Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

৩২ বছর পর একসঙ্গে চলচ্চিত্রে আসাদ-সুবর্ণা

প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিনোদন ডেস্ক : নাট্যদল ‘ঢাকা থিয়েটার’ থেকেই তাদের বন্ধুত্ব। সেই হিসেবে রাইসুল ইসলাম আসাদ এবং সুবর্ণা মুস্তাফার মধ্যে বন্ধুত্ব পেরিয়ে গেছে চার দশকেরও বেশি। একই দলের হয়ে তারা দু’জন যেমন মঞ্চ মাতিয়েছেন ঠিক তেমনি টিভি নাটকেও তারা দু’জন একসঙ্গে অনেক নাটকে অভিনয় করেছেন। পাশাপাশি তারা দু’জন জুটিবদ্ধ হয়ে চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। ১৯৮০ সালে আসাদ এবং সুবর্ণা মুস্তাফা প্রথম জুটিবদ্ধ হয়ে সৈয়দ সালাহ উদ্দীন জাকী পরিচালিত ‘ঘুড্ডি’ চলচ্চিত্রে প্রথম অভিনয় করেন। এরপর তারা দু’জন একসঙ্গে অভিনয় করেন সৈয়দ হাসান ইমামের ‘লালসবুজের পালা’, কাজী জহিরের ‘নতুন বউ’ এবং ১৯৮৪ সালে কাজল আরেফিনের ‘সুরুজ মিঞা’ ও বেলাল আহমেদ’র ‘নয়নের আলো’ চলচ্চিত্রে। এরপর তাদের দু’জনকে আর একসঙ্গে চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়নি। দীর্ঘ ৩২ বছর অর্থাৎ তিন দশকেরও বেশি সময় পর রাইসুল ইসলাম আসাদ এবং সুবর্ণা মুস্তাফা আবারো একই চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে যাচ্ছেন। বদরুল আনাম সৌদ’র কাহিনী, সংলাপ, চিত্রনাট্য ও নির্দেশনায় ‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রে তারা দু’জন একসঙ্গে অভিনয় করবেন। বিষয়টি নিয়ে আসাদ এবং সুবর্ণা দু’জনই বেশ উচ্ছ¡সিত। চলচ্চিত্রের কাহিনী’র দুই পরিবারের প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করবেন আসাদ এবং সুবর্ণা। আসাদ অভিনয় করবেন লতিফ চরিত্রে এবং সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনয় করবেন আসমা চরিত্রে। বহুবছর পর প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে বহুবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভ‚ষিত রাইসুল ইসলাম আসাদ বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের তিন/চার বছর পর থেকেই আমাদের একসঙ্গে পথচলা। মনে হয় যেন সেই ছোটবেলা থেকেই আমরা একসঙ্গে কাজ করছি। তাই সবসময়ই মনে হয় আমি আর সুবর্ণা একই পরিবারের। দীর্ঘসময় ধরে একসঙ্গে কাজ করতে করতে আমাদের মধ্যে সম্পর্কটা যেমন দৃঢ় ঠিক তেমনি আমাদের মধ্যে কাজের বোঝাপড়াটাও বেশ ভালো। কখনো ভেবে দেখিনি যে এতবছর আমরা চলচ্চিত্রে কাজ করিনি। আশা করছি সৌদ’র চলচ্চিত্র বেশ ভালো কিছুই হবে।’ সুবর্ণা মুস্তাফা বলেন, ‘আমি আর আসাদ টিভিতে কিন্তু অনেক নাটক-টেলিফিল্মে কাজ করেছি। কখনো আসাদ আমার স্বামী, কখনো ভাই, আবার কখনো আমার চরিত্রে অভিনয় করেছে। সত্যি বলতে কী আমাদের মধ্যে এত চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক যে সবসময়ই আমাদের একসঙ্গে কাজ করাটা অনেক আনন্দের হয়, হয় অনেক ভালোলাগার। আমি খুব আশা করছি যে আমাদের দীর্ঘদিনের বিরতির পর নতুন চলচ্চিত্রটি অনেক ভালো কিছুই হবে।’ আসছে ডিসেম্বরে ‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হবে। এদিকে আসাদ বর্তমানে বরিশাল ভোলা’তে আছেন। সেখানে তিনি নাদের চৌধুরীর ‘মেয়েটি এখন কোথায় যাবে’র শুটিং করছেন। অন্যদিকে সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনীত ধারাবাহিক সৌদ পরিচালিত ‘অন্তর্যাত্রা’ একুশে টিভিতে প্রতি সোম, মঙ্গল, বুধবার রাত ৮.৩০ মিনিটে প্রচার হচ্ছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।