Inqilab Logo

রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীর জন্য কাজ করতে হবে : সিনিয়র সচিব-আইসিটি

কুমিল্লা থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ৭:০২ পিএম

সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেছেন, দেশের সকল ক্ষেত্রেই এখন সফলতা দৃশ্যমান। বাংলাদেশ বর্তমানে গোটা বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল। উন্নয়নশীল এদেশে পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীর ভাগ্য উন্নয়ন ঘটিয়ে তাদেরকে সমাজের মূল স্রোতধারার মানুষের সাথে সম্পৃক্ত করতে হবে। তাই তাদের জন্য কাজ করতে হবে। সমাজের শিক্ষিত শ্রেণিদের একটি বড় অংশ কুমিল্লার ছায়াবিতান সোসাইটিতে বসবাস করছেন। তারা কেবল নিজেদের জীবন মান উন্নয়ন নিয়েই ভাবেন না, তারা যার যার অবস্থান থেকে সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিতেও কাজ করছেন। আমি এরকম একটি সোসাইটির সদস্য হতে পেরে গর্ববোধ করছি।
শনিবার দুপুরে কুমিল্লা শহরতলীর দৌলতপুরে ছায়াবিতান কো-অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটির বার্ষিক সাধারণ সভা,সম্মাননা প্রদান ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন-কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উপসচিব মো: জিল্লুর রহমান, কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুভাশীষ ঘোষ, কুমিল্লা জেলা সমবায় অফিসার মো: আল-আমিন, স্বেচ্ছাসেবি সংগঠন জাগ্রত মানবিকতার প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ডা. তাহ্সীন বাহার সূচনা, মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শিহাব উদ্দিন আহমেদ বাবু প্রমুখ।
সভায় সোসাইটির সভাপতি ও কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম সুপরিকল্পিত অবকাঠামোর এই সোসাইটির সার্বিক উন্নয়নে স্থানীয় সাংসদ, জেলা প্রশাসক, উপজেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।
সভায় সোসাইটির বয়োজ্যেষ্ঠ ৫ সদস্যকে সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়।এছাড়াও সোসাইটির সদস্য পরিচিতি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।সোসাইটির ব্যবস্থাপনা কমিটির সহসভাপতি ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ ফারুক সরকারের সঞ্চালনায় সভায় সোসাইটির সম্পাদক এএম মামুনুর রশীদ অপু, ব্যবস্থাপনা কমিটি ও সোসাইটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য ১৯৬৪ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত ছায়াবিতান কোÑঅপারেটিভ সোসাইটি সরকারি চাকুরিজীবীদের আবাসিক সুবিধা নিশ্চিতের লক্ষ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের উদ্যেগে ১৯৭৮ খ্রিষ্টাব্দে শহরতলীর দৌলতপুর মৌজায় ৯.৮৭ একর জমি বরাদ্ধ পেয়ে সোসাইটির আবাসিক কার্যক্রম চালু হয়। বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা ১২১ জন। যারা সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের বর্তমান, প্রাক্তন ও তাঁদের পরিবারের সদস্য।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ