Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

চুয়াডাঙ্গায় একটি বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ৬টি অবৈধ স্বর্ণের উদ্ধার; গৃহবধূ আটক

চুয়াডাঙ্গা জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৮ অক্টোবর, ২০২১, ১২:১৩ পিএম

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার হরিহরনগর গ্রামের জেলেপাড়ার একটি বাড়িতে বুধবার (২৭ অক্টোবর) দিনগত রাতে তল্লাশি চালিয়ে ৬টি অবৈধ স্বর্ণের উদ্ধারের পর গৃহবধূ চায়না খাতুনকে (৩৯) আটক করেছে পুলিশ। সে ওই এলাকার আব্দুল হান্নানের স্ত্রী। উদ্ধার করা স্বর্ণের বারের ওজন ৫৯ ভরি ১৪ আনা। যার বাজার মূল্য ৪০ লাখ টাকা।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল খালেক জানান, গোপনে খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল) মুন্না বিশ্বাসের নেতৃত্বে হরিহরনগর গ্রামের জেলেপাড়ার আব্দুল হান্নানের বাড়িতে তল্লাশী চালানো হয়। এসময় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট হুমায়ূন কবিরও উপস্থিত ছিলেন। এসময় গৃহবধূর দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাড়ির শোবার ঘরে টেলিভিশনের নিচ থেকে কসটেপ মোড়ানো অবৈধ ৬টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। সেগুলো পরীক্ষার পর জব্দ করা হয়। এ স্বর্ণের বৈধতা সম্পর্কে সঠিক কোন তথ্য জানাতে না পারার কারনে গৃহবধু চায়না খাতুনকে আটক করা হয়।

ওই গ্রামের বাসিন্দারা জানান, গৃহকর্তা আব্দুল হান্নান তার স্ত্রী ও তিন মেয়ে নিয়ে ওই বাড়িতে বসবাস করে। সে নিজের জমিতে চাষাবাদ করে সংসার চালাতো। কিভাবে তার বাড়ি অবৈধ স্বর্ণ রাখার কাজে ব্যবহার হয়ে আসছে তা তারা কখনো বুঝতেও পারেনি।
আব্দুল হান্নানের স্ত্রী আটক চায়না খাতুন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বলেন, তার স্বামী হান্নান স্বর্ণ পাচার ও চাষাবাদ করতো। কিন্তু সে উদ্ধার করা স্বর্ণের মালিক নই। টাকার বিনিময়ে সে পাচার কাজে জড়িয়ে গিয়েছিলো।

সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল) মুন্না বিশ্বাস জানান, আটক গৃহবধুকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে অবৈধ স্বর্ণ পাচারের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল খালেক আরো জানান, অবৈধ স্বর্ণ রাখা ও পাচারের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে জীবননগর থানায় আব্দুল হান্নান ও তার স্ত্রী আটক চায়না খাতুন এবং মেয়ে হাবিবার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলা নম্বর: ১০ তারিখ ২৭.১০.২০২১। বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) দুপুরের তাদের আদালতে সোপর্দ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আটক


আরও
আরও পড়ুন