Inqilab Logo

শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সউদীর সাথে উত্তম সম্পর্ক চায় লেবানন : আউন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৪ এএম

সউদী আরবের সাথে ‘উত্তম বা সেরা সম্পর্ক’ প্রত্যাশা করেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন। ইয়েমেন যুদ্ধ নিয়ে তার তথ্যমন্ত্রী জর্জ কোরদাহির সমালোচনার মূল্য দিচ্ছে এখন দেশটি। এরই মধ্যে লেবানন থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে সউদী আরব। লেবাননের রাষ্ট্রদূতকে তারা বহিষ্কার করেছে। একই সাথে লেবানন থেকে যেকোনো পণ্য আমদানি নিষিদ্ধ করেছে। অন্যদিকে শনিবার লেবানন থেকে ক‚টনীতিকদের প্রত্যাহার করে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। নাগরিকদেরকে লেবানন সফরে যেতে বারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া অন্য কিছু উপসাগরীয় দেশ একই রকম ব্যবস্থা নিয়েছে। ফলে মারাত্মক এক ক‚টনৈতিক সঙ্কটে ভুগছে লেবানন। এ অবস্থায় সউদী আরব ও অন্যদের সাথে ক‚টনৈতিক সম্পর্ক নতুন করে স্থাপনের আশা প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল-জাজিরা। প্রেসিডেন্ট আউন এক টুইটে বলেছেন, সউদী আরব ও উপসাগরীয় অন্য দেশগুলোর সাথে সুসম্পর্ক প্রত্যাশা করে লেবানন। শনিবার টুইটে তিনি বলেছেন, সউদী আরবের সাথে আমরা উত্তম বা সেরা সম্পর্ক স্থাপনে উদগ্রীব হয়ে আছি। এই সম্পর্ককে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে আরো শক্তিশালী করতে চাই। এর আগে উদ্ভ‚ত সঙ্কট নিয়ে মন্ত্রীপরিষদের ব্যবস্থাপনা গ্রæপের সাথে প্রায় তিন ঘন্টা মিটিং করেন প্রেসিডেন্ট। এতে শিক্ষামন্ত্রী আব্বাস হালাবি বলেন, ক‚টনৈতিক এই বিরোধ থেকে পিছিয়ে আসার সক্ষমতা রাখে না সরকার। তিনি বলেন, অন্য চাপের মুখে সরকারবিহীন থাকতে পারে না দেশ। তাই এই সমস্যার সমাধান অব্যাহতভাবে করে যাওয়া উচিত। উল্লেখ্য, লেবাননের তথ্যমন্ত্রী জর্জ কোরদাহির একটি টেলিভিশন সাক্ষাতকারকে কেন্দ্র করে এই উত্তেজনার সৃষ্টি। ওই সাক্ষাতকারে ইয়েমেন যুদ্ধে সউদী আরবের সামরিক হস্তক্ষেপের সমালোচনা করেন তিনি। বলেন, বাইরের আগ্রাসন থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখছে ইরানপন্থি হুতিরা। তা ছাড়া ইয়েমেন যুদ্ধে সউদী আরবের প্রচেষ্টা নিষ্ফল হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। দাবি জানান, ওই যুদ্ধ বন্ধের। তবে তিনি দাবি করেছেন মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার কমপক্ষে এক মাস আগে ওই সাক্ষাতকার দিয়েছিলেন। ফলে ওই মন্তব্য একান্তই তার ব্যক্তিগত। এটা সরকারের বক্তব্য নয়। এ কারণে তিনি ক্ষমা চাইতে বা সরকার থেকে পদত্যাগ করার দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন। আল-জাজিরা বলছে, তার প্রতি সমর্থন আছে ইরান সমর্থিত যোদ্ধাগোষ্ঠী হিজবুল্লাহর। ২০১৭ সালে সউদী আরবের রাজধানী রিয়াদে আটক রাখা হয়েছিল লেবাননের সাবেক প্রধানমন্ত্রী সাদ আল হারিরিকে। তা নিয়ে তখন দুই দেশের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা দেখা দেয়। তারপর এই প্রথম সউদী আরব ও লেবাননের মধ্যে ক‚টনৈতিক সম্পর্কে সবচেয়ে খারাপ আঘাত। শুক্রবার লেবাননের রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করেছে সউদী আরব। একই সাথে লেবানন থেকে যেকোন পণ্য আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একই পথ অনুসরণ করছে বাহরাইন ও কুয়েত। তারা লেবাননের ক‚টনীতিককে দেশ ছেড়ে যেতে ৪৮ ঘন্টার সময় বেঁধে দেয়। আল-জাজিরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী আরব

২ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ