Inqilab Logo

বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

১৯৪৭ সালের ২৭ অক্টোবর ভারতীয় গণতন্ত্রের মুখে একটি কলঙ্ক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ অক্টোবর, ২০২১, ৬:১৩ পিএম

ভারত কর্তৃক বেআইনিভাবে দখলকৃত জম্মু ও কাশ্মীরে, হুররিয়াত নেতারা এবং তাদের সংগঠনগুলো ২৭ অক্টোবরকে কাশ্মীরের ইতিহাসে অন্ধকারতম দিন হিসাবে অভিহিত করে বলেছে, ভারতীয় বাহিনী এইদিনে কাশ্মীরি জনগণের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ভূখণ্ডটি দখল করেছে। -এপিপি, কেএমএসনিউজ

জম্মু ও কাশ্মীর পিপলস পলিটিক্যাল পার্টির (পিপিপি) চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার হিলাল আহমেদওয়ার শ্রীনগরে এক বিবৃতিতে বলেছেন, ২৭শে অক্টোবর কাশ্মীরের ইতিহাসে সবচেয়ে কালো দিন। তিনি বলেন, ভারতীয় বাহিনী কাশ্মীরি জনগণের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ভূখণ্ডটি সেদিন দখল করে নেয়।

তাই ১৯৪৭ সালের ২৭ অক্টোবর ভারতীয় গণতন্ত্রের মুখের উপর একটি কলঙ্ক।জাতিসংঘের বিশ্বাসযোগ্যতা, প্রাসঙ্গিকতা, উদ্দেশ্য এবং অস্তিত্বের উপর এটি একটি বড় প্রশ্নচিহ্ন উল্লেখ করেন তিনি। তিনি আইআইওজেকে-এর জনগণকে ২৭ অক্টোবরকে একটি ‘কালোদিবস’ হিসাবে পালন করার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ভারত সরকার মানবতা, শালীনতা, গণতান্ত্রিক নীতি, এমনকি জাতিসংঘের সনদের সমস্ত নিয়ম লঙ্ঘন করে, কাশ্মীরের জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালানোর জন্য ভারতীয় বিমানবাহিনীসহ সেনাবাহিনী মোতায়েন করেছে। তথাকথিত যোগদান ছিল বিশ্বকে প্রতারণা ও উপহাস করার ঘটনা।

জম্মু ও কাশ্মীর মুসলিম কনফারেন্সের চেয়ারম্যান, শাব্বির আহমদ দার, মাহাজ-ই-আজাদী চেয়ারম্যান, মুহাম্মদ ইকবাল মীর, তেহরিক-ই-ইস্তিকলালের গোলাম নবী ওয়াসিম শ্রীনগরে তাদের পৃথক বিবৃতিতে ২৭ অক্টোবর কালোদিবস পালনের জন্য জনগণকে ম্যাসাজ দেওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। বিশ্বের কাছে কাশ্মীরিরা জাতিসংঘের রেজুলেশন অনুযায়ী আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার এবং বিরোধের নিষ্পত্তি চায়।

নেতৃবৃন্দ ভারতীয় বাহিনীর দ্বারা একজন বেসামরিক নাগরিক এবং বন্দী হত্যার বিষয়েও গুরুতর উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং আইআইওজেকে-তে ভারতীয় সেনা এবং মোদির আমলে সংঘটিত কাশ্মীরে গণহত্যা বন্ধ করার জন্য জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন