Inqilab Logo

সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৩০ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

বাংলাদেশের লাভ কি?

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০১ এএম

জাতির জনকের নামে দশ বছর পর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক জিমন্যাস্টিক্স প্রতিযোগিতা। বঙ্গবন্ধু সেন্ট্রাল সাউথ এশিয়ান জিমন্যাস্টিক্স শুরু হচ্ছে ২৭ অক্টোবর থেকে। এ আসরে অংশ নিচ্ছে ছয়টি দেশ। এগুলো হলো- স্বাগতিক বাংলাদেশ,উজবেকিস্তান, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ও শ্রীলঙ্কা। আফগানিস্তানেরও এ টুর্নামেন্টে খেলার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা আসছে না। টুর্নামেন্টের খেলা হবে মিরপুরস্থ শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে। আন্তর্জাতিক এ আসরকে সামনে রেখে গতকাল ঢাকা ক্লাবে লোগো উম্মোচিত হয়। পরে সংবাদ সম্মেলনে টুর্নামেন্ট সম্পর্কে নানা তথ্য গণমাধমের সামনে তুলে ধরেন বাংলাদেশ জিমন্যাস্টিক্স ফেডারেশনের সভাপতি শেখ বশির আহেমদ মামুন। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাধারন সম্পাদক মো.আহমেদুর রহমান বাবলু। লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল।

জাতির জনকের নামে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের আয়োজন করে জিমন্যাস্টিক্স ফেডারেশন প্রশংসার দাবিদার হলেও এ আসর করে লাভ কি বাংলাদেশ জিমন্যাস্টিক্সের? সারা বছর যেখানে দেশে দ্বায়সারাভাবে একটি বা দুটি টুর্নামেন্ট আয়োজন হয় সেখানে বঙ্গবন্ধু সেন্ট্রাল সাউথ এশিয়ান টুর্নামেন্টে লাল-সবুজের জিমন্যাস্টরা নিজেদের মেলে ধরতে পারবেন কতটা? ভারতের মতো স্বীকৃত শক্তি দেশের খেলোয়াড়দের সামনে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করতে হলে প্রয়োজন দীর্ঘমেয়াদী উন্নত প্রশিক্ষণের। তা পাচ্ছেন কি বাংলাদেশের জিমন্যাস্টরা? এমন প্রশ্ন দেশের ক্রীড়াবোদ্ধাদের।
সংবাদ সম্মেলনে ফেডারেশন সভাপতি শেখ বশির আহেমদ মামুনের বক্তব্যে স্পষ্ট প্রমাণ মেলে আন্তর্জাতিক এই টুর্নামেন্ট থেকে সাফল্য পাওয়ার আশা নেই স্বাগতিকদের। মামুন বলেন, ‘আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট আয়োজনের জন্য আমরা সাংগঠনিক দিক থেকে প্রস্তুত। আমাদের প্রস্তুতিও ভালো। তবে পদক জিতবই, এটা দৃঢ়ভাবে বলতে পারছি না। আমরা ভালো কিছু করবো, সেই প্রত্যাশা করছি!’
২০১৬ রিও অলিম্পিকে রিদমিক জিমনাস্টিক্সে স্বর্ণ জিতেছিলেন বাংলাদেশি বংশদ্ভুত রাশিয়ান তরুণী মার্গারিতা মামুন। তিনি রাশিয়ান হলেও তার বাবা বাংলাদেশি। এবার বাংলাদেশ জিমনাস্টিক্স ফেডারেশনের আমন্ত্রণে ঢাকায় এসেছেন তিনি। মামুনের কথায়, ‘মার্গারিতা মামুন এখন ঢাকায়। টুর্নামেন্টের উদ্বোধনের দিন তিনি থাকবেন। পরের দিনও তিনি খেলা দেখবেন। তাকে এই টুর্নামেন্টে বিশেষ আমন্ত্রণে আনার কারণ হচ্ছে তাকে দেখে যেন আমাদের মেয়েরা উজ্জীবিত হয়। মার্গারিতা মামুন রাশিয়ায় থাকলেও তার ধমণীতে বাইছে বাংলাদেশের রক্ত। বাংলাদেশের প্রতি তার টানও রয়েছে।’ যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ‘জিমন্যাস্টিক্সের জন্য আমরা জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের নিচতলায় একটি অংশ দিয়েছিলাম অনুশীলনের জন্য। সামনে অনেক ইনডোর স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হচ্ছে। সেখানে ফেডারেশনের চাহিদা মোতাবেক আমরা ভেন্যু বরাদ্দের ব্যবস্থা করবো।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বাংলাদেশ


আরও
আরও পড়ুন