Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

নীরব মিডিয়া, ভারতের ত্রিপুরার ১৬ মসজিদে ভাঙচুর, ৩টিতে আগুন, শ্লীলতাহানি

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৮:৪২ এএম | আপডেট : ৮:৪৬ এএম, ২৯ অক্টোবর, ২০২১

স্থানীয় পুলিশ বলছে কিছু হয়নি। আর সেখানকার মিডিয়া নীরব ভূমিকা পালন করছে। এই সুযোগে উগ্রবাদী হিন্দুরা একের পর এক মসজিদে হামলা ও আগুন ধরিয়ে দিচ্ছে। উচ্ছে করা হচ্ছে মুসলিমদের। তাদের বাড়ী-ঘরে আগুন জ্বালিয়ে দিচ্ছে। শত শত মুসলিম ঘরবাড়ী ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে।

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে নাকি ‘অল ইজ ওয়েল’। পুলিশ তেমনটাই বলছে। তাদের দাবি, তেমন কিছুই হয়নি। আইন-শৃঙ্খলা সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে। স্থানীয়দের অভিযোগ, মঙ্গলবার ভিইএইচপির তাণ্ডবের দিনেই মুসলিম নারীর শ্লীলতাহানি করা হয়েছে। থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মাকতুব মিডিয়ার খবর অনুযায়ী, পানিসাগরের রাওবাজার এলাকার মুসলিমদের বাড়ি ও দোকানে ভাঙচুর চালানো হয়েছিল। থানায় যে অভিযোগ দায়ের হয়েছিল তাতে অবশ্য নারীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ থাকলেও, তা বিস্তারিতভাবে বর্ণনা করা হয়নি।

মানবাধিকার সংগঠন এপিসিআর সরেজমিনে পরিস্থিতি দেখে বলেছে, হিন্দুত্ববাদীরা কমপক্ষে ২৭টি হামলা চালিয়েছিল। ভিএইচপির লোকেরা ১৬টি মসজিদে হামলা চালিয়েছিল। কয়েকটি মসজিদে জোর করে ভিএইচপির পতাকা পুঁতে দেয়া হয়েছিল। কমপক্ষে তিনটি মসজিদে আগুন ধরানো হয়েছিল। উনাকটি জেলার পালবাজার মসজিদ, গোমতী জেলার ডোগরা মসজিদ এবং বিশালগড় জেলার নারোলা টিলা মসজিদে আগুন লাগানো হয়।

বিশ্বহিন্দুপরিষদের দুষ্কৃতিকারীরা স্থানীয় রোয়া জামে মসজিদে হামলার ছক কষেছিল। পুলিশ বলছে কিছু হয়নি, তবে উত্তর ত্রিপুরার পানিসাগর থানায় জমা পড়েছে অভিযোগ। সাতজন পুরুষ ও তিন নারী অভিযোগ দায়ের করেন।

বাংলাদেশে পূজামণ্ডপে সহিংসতার পর থেকে বিজেপি শাসিত অসম ও ত্রিপুরায় গেরুয়া তাণ্ডবকারীরা সংখ্যালঘু মনে আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ। ত্রিপুরার এসআইও কর্মী সুলতান হুসেন টুইটারে ভিএইচপি কর্মীদের নির্লজ্জ কাণ্ড-কারখানা সামনে এনেছেন।

অন্য সমাজকর্মী নূর উল ইসলাম বলেন, পুলিশ কেন হিন্দুত্ববাদী দুষ্কৃতিকারীদের এমন মিছিলের অনুমতি দিয়েছিল? তার অভিযোগ গোটা ব্যাপারটা হয়েছে বিপ্লব দেব সরকারের যোগসাজসে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে করতে পারেনি। মুসলিমদের নিরাপত্তা দিতে তারা সম্পূর্ণ ব্যর্থ।


স্থানীয় মুসলিমদের অনেকের অভিযোগ, মুসলিমদের ওপর হামলার অভিযোগ দেখেও চুপ করে রয়েছে। সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা দেখেও একইভাবে চুপ করে রয়েছে মূলধারার মিডিয়া। এটা আসেল দ্বিচারিতা।

টুইটারে কেউ কেউ অবশ্য অগ্নিদগ্ধ মসজিদের ছবি ও মুসলিমদের বাড়ি ভাঙচুরের ছবি পোস্ট করেছে। হ্যাসট্যাগ সেভ ত্রিপুরা মুসলিম নাম চালানো হয়েছে ক্যাম্পেনও। সামনে ভোট, সে কারণেই এমন সহিংতা দেখেও চুপ করে রয়েছে সিপিএমের মতো তথাকথিত দলগুলোও। কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপিকে নিশানা করে বলেছে ত্রিপুরার আইন শৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে।

ত্রিপুরার রাজপরিবারের অন্যতম সদস্য প্রদ্যোত মাণিক্য বলেছেন, এটি আমার রাজনৈতিক জীবনের একটি লজ্জাজনক অধ্যায়।
সূত্র : পুবের কলম



 

Show all comments
  • Sohel Miah ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৮:৫৯ এএম says : 1
    হে আল্লাহ আপনি সহায় হন
    Total Reply(0) Reply
  • MD Jahid Hasan ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০০ এএম says : 1
    আল্লাহর গযব তোদের জন্য অনিবাজ্য
    Total Reply(0) Reply
  • MD Raj Islam ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০০ এএম says : 1
    বাংলাদেশ ও ভারত এ ধর্ম নিয়ে ডাঙ্গা, আর ডাঙ্গা কে কেন্দ করে, সারা বিশ্ব কে হুঁশিয়ারি করে বলতে চায় সাবধান হন, কারোর ধর্ম নিয়ে রাজনৈতিক করার দু'শ সাহস দেখাবেন না, কারোর ধর্ম অনুভূতির উপরে আঘাত করবে না, ধর্ম নিয়ে রাজনৈতিক, ধর্ম অনুভূতির উপরে আঘাত আর সরকার এর নিরব ভূমিকা, সরকার এর বেথ্যতা, দেশ কে, দেশের জনগণ কে, সারা বিশ্ব কে ধর্ম যুদ্ধের দিকে ঠেলে দিবে , মনে রাখবেন, ছোট ছোট বিশ ফ্রক থেকে, বড় বিশফ্রক সৃষ্টি হয়, একবার জদি ধর্ম যুদ্ধ শুরু হয়, তহলে এ জে রাজা বাশসার রাজপাসাত দেখছেন না, উঁচু উঁচু অট্যলিকা দেখছেন না, এগুলি মাটির সাথে মিসে জাবে ১০০/ গেরান্টি।
    Total Reply(0) Reply
  • হুসাইন আহমেদ হেলাল ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০১ এএম says : 1
    ও মানুষ কখনো মানুষ হবে না
    Total Reply(0) Reply
  • Shafiqul Islam Nirob ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০১ এএম says : 1
    কি যে অবস্থা ভারতের হিন্দু সম্প্রদায়ের, আমাদের বাংলাদেশের মুসলিমরা সামান্য কিছু করলেই গর্জে উঠে,কিন্তু এত জগন্য কাজ করল বাংলাদেশের কোন মন্ত্রী কথা বলল না, আল্লাহ মুসলিমদের কে রক্ষা কর।
    Total Reply(0) Reply
  • Rony Saha ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ১১:২৬ এএম says : 0
    এটা অন্যায়। এটা হতে পারে না, হতে দেয়া উচিত নয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Mulla Tashfin ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ১১:৩১ এএম says : 1
    বাংলাদেশ নিয়ে ভারতের মিডিয়ায় হইচই শুরু হয়েছিল তিলকে তাল বানিয়ে প্রচার করছিল, এখন তারা ত্রিপুরার মুসলিম নির্যাতন নিয়ে পুরোপুরি চুপ।
    Total Reply(0) Reply
  • عمر فاروق ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ১১:৪৫ এএম says : 1
    দালাল মিডিয়াগুলো এখন চুপ কেন ?
    Total Reply(0) Reply
  • Arfan Shah ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ১২:২০ পিএম says : 1
    বাংলাদেশের সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে মাতামাতি! অন্যদিকে ভারতের সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে নীরবতারনীতি! এ কেমন রাজনীতি? এ কেমন মানবিকতা, সাংবাদিকতা, দায়িত্বশীলতা ও ধর্মনিরপেক্ষতা?
    Total Reply(0) Reply
  • habib ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ১২:৪৬ পিএম says : 1
    I hate OIC Muslim leaders who are in the chair. because they fail to protect Muslim in the world.
    Total Reply(0) Reply
  • ohidullah zehari ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৮:২৪ পিএম says : 1
    এখন ভারতীয় মিডিয়া চুপ কেন বাংলাদেশে কিছু হলেতো ডাল তলোার নিয়ে নেমে পরে নির্লজ্জ বেয়াদব ভারতীয় মিডিয়া
    Total Reply(0) Reply
  • ohidullah zehari ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৮:২৫ পিএম says : 1
    এখন ভারতীয় মিডিয়া চুপ কেন বাংলাদেশে কিছু হলেতো ডাল তলোার নিয়ে নেমে পরে নির্লজ্জ বেয়াদব ভারতীয় মিডিয়া
    Total Reply(0) Reply
  • আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ৯:১৪ পিএম says : 1
    এখন কোথায় আমাদের দেশের সাম্প্রদায়িক অ সহিষ্ণুতায় উস্কানি দাতা দালাল মিডিয়াগুলো? কোথায় সনাতনীদের পদ লেহনকারী ইবলিশের অনুচর তথাকথিত সুশীল, প্রগতিবাদী ও নাস্তিক গোষ্ঠী? এদের চোখে কি ছানি পড়েছে? কেন এরা ভারতের আসাম ও ত্রিপুরায় মুসলিমদের উপর নিষ্ঠুর অত্যাচার, ঘরবাড়ি, দোকান-পাট ও মসজিদগুলোতে অগ্নি সংযোগ ও লুণ্ঠনের ব্যাপারে মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছে? অথচ এ খবিসগুলো বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক হাঙ্গামা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে সরকারী নানা পদক্ষেপ স্বত্বেও রাতদিন হিন্দু তোষণে ব্যস্ত থাকে আর সোশ্যাল মিডিয়া ও টিভি চ্যানেলে বসে চেঁচামেচি করে।
    Total Reply(1) Reply
    • ৩১ অক্টোবর, ২০২১, ১:২৬ পিএম says : 0
  • RUZIAN AHMED ২৯ অক্টোবর, ২০২১, ১১:২৫ পিএম says : 1
    Mohan Allah Tumi Shahajjo koro ...... R korkosh Hindi Ugro Hindu adear k tumi Dongsho koro
    Total Reply(0) Reply
  • Eng Aziz Hassan ৩০ অক্টোবর, ২০২১, ১১:৩৫ এএম says : 1
    বাংলাদেশ নিয়ে ভারতের মিডিয়ায় হইচই শুরু হয়েছিল তিলকে তাল বানিয়ে প্রচার করছিল, এখন তারা ত্রিপুরার মুসলিম নির্যাতন নিয়ে পুরোপুরি চুপ।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Helal Karim ১ নভেম্বর, ২০২১, ১২:৪৪ পিএম says : 1
    আর আমাদের দেশে সামন্য কয়েকটা মন্দিরে হামলার ঘটনায় কী চিৎকার, হৈ চৈ, প্রশসানের দৌড় ঝাপ, সরকারের ক্ষতিপূরণ, সাংবাদিকদের প্রতিবেদন, প্রতিবাদ, সুশীল সমাজের প্রতিবাদ এবং ভারতের রাষ্ট্রদূতও ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন,কয়েক হাজার লোকদের গ্রেফতার করা হয়েছে এবং হাজার হাজার মানুষের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে কিন্তু ভারতে এত বড় ঘটনার পরেও আমাদের সরকার কিন্তু মিডিয়াগুলোর কোন প্রতিবাদ নাই, নাই সুশীল নামক কুশীল লোকদের প্রতিবাদ! এটা কোন ধরনের নীতি। দোষ মুসলমানদের বেলায়।
    Total Reply(0) Reply
  • jack ali ২ নভেম্বর, ২০২১, ১:৩০ পিএম says : 1
    আমাদের দেশ চলে কাফেরের আইন দিয়ে কাফেররা একে অপরের ভাই তারা তো কখনো মুসলিমদেরকে সাহায্য করবে না মুসলিমদেরকে মারা হলে মুসলিমদেরকে ধর্ষণ করা হলে মুসলিমদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়া হলে মুসলিমদের মসজিদগুলো পুড়িয়ে দেওয়া হলে তারা আনন্দে হাততালি দেয়
    Total Reply(0) Reply
  • Abdullah Mammun ৩ নভেম্বর, ২০২১, ৮:২৮ এএম says : 1
    অশনি সংকেত।
    Total Reply(0) Reply
  • এ, কে, এম জামসেদ ৪ নভেম্বর, ২০২১, ৬:৩৪ পিএম says : 0
    ভারতের সর্বত্র মসজিদে হামলা হচ্ছে, আগুন লাগাচ্ছে। পুলিশ দাঁড়িয়ে দেখছে, কোন বাধা দিচ্ছে না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ