Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

মুকুট ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ ক্যারিবীয়দের সামনে

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৪ এএম | আপডেট : ১২:০৫ এএম, ২৩ অক্টোবর, ২০২১

সাম্প্রতিক ফর্ম বিবেচনায় নিলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পিছিয়ে রাখার কোনো সুযোগ নেই। এবছর দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া এবং পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে তারা। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২-১ এর ব্যবধানে হেরে গেলেও দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে, জিতেছে ৪-১ এর বিশাল ব্যবধানে। পাকিস্তানের বিপক্ষে চার ম্যাচের তিনটিই ভেসে গেছে বৃষ্টিতে, অপর ম্যাচটি জিতে নিয়েছে পাকিস্তান।

তাছাড়া ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ এবং ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগেও(আইপিএল) অংশ নিয়েছে ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটাররা। বিশ্বকাপের প্রস্তুতিটা তাই ভালোভাবেই সেরে নিয়েছে তারা।

একমাত্র দল হিসেবে দুইবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দলে আছে বেশকিছু বিস্ফোরক ব্যাটার। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যেকোনো মুহুর্তে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্য এক-দুইজন ব্যাটারের পারফরম্যান্সই যথেষ্ট। ব্যাটিং লাইনআপে ক্রিস গেইল, এভিন লুইস, আন্দ্রে রাসেল, শিমরন হেটমায়ার, কাইরন পোলার্ড, নিকোলাস পুরানদের মত বিধ্বংসী সব ব্যাটারদেরকে নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তাই বেশ ভালোভাবেই প্রস্তুত বিশ্বকাপে লড়াই করার জন্য। ক্যারিবিয়ানদের ব্যাটিংয়ের মূল স্তম্ভ যে এরাই।

দলে বেশকিছু অলরাউন্ডারের উপস্থিতির ফলে ব্যাটিংয়ের গভীরতাও বাড়বে নিশ্চিতভাবেই। আন্দ্রে রাসেল, ডোয়াইন ব্রাভোরা দলের জন্য কার্যকরী হয়ে উঠতে পারেন যেকোনো সময়।

তবে ব্যাটিং নিয়ে দুশ্চিন্তার জায়গাও কিছুটা আছে। পুরান, গেইলদের সাম্প্রতিক ফর্ম তেমন ভালো নয়। সংযুক্ত আরব আমিরাতে একেবারে ফ্ল্যাট ব্যাটিং উইকেট হবে সেই নিশ্চয়তাও নেই। সদ্য সমাপ্ত আইপিএল অনেক লো স্কোরিং ম্যাচ হতে দেখা গেছে, ব্যাটারদের জন্য তাই দারুণ চ্যালেঞ্জিং হতে যাচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ।

স্পিন বোলিংয়ে বেশ খানিকটা দুর্বলতা আছে ক্যারিবিয়ানদের। রস্টন চেজ এবং হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলার অভিজ্ঞতা খুবই কম এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের কন্ডিশনেও খুব বেশি ম্যাচ খেলেননি তারা। যার ফলে বড় একটা দুশ্চিন্তার জায়গা রয়েই গেছে।

তবে পেস বোলিং শক্তি যথেষ্ট উন্নত ওয়েস্ট ইন্ডিজের। মূল তিন পেসার ওবেদ ম্যাকয়, রবি রামপাল এবং ওশানে থমাসের ওপরই ভরসা রাখবে ক্যারিবিয়ানরা। রামপল অনেকদিন ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন যার ফলে বিশ্বকাপের মত বড় মঞ্চে তার অভিজ্ঞতা ভালোই কাজে লাগার কথা দলের। বাকি দুইজনও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজেদের প্রমাণ করেছেন, এখন দেশের হয়ে বড় মঞ্চে নিজদেরকে মেলে ধরার বড় সুযোগ তাদের সামনে।

দলে থাকা ক্রিকেটারদের মধ্যে একটু আলাদা করে নজর রাখতে হবে শিমরন হেটমায়ার এবং ডোয়াইন ব্রাভোর ওপর। ব্যাটারদের মধ্যে গেইল এবং পুয়ারন ফর্মে না থাকায় হেটমায়ারের ওপর অনেক বেশি আস্থা রাখবে দল। তিনি সেই আস্থার প্রতিদান দিতে পারবেন কিনা তাই এখন দেখার বিষয়। দুনিয়াজোড়া টি-টোয়েন্টি লিগ খেলে বেড়ানো ব্রাভোর অভিজ্ঞতার ভান্ডার বেশ সমৃদ্ধ। বিশ্বকাপের বড় মঞ্চে সেই অভিজ্ঞতা খুবই ভালোভাবে কাজে লাগারই কথা। বল-ব্যাট দুটিতেই সমান পারদর্শী ব্রাভো হয়ত দলের জন্য বিশাল ভরসা হয়েই থাকবেন এবারের বিশ্বকাপে। তাছাড়া অধিনায়ক কাইরন পোলার্ডও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সেরাদের একজন। অধিনায়ক হিসেবে বড় মঞ্চে নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগ থাকচভহে তার সামনে। তিনি তা কাজে লাগানোর জন্য মুখিয়ে থাকবেন বলেই ধারণা করা যাচ্ছে।

এবারের বিশ্বকাপে সুপার টুয়েলভে সরাসরি খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গ্রুপ-১ এ তাদের প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া এবং প্রাথমিক পর্ব পেরিয়ে আসা দুই দল। গ্রুপের চার দলের কেউই এশিয়ার নয় বিধায় সকলের লড়াইটা জমজমাটই হওয়ার কথা। যে কেউই সেরা দুই দলের একটি হয়ে চলে যেতে পারে সেমিফাইনালে। গ্রুপের লড়াইটা বেশ ভালো জমবে বলেই ধারণা করা যাচ্ছে।

তবে শেষে আবারো একটি কথা বলতেই হচ্ছে, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটটাই যেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য। এত পাওয়ার হিটার সমৃদ্ধ দলের জন্য বিশ্বকাপ জয় তাই আকাশ কুসুম কল্পনা নয়, বেশ বাস্তবধর্মী চিন্তাভাবনা। বোলিং, ব্যাটিং, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সামর্থ্য, অভিজ্ঞতা সবকিছু বিবেচনায় নিলে ক্যারিবিয়ানরা এবারের বিশ্বকাপের সেরা দলগুলোর একটি, অন্তত কাগজ-কলমের হিসাব তাই বলছে। দলের সামর্থ্যের পুরোটা বিশ্বকাপের মঞ্চে সবাই একযোগে ঢেলে দিতে পারলে ক্যারিবিয়ানদের আরও একবার বিশ্বজয় দেখতেই পারে ক্রিকেট বিশ্ব। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জন্য একদম আদর্শ একটি দলই যে আছে তাদের হাতে।

একনজরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিশ্বকাপ স্কোয়াড: কাইরন পোলার্ড (অধিনায়ক), নিকোলাস পুরান, ডোয়াইন ব্র্যাভো, রস্টন চেজ, আন্দ্রে ফ্লেচার, ক্রিস গেইল, শিমরন হেটমেয়ার, এভিন লুইস, ওবেদ ম্যাকয়, আকিল হোসেইন, রবি রামপাল, আন্দ্রে রাসেল, লেন্ডল সিমন্স, ওশানে থমাস, হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: টি২০ কাপ


আরও
আরও পড়ুন