Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সুপার সানডে লিভারপুল-রিয়ালের

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৬ এএম

‘হ্যালো, আইসিসি, সবকিছু ঠিকঠাক সামলাতে পারছ তো?’
‘এখন একটু ব্যস্ত আছি। পরে যোগাযোগ করবো।’
২০১৯ সালের ১৪ জুলাই চলছিল চরম উত্তেজনা। লন্ডনের একদিকে চলছিল ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনাল, ওদিকে চলছিল উইম্বলডন ফাইনাল। দুদিকেই টান টান উত্তেজনা। এখানে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনাল হলো টাই। খেলা গড়াল সুপার ওভারে। সেখানেও দুই দলের রান সমান। ওদিকে উইম্বলডনে শেষ সেটে টাইব্রেকারে একে অপরকে একবিন্দু ছাড় দিচ্ছিলেন না রজার ফেদেরার ও নোভাক জোকোভিচ। এমন টান টান উত্তেজনার মধ্যে টুইটারে নিজেদের মধ্যে এভাবেই মজা করছিলেন উইম্বলডন ও আইসিসির অফিশিয়াল টুইটারের অ্যাডমিনরা। কে জানত করোনাকাল পেরুনো ২০২১ সাল আরেকটি এমন খেলাময় দিন উপহার দেবে? সত্যিকারের খেলার এক দিন যাকে বলে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সূচি দেওয়ার পরই ২৪ অক্টোবর দিনটি নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল। কারণ, প্রায় দুই বছর পর ক্রিকেটে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ দেখা যাবে এদিন। কিছুদিন পর লা-লিগাও সে উত্তেজনা বাড়িয়ে দেয়। কারণ, এই মৌসুমের প্রথম ‘এল ক্লাসিকো’র জন্য এই দিনকেই বেছে নিয়েছে লা লিগা। আর আইসিসির খামখেয়ালিপনাতেই যেন ২১ অক্টোবর নিশ্চিত হওয়া গেল, ২৪ অক্টোবর বাংলাদেশের মানুষের অন্যদিকে নজর দেওয়ার উপায় নেই। সারা দিনই পড়ে থাকতে হয় খেলা নিয়ে।

দিনের শুরুটাই হয় বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার সুপার টুয়েলভের ম্যাচ দিয়েই। যদিও বাংলাদেশকে মাঠ ছাড়তে হয় হারের লজ্জা নিয়ে। তার রেশ কাটতে না কাটতেই সেই মহেন্দ্রক্ষণ- পাক-ভারত মহারণ। দুই বছর পর দেখা হচ্ছে দুই দলের। এ ম্যাচ নিয়ে উত্তেজিত হওয়াটাই স্বাভাবিকই ছিল। আর বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে পাকিস্তানের অসহায় আত্মসমর্পণের ইতিহাসটা এবার বদলাতে পেরেছে পাকিস্তান। যে কোনো ফরম্যাটের বিশ্ব আসরে প্রথমবারের মতো ভারতকে হারানোর স্বদ পেয়েছে বাবর আজমের দল।

এতো গেল ক্রিকেটভক্তদের বিনোদনের খোরাক। এমন দিনে ফুটবল রোমান্টিকরাই-বা বাদ যায় কেন? সুপার সানডের বদৌলতে অনেক ম্যাচের ভিড়ে দুটো হাইভোল্টেজ ম্যাচের সাক্ষী হয়েছে ক্রীড়াপ্রেমীরা। যার একটি এল ক্লাসিকো, আরেকটি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড-লিভারপুল অল ইংলিশ দ্বৈরথ। এল ক্লাসিকো বাংলাদেশে সবচেয়ে আকাক্সিক্ষত ম্যাচ হতে পারে; বিশ্বে দর্শকসংখ্যায় কিন্তু এগিয়ে ছিল ইংলিশ দ্বৈরথ।

রাতের শুরুতেই মেসি-উত্তর যুগে প্রথমবারের মতো বার্সেলোনার মুখোমুখি হয় সার্জিও রামোসকে ছেড়ে দেওয়া রিয়াল মাদ্রিদ। আর তাতে শেষ হাসি হাসে রিয়ালই। মূল দায়িত্ব তার রক্ষণ সামলানো। তবে আক্রমণেও যে কম যান না, ক্যারিয়ারে প্রথম ক্লাসিকো খেলতে নেমেই প্রমাণ দিলেন ডেভিড আলাবা। অসাধারণ এক গোলে এগিয়ে নিলেন দলকে। অতিরিক্ত সময়ে ব্যবধান আরও বাড়ালেন ভাসকেস। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার বিপক্ষে জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রাখল রিয়াল মাদ্রিদ। শেষ বাঁশি বাজার ঠিক আগ মুহূর্তে সার্জিও আগুয়েরো বার্সা জার্সিতে গোলের খাতা খুলে ব্যবধান কমালেও ক্যাম্প ন্যুতে লা লিগার ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতেছে কার্লো আনচেলত্তির দল। ৯ ম্যাচে ৬ জয় ও ২ ড্রয়ে ২০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রিয়াল। যথাক্রমে পরের দুটি স্থানে থাকা সেভিয়া ও রিয়াল সোসিয়েদাদের পয়েন্টও সমান ২০। সমান ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে ৯ নম্বরে নেমে গেছে বার্সেলোনা।

এই নিয়ে রিয়ালের বিপক্ষে লিগে টানা চার ম্যাচ হারল বার্সেলোনা, যার তিনটিই রোনাল্ড কেমানের মেয়াদে। ২০১৯-২০ আসরে ঘরের মাঠে ড্রয়ের পর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের মাঠে গিয়ে হেরেছিল বার্সেলোনা। আর গত মৌসুমে লিগে রিয়ালের বিপক্ষে দুই দেখায়ই হারে কোমানের দল। সব মিলিয়ে লা লিগায় রিয়ালের বিপক্ষে টানা পাঁচ ম্যাচ জয়শূন্য রইল কাতালান ক্লাবটি। ২০০৮ সালের মে মাসের পর থেকে কোনো এক দলের বিপক্ষে এটিই সবচেয়ে দীর্ঘ টানা ব্যর্থতার চিত্র।

এই চ্যানেল থেকে টিভি রিমোট ঘোরাতেই ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে আরেক রোমাঞ্চের পসরা সাজিয়ে বসেছিল ফুটবল বিশ্ব। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ইউনাইটেডের আতিথ্য নিতে এসেছিল লিভারপুল। তবে দলের সেরা তারকা মোহাম্মদ সালাহর হ্যাটট্রিকে একপেশে ম্যাচটি ৫-০ গোলে জিতে নিয়েছে অ্যানফিল্ডের দলটি। পঞ্চম মিনিটে নাবি কেইতা দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন দিয়েগো জটা। দুই অর্ধ মিলিয়ে ১২ মিনিটে হ্যাটট্রিক উপহার দেন সালাহ।

দারুণ এ জয়ে ৯ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে লিভারপুল। দুঃস্বপ্নময় হারে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম স্থানে আছে ইউনাইটেড। ম্যাচে স্বাগতিকদের বাড়তি ক্ষতি হয়ে গেল মেজাজ হারিয়ে পল পগবার লাল কার্ড পাওয়ায়। ২২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে আগের রাতে নরউইচ সিটির জালে গোলউৎসব করা চেলসি। তৃতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির পয়েন্ট ২০। এদিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সবশেষ ম্যাচের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স প্রিমিয়ার লিগেও বয়ে আনল ম্যানচেস্টার সিটি। ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিয়নকে সহজেই হারাল পেপ গার্দিওলার দল। প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচটি ৪-১ গোলে জিতেছে গত আসরের চ্যাম্পিয়নরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সুপার সানডে লিভারপুল-রিয়ালের
আরও পড়ুন