Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

পাকিস্তানকে ৪২০ কোটি ডলার সহায়তা দিচ্ছে সউদী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ অক্টোবর, ২০২১, ১১:৩৬ এএম | আপডেট : ৫:২৭ পিএম, ২৭ অক্টোবর, ২০২১

মঙ্গলবার তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী বলেছেন, সউদী আরব নগদ সহায়তা এবং বিলম্বিত অর্থপ্রদানে তেল দেয়ার মাধ্যমে পাকিস্তানকে ৪২০ কোটি ডলার লাইফলাইন প্রদান করতে সম্মত হয়েছে।

‘সউদী আরব পাকিস্তানের স্টেট ব্যাঙ্কে নগদ ৩০০ কোটি ডলার নগদ জমা করবে এবং বিলম্বিত অর্থপ্রদানের শর্তে ১২০ কোটি ডলার মূল্যের তেল সরবরাহ করবে,’ তথ্যমন্ত্রী এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের সাথে কথা বলার সময় বলেছিলেন।

এটি গত তিন বছরে পাকিস্তানকে সউদী আরবের দেয়া দ্বিতীয় আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ। পাকিস্তানকে সঙ্কট মোকাবেলায় সাহায্য করতে এই সহায়তা দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সউদী আরবে তিন দিনের সফর থেকে ফিরে আসার একদিন পর এই ঘোষণা দেয়া হয়েছে। ২০১৮ সালের অক্টোবরে পাকিস্তানকে ৬০০ কোটি ডলার মূল্যের অনুরূপ একটি প্যাকেজ দিয়েছিলো সউদী। এর আগে পাকিস্তান আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের কাছে বর্ধিত ঋণ সুবিধার জন্য গিয়েছিল।

পাকিস্তানের একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেছেন যে, সউদী সরকার সুদের হার ধার্য করবে যা আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে নেয়া ঋণের ব্যয়ের কাছাকাছি হবে। গতবার, সউদী আরব তার ৩০০ কোটি ডলার নগদ জমার উপর প্রায় ৩ দশমিক ২ শতাংশ হারে সুদ নিয়েছিল। সউদী আরব এমন সময়ে পাকিস্তানকে আর্থিক সহায়তা দিতে সম্মত হয়েছে যখন পিটিআই-এর নেতৃত্বাধীন জোট সরকার এবং আইএমএফ-এর মধ্যে আলোচনা বিলম্বের সম্মুখীন হচ্ছে, যার ফলে পরবর্তী ঋণের ১০০ ডলার ছাড় দেয়ার বিষয়টি আটকে গেছে।

সরকার আইএমএফ প্রোগ্রামের বিকল্প হিসাবে সউদী আরব থেকে তহবিলের ব্যবস্থা করেছে কিনা তা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত করা হয়নি। কারণ, এই পর্যায়ে বন্ধুত্বপূর্ণ দেশের কাছ থেকে নগদ সহায়তার প্রয়োজন ছিল না, কারণ বর্তমানে পাকিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ১ হাজার ৭৫০ কোটি ডলার। অর্থ উপদেষ্টা শওকত তারিন এবং জ্বালানি মন্ত্রী হাম্মাদ আজহার চুক্তির বিস্তারিত জানাতে একটি সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখবেন।

আইএমএফের আলোচনা ১৫ অক্টোবর শেষ হওয়ার কথা ছিল এবং বিলম্বের ফলে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে যাওয়ার পাশাপাশি রুপির মানও চাপের মধ্যে পড়ে গিয়েছে। মঙ্গলবার মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাকিস্তানের রুপি তার সর্বনিম্ন মূল্য ১৭৫ দশমিক ২৭-এ নেমে এসেছে। ১৫ অক্টোবর শেষ হওয়া সপ্তাহে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভও ১৭০ কোটি ডলার কমে ১ হাজার ৭৫০ কোটি ডলার হয়েছে।

‘এটি বিশ্বব্যাপী পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির ফলে আমাদের বাণিজ্য এবং বৈদেশিক মুদ্রার অ্যাকাউন্টের উপর চাপ কমাতে সাহায্য করবে,’ বলেছেন হাম্মাদ আজহার, ফেডারেল জ্বালানি মন্ত্রী। পাকিস্তান সউদী আরবকে দুই বছরের জন্য বিলম্বিত অর্থ প্রদানে তেল এবং তিন বছরের জন্য নগদ জমা দেয়ার জন্য অনুরোধ করেছিল। সউদী প্রেস এজেন্সিও একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলেছে যে, স্টেট ব্যাঙ্ক অফ পাকিস্তানে ৩০০ কোটি ডলার জমা দেয়ার উদার নির্দেশনা পাকিস্তান সরকারকে করোনা মহামারী থেকে বিপর্যয়ের মুখে তার বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভকে সমর্থন করতে সহায়তা করবে।

প্রসঙ্গত, ৬০০ কোটি ডলারের বেলআউট প্যাকেজ স্বাক্ষরের সময়, আইএমএফ পাকিস্তানকে শর্ত দিয়েছিল যে, তারা এই কর্মসূচির মেয়াদের তিন বছরে সউদী আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং চীন থেকে প্রাপ্ত ১ হাজার ৪০০ কোটি ডলার সহায়তা ফেরত দিতে পারবে না। তবে সউদী আরব তার অর্থ প্রত্যাহার করেছিল, যা পাকিস্তান চীন থেকে ঋণ নিয়ে ফেরত দিয়েছিল। সূত্র: ট্রিবিউন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ