Inqilab Logo

রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

পাকিস্তান-ভারত সম্পর্কোন্নয়নের কথা বলার উপযুক্ত সময় এখন নয়

বিশ্বকাপে ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম জয়ের পর ইমরান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০০ এএম

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেছেন, কিন্তু বলেন, টি -টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে উড়ন্ত জয়ের পর এ ধরনের আলোচনা করা ‘ভালো সময় নয়’।

গতকাল রিয়াদে পাকিস্তান-সউদী ইনভেস্টমেন্ট ফোরামে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানের প্রবৃদ্ধি সম্ভাবনার কথা বলেন এবং দেশের যুব ও কৌশলগত অবস্থান তুলে ধরেন। ‘আমাদের প্রতিবেশী বিশ্বের দুটি বৃহত্তম বাজার রয়েছে, আফগানিস্তানের মাধ্যমে আমাদের মধ্য এশিয়ার বাজারে [অ্যাক্সেস] আছে।

তিনি বলেন, ‘চীনের সঙ্গে আমাদের চমৎকার সম্পর্ক রয়েছে, কিন্তু যদি কোনোভাবে আমরা ভারতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক উন্নত করি, আমি জানি, রোববার রাতে ক্রিকেট ম্যাচে পাকিস্তান দলের কাছে বিধ্বস্ত হওয়ার পর, ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের কথা বলার জন্য এটা খুব ভালো সময় নয়’।

বিশ্বকাপের খেলায় পাকিস্তান প্রথমবারের মতো ভারতকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ার একদিন পর প্রধানমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন। অস্ট্রেলিয়ায় ১৯৯২ সাল থেকে শুরু হওয়া ১৩টি বিশ্বকাপ ম্যাচে (৫০ ওভারের বিশ্বকাপে সাতটি এবং টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ছয়টি) পাকিস্তানের প্রথম জয়।
রিয়াদে বক্তৃতাকালে প্রধানমন্ত্রী বলেন যে, দুই দেশের একটিই সমস্যা ছিল ভারত-অধিকৃত কাশ্মীর এবং ‘সভ্য’ প্রতিবেশীর মতো এটি সমাধানের আহ্বান জানিয়েছেন।

‘এটি সবই মানবাধিকার এবং কাশ্মীরের জনগণের স্ব-নিয়ন্ত্রণের অধিকারের বিষয়ে যার গ্যারান্টি ৭২ বছর আগে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে দেওয়া হয়েছিল। ‘যদি তাদের সেই অধিকার দেওয়া হয়, তাহলে আমাদের আর কোন সমস্যা নেই। দুই দেশ সভ্য প্রতিবেশী হিসেবে বসবাস করতে পারে, শুধু সম্ভাবনার কথা কল্পনা করুন’।
তিনি বলেন, পাকিস্তানের মাধ্যমে ভারত মধ্য এশিয়ায় প্রবেশ করবে এবং পরবর্তীতে দুটি বড় বাজারে প্রবেশ করবে। আমি সউদী ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের ওপর এই বিষয়টিই প্রভাবিত করতে চাই, পরিস্থিতি কখনই একই থাকে না। সবসময় তা পরিবর্তিত হয়’।

তিনি বলেন, সবচেয়ে সফল ব্যবসায়ী তারাই যারা সামনের দিকে তাকিয়ে ঝুঁকি নেয়। ‘যারা বিশ্বাসঘাতকতার পথে চলে তারা কখনোই কোন ক্ষেত্রেই অসামান্য হয়ে ওঠে না, ব্যবসার কথা বাদ দিন’।
আবারও পাকিস্তানের কৌশলগত অবস্থান তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সউদী ব্যবসায়ীরা দেশটির প্রস্তাব থেকে উপকৃত হতে পারে। রাভি রিভারফ্রন্ট আরবান ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট এবং সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক্ট প্রজেক্টের কথা তিনি উল্লেখ করেন এবং বিনিয়োগকারীদের সেগুলোতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

তিনি ৩ লাখ একর উর্বর জমি নিয়ে সিন্ধু নদের পাশে আরেকটি প্রকল্পের কথাও উল্লেখ করেন। তিনি বলেন যে, পানি পর্যাপ্ত রয়েছে, কিন্তু জমিতে পানি দেয়ার জন্য খালের প্রয়োজন। ‘খালে সেই পানি নিয়ে যেতে আমাদের কেবল বিদ্যুতের প্রয়োজন এবং এটি হলে পুরো এলাকাটি চাষযোগ্য হয়ে ওঠে’। তিনি বলেন, এ প্রকল্পে উভয় দেশের জন্য প্রচুর সুযোগ রয়েছে। তার বক্তৃতা শেষ করে প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, তিনি চান দুই দেশের সম্পর্ক অন্য মাত্রায় যাক। ‘এমন একটি স্তর যা উভয় দেশকে উপকৃত করবে।

‘সউদী আরবের সুবিধার তুলনায় পাকিস্তানের যে সুবিধা রয়েছে তা ভিন্ন। তাই, আমরা যদি একত্রিত হই, তাহলে এটি উভয় দেশের পারস্পরিক উপকারে আসবে’।
নিরাপত্তা হুমকির বিরুদ্ধে পাকিস্তান সউদীর পাশে রয়েছে : এর আগে, প্রধানমন্ত্রী বলেন যে, দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক অন্য সকলকে ছাড়িয়ে গেছে। ‘দুটি পবিত্র মসজিদের কারণে, আমরা কিংডমের সাথে আবদ্ধ। দ্বিতীয়ত, সউদী আরব সবসময়ই সবচেয়ে কঠিন সময়ে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়িয়েছে’। তিনি বলেন, সউদী আরব যদি নিরাপত্তার হুমকির সম্মুখীন হয়, তাহলে পাকিস্তান তার নিরাপত্তা রক্ষায় তার পাশে দাঁড়াবে। তিনি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানেরও প্রশংসা করেছেন।

‘আমি ৩০ বছর ধরে সউদী আরবে আসছি এবং আমি যুবরাজের গতিশীল নেতৃত্বে একটি পরিবর্তন দেখেছি। আমি পার্থক্য দেখেছি। তিনি এমন একজন যার পরিবর্তনের আবেগ আছে এবং আমি সেটা দেখছি’।
এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় জানিয়েছে, এ উপলক্ষে আবাসন ও পানিবিদ্যুৎ খাতে পাকিস্তানে বিনিয়োগের সুযোগ নিয়ে পৃথক উপস্থাপনা করা হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক সউদী বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ী, প্রধান পাকিস্তানি ব্যবসায়ী নেতা, পাকিস্তানি প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা এবং সউদীতে অবস্থিত পাকিস্তানের বেসরকারি খাতের স্টেকহোল্ডাররা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর দফতর জানিয়েছে, সাবিক, অ্যাকওয়া পাওয়ার, মাআদেন, সালিক, জামিল গ্রুপ, আল-বাওয়ানি গ্রুপ এবং রিয়াদ ব্যাংকসহ নেতৃস্থানীয় সউদী সংস্থাগুলো ফোরামে যোগ দেয় এবং পাকিস্তানের সাথে গভীর সম্পৃক্ততা গড়ে তোলার জন্য তাদের সংকল্প নিশ্চিত করেছে। সূত্র : ডন অনলাইন।



 

Show all comments
  • পায়েল ২৬ অক্টোবর, ২০২১, ৩:০৯ এএম says : 0
    ভারতের সাথে সম্পর্কোন্নয়ন আদৌ কি সম্ভব?
    Total Reply(0) Reply
  • Farha Kanom Chowdhury ২৬ অক্টোবর, ২০২১, ৩:১০ এএম says : 0
    খেলা এখনো বাকি আছে । এক ম্যাচ জিতে এখন সম্পর্ক উন্নত করতে যেও না ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রী


আরও
আরও পড়ুন