা ইতোমধ্যে উজাড় হয়ে গেছে। অভিযোগ পাওয়া যায়, রাজনৈতিক পরিচয়ে বোয়ালখালী উপজেলার জৈষ্টপুরা এলাকার লোকজন সেগুনগাছ পাচারের পাশাপাশি চালাচ্ছে সংরক্ষিত বনভূমি জবর দখলের তা-ব। একশ্রেণীর অসাধু বনকর্মীদের যোগাসাজসে চিহ্নিত লোকজন মূল্যবান সেগুন বাগান উজাড় করে জবর দখলী পাহাড়ে লেবু বাগান করছে। ভিলেজার প্রতিনিধি উৎপই মার্মা প্রকাশ অনন্ত মাস্টার জানান, বংশানুক্রমে পাহাড়ি ও বাঙালি ভিলেজাররা গভীর বনাঞ্চলের দোচাল্যা সেগুন বাগান ও বনভূমি সংরক্ষণে বনকর্মীদের সহায়তা দিয়ে আসছে। সম্প্রতি বাগান এলাকা হয়ে রাঙ্গুনিয়া-বোয়ালখালী সড়ক নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরু হলে সৃষ্ট যোগাযোগ সুবিধা বাগান ও বনভূমির উপর নজর পড়ে বনদস্যুদের। যোগাযোগ সুবিধার সুবাধে এখানে শুরু হয়েছে কাঠ পাচার ও জবর দখলের উৎপাত। ভূমিদস্যুরা ওই বনভূমির জবর দখল করতে সেগুন গাছ উপড়িয়ে লেবু বাগান করছে। প্রতিদিন শত শত লোকজন দিয়ে লেবু বাগান সৃজনের কাজ করে চলেছে। আপত্তি করলে নিরীহ ভিলেজারদের মারধর এবং ধরে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেয়। ভান্ডালজুরি বিট কর্মকর্তা সুলতানুল আলম চৌধুরী জানান, বনাঞ্চল রক্ষায় বনকর্মীরা সক্রিয় রয়েছে। দোচাল্যা এলাকায় সংরক্ষিত বনভূমি ও বাগানে কাউকে অবৈধভাবে লেবু বাগান এবং জবর দখল করতে দেয়া হবে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সংরক্ষিত বাগান উজাড় করে বনভূমি জবর-দখলের অভিযোগ
আরও পড়ুন