Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

নিজেকে চাপমুক্ত রাখুন

| প্রকাশের সময় : ৫ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৯ এএম

আপনার ওপর কাজের চাপ কি খুব বেশি? সত্যি বলতে কী, প্রতিদিন আমরা বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হই। কিন্তু সময়ে সময়ে নিজের সঙ্গে মজা করে থাকা উচিত। নিজেকে বলুন, মানুষের উচিত জীবনের কষ্টকর অনুভূতিগুলোকে যথাসম্ভব দূরে সরিয়ে রাখার চেষ্টা করা। আর সেটার জন্য প্রয়োজন সবধরনের চাপ থেকে নিজেকে মুক্ত রাখার চেষ্টা করা। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিদিন অফিসে একই ধরনের খাবার খান? নিশ্চিত থাকুন, আপনার ওপর চাপ সৃষ্টি হচ্ছে। হংকঙের মনস্তত্ত্ববিদরা বলেন, অফিসে টানা তিনদিন একই ধরনের খাবার খেলে শরীরে চাপজনিত হরমোন বেশি সৃষ্টি হয়। কারণ, স্বাভাবিকভাবেই প্রতিদিন একই ধরনের খাবার খেতে আপনার ভাল লাগবে না এবং কাজ করতেও আপনি বিরক্তিবোধ করবেন। তাই প্রতিদিন দুপুরের খাবারে ভিন্ন ভিন্ন আইটেম রাখুন। প্রতিদিন একই ধরনের খাবার না খাওয়ার চেষ্টা করুন।

প্রতিদিন শরীরচর্চার ক্ষেত্রে আপনার আঙুল দিয়ে বাম নাসারন্ধ্র বন্ধ করুন এবং ডান নাসারন্ধ্র দিয়ে শ্বাস নিন। এবার ডান নাসারন্ধ¦্র বন্ধ করে বাম নাসারন্ধ্র নিয়ে দিয়ে নিঃশ্বাস ছাড়ুন। এভাবে দু’মিনিট চর্চা করুন। এতে আপনার মন ও শরীরের ওপর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে, আপনি ভাল বোধ করবেন। এখন থেকে কফি পান করার সময় অবশ্যই এক টুকরো দারুচিনি মিশিয়ে নেবেন। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেন, দারুচিনির মধ্যে বিশেষ উপাদান রয়েছে, যা মানুষকে দুশ্চিন্তামুক্ত রাখতে সাহায্য করে। গরম চকলেট, আপেল রস বা দুধচায়ের সঙ্গেও দারুচিনি মিশিয়ে খেতে পারেন। প্রতিমাসে ক্রেডিটকার্ডের বিল পুরোপুরি পরিশোধ করুন। বিল পরিশোধ না করার অর্থ ব্যাংকে সুদ দেওয়া। এতে আপনার ওপর আর্থিক চাপ পড়বে আর্থিক চাপ থেকে আসবে মানসিক চাপ।

মহিলাদের জন্য কালো চা শরৎ ও শীতকালে গা-গরম করার সবচেয়ে ভালো উপাদান। ব্রিটেনের মনস্তÍত্ত্ববিদরা বলেন, গরম কালো চা খেলে মহিলাদের শরীরে চাপ সৃষ্টিকারী হরমোনের নিঃসরণের ৫৪ শতাংশ কমে যায়। অফিস ছুটি শেষে বাড়ি ফিরে আপনি নিয়ম করে টেলিভিশন দেখেন কি? ভালো অভ্যাস নয়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, টেলিভিশন দেখা, বিশেষ করে মানসিক জটিলতা সংশ্লিষ্ট সিরিয়াল দেখলে শরীরে চাপ সৃষ্টিকারী হরমোন নিঃসরণের হার বৃদ্ধি পায়। বই পড়া ও গান শোনা চাপ কমানো ভাল পদ্ধতি। ব্রিটেনের সর্বশেষ একটি রিপোর্ট থেকে জানা গেছে, বই পড়লে মহিলাদের শরীরে চাপ হরমোনের পরিমাণ ৬৮ শতাংশ কমবে আর গান শুনলে আনন্দ হরমোনের পরিমাণ ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে।

আপনি কি খুব দ্রুত কথা বলেন? মনোবিদরা মনে করেন যারা খুব দ্রুত কথা বলেন, তারা অন্যের মনের ওপর চাপ সৃষ্টিকারী পাশাপাশি অজ্ঞাতে নিজের শরীর ও মনের ওপরও চাপ সৃষ্টি করেন। অষ্ট্রেলিয়ার মনোবিদরা বলেন, যারা ৭.১৫-এর পরও কাজ করতে থাকেন, তাদের শরীরে চাপ হরমোনের পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে। সন্ধ্যা ৮টার পর নিজের শরীর ও মনকে আরাম দিন এবং বাকি কাজ পরের দিনের জন্য রেখে দিন। এভাবে আপনার ওপর চাপ কমে যাবে এবং রাতে নিজের হাতে খাবার তৈরি করুন। নিজের হাতে তৈরি খাবার স্বাস্থ্যকর। পাশাপাশি এই কাজের প্রক্রিয়ায় আপনার মনের ওপর চাপও কমবে। হার্ভার্ড মেডিক্যাল কলেজের সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী, রুটি বানানোর জন্য বারবার আটা মিশ্রণ করলে আপনার শরীরে চাপ হরমোনের পরিমাণ ব্যাপক হ্রাস পাবে।

আলিঙ্গন করা ইউরোপ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেসহ বিভিন্ন পশ্চিমা দেশের স্বাভাবিক রীতি। কিন্তু বাংলাদেশে এটা তেমন প্রচলিত হয়। অথচ সর্বশেষ একটি গবেষণা থেকে জানা গেছে, পরিবারের সদস্য, বন্ধু বা প্রেমিক কিংবা প্রেমিকাকে মাত্র ২০ সেকেন্ড জড়িয়ে ধরে রাখলে মহিলাদের শরীর ও মনের ৭৮ শতাংশ চাপ কমে যায়। আতএব আলিঙ্গনের মাধ্যমে ভালবাসা প্রকাশ করুন।

আফতাব চৌধুরী
সাংবাদিক-কলামিস্ট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিজেকে চাপমুক্ত রাখুন

আরও পড়ুন