Inqilab Logo

রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর ব্যর্থতা সরকারেরই ব্যর্থতা

সম্প্রীতি সমাবেশে জিএম কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৮ এএম

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের এমপি বলেছেন, উসকানিমূলক হামলা থেকে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মন্দির ও বাড়িঘর রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছে গোয়েন্দা সংস্থা ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী। গোয়েন্দা সংস্থা ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর ব্যর্থতা হচ্ছে সরকারেরই ব্যর্থতা। এই ব্যর্থতার দায় সরকারকে নিতেই হবে।
গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আয়োজনে সম্প্রীতি সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। জিএম কাদের বলেন, এদেশের মানুষের মাঝে হাজার বছরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য রয়েছে। একই চত্ত্বরে মসজিদ ও মন্দির রয়েছে। কখনো নিজ নিজ ধর্ম পালনে সমস্যা হয়নি। কিন্তু গেলো শারদীয় দুর্গা উৎসবে কেনো সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট হলো তা খতিয়ে দেখতে হবে।

তিনি বলেন, হাজার বছরের সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে ষড়যন্ত্র চলছে। কোন হিন্দু নিজ উৎসব বিনষ্ট করতে কোরআন অবমাননা করতে পারে না। আবার নূন্যতম ঈমান আছে এমন কোন মুসলমান কোরআন অবমাননা করতে পারে না। যে বা যারা করেছে, তা গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ। দ্রুততার সাথে সারা দেশে কোরআন অবমাননার খবর ছড়িয়ে দিয়ে উত্তেজনাকর পরিবেশ সৃষ্টি করেছে মহলটি, যেনো সবাই প্রস্তুত ছিলো। এতে প্রমান হয়, অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবেই হয়েছে কোরআন অবমাননার ষড়যন্ত্র।

জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি’র সভাপতিত্বে সম্প্রীতি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান আরও বলেন, ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে আমাদের সম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য প্রশ্নবিদ্ধ করা হয়েছে। এখন আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো নিন্দা জানাচ্ছে। তাই সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে সম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে হবে।

জাতীয় পার্টি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতে সাধারণ মানুষকে সঙ্গে নিয়ে সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে হবে। যারা সংখ্যালঘুদের শক্র তারা দেশ ও জাতির শক্র। কারা ও কেন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে চাচ্ছে তা বের করতে হবে। দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে একজন প্রতিমন্ত্রী কেন রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম মানি না বলে আরও উত্তেজনা সৃষ্টি করে ধর্মপ্রাণ মানুষের অন্তরে আঘাত করেছেন তাও খতিয়ে দেখতে হবে।

সম্প্রীতি সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য হাজী মো. সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, আলমগীর সিকদার লোটন, উপদেষ্টা জরিুল আলম রুবেল, ভাইস চেয়ারম্যান সালমা হোসেন, যুগ্ম-মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, ফখরুল আহসান শাহজাদা প্রমুখ।



 

Show all comments
  • মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ৪:০৯ এএম says : 0
    সংসদীয় পদ্ধতি বাতিল করা হউক,রাষ্ট্রপতি পদ্ধতি চালু করুন,সংসদীয় পদ্ধতি যত দিন এই দেশে থাকবে,যে দলই ক্ষমতায় আসবে ,কোনো আশা নেই যে হিন্দু মুসলিম দাঙ্গা শেষ হবে,সংসদীয় দলীয় আমলাতান্ত্রিক সংসদীয় পদ্ধতি যতদিন থাকবে ততদিন,হিন্দু মুসলিম দাঙ্গার সমাধান নেই ,হবে না,কাগজে কলমে লেখে রাখার জন্য বলছি,....
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জিএম কাদের


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ