Inqilab Logo

সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৩ মাঘ ১৪২৮, ১৩ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

তুরস্ক-পাকিস্তান বানাচ্ছে অত্যাধুনিক যুদ্ধজাহাজ

‘সহযোগিতার নতুন পথ খোলার’যৌথ উদ্যোগ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০১ এএম

পাকিস্তান নৌবাহিনীর জন্য তুরস্ক ও পাকিস্তানের যৌথ উদ্যোগে মিলগেম এডিএ ক্লাস কর্ভেট-এর নির্মাণ শুরুর জন্য একটি কিল-লেয়িং অনুষ্ঠান শুক্রবার করাচিতে অনুষ্ঠিত হয়।

একটি আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, করাচির পাকিস্তান নৌবাহিনীর বিশেষায়িত জাহাজ নির্মাণ বিভাগ শিপইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস (কেএসইডব্লিউ)-এর অনুষ্ঠানে নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাড. আমজাদ খান নিয়াজি, নৌবাহিনীর কর্মকর্তারা এবং তুরস্কের রাষ্ট্রীয় প্রতিরক্ষা সংস্থা এএসএএফটি’র প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্যে নিয়াজি বলেন, তুরস্কের সহায়তায় দেশীয় আধুনিক যুদ্ধজাহাজ উৎপাদন পাকিস্তানের জন্য একটি গর্বের মুহূর্ত। তিনি বলেন, যৌথ উদ্যোগটি প্রতিরক্ষা উৎপাদনের ক্ষেত্রে আঙ্কারা ও ইসলামাবাদের মধ্যে সহযোগিতার নতুন পথ খুলে দেবে।

বিবৃতিতে যোগ করা হয়েছে, মিলগেম-শ্রেণির জাহাজের অন্তর্ভুক্তি পাকিস্তান নৌবাহিনীর অপারেশনাল সক্ষমতাকে উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করবে।

বিবৃতিতে যোগ করা হয়েছে, জাহাজগুলো আধুনিক নৌ-জাহাজ শ্রেণীর মান অনুযায়ী তৈরি করা হচ্ছে এবং সারফেস-টু-ফেস, সারফেস-টু-এয়ার মিসাইল এবং অ্যান্টি-সাবমেরিন অস্ত্রসহ অত্যাধুনিক অস্ত্র ও সেন্সর দিয়ে সজ্জিত করা হবে।

২০১৮ সালের জুলাইয়ে পাকিস্তান নৌবাহিনী এএসএএফটি’র সাথে চারটি মিলগেম-শ্রেণীর জাহাজ অধিগ্রহণের জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী, দুটি করভেট তুরস্কে এবং পরবর্তী দুটি পাকিস্তানে নির্মিত হবে, যাতে প্রযুক্তি স্থানান্তরও জড়িত।

মিলগেম জাহাজগুলো ৯৯ মিটার (৩২৫ ফুট) লম্বা যার স্থানচ্যুতি ক্ষমতা ২৪ হাজার টন এবং ২৯ নটিক্যাল মাইল গতিতে চলতে পারে। অ্যান্টি-সাবমেরিন কমব্যাট ফ্রিগেট রাডার থেকে লুকিয়ে রাখা যায়।

২০১৯ সালের অক্টোবরে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান পাকিস্তান নৌবাহিনীর তৎকালীন প্রধান অ্যাড. জাফর মাহমুদ আব্বাসির সাথে ইস্তাম্বুলে একটি অনুষ্ঠানের সময় প্রথম মিলগেম এডিএ ক্লাস কর্ভেটের ধাতব প্লেট কেটেছিলেন। তুরস্ক বিশ্বের ১০টি দেশের মধ্যে একটি যারা তার জাতীয় ক্ষমতা ব্যবহার করে যুদ্ধজাহাজ তৈরি, ডিজাইন এবং রক্ষণাবেক্ষণ করতে পারে। সূত্র : আনাদোলু ও এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।



 

Show all comments
  • Shuaib Ahmed ৭ নভেম্বর, ২০২১, ৪:০৯ এএম says : 0
    সফলতা কামনা করছি!
    Total Reply(0) Reply
  • Ahmed Juran Munir ৭ নভেম্বর, ২০২১, ৪:১১ এএম says : 0
    Amader kayekta Gift korlay valo hoyto..
    Total Reply(0) Reply
  • Ratan Rayhan ৭ নভেম্বর, ২০২১, ৪:১১ এএম says : 0
    উচ্চ প্রযুক্তির অস্ত্র উৎপাদনে তুরস্ক চাহিদার শীর্ষে।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rony Raihan ৭ নভেম্বর, ২০২১, ৪:১১ এএম says : 0
    তুরস্ক যে মুসলমান দেশের বন্ধু।তারি বহিপ্রাকাস এটা আলহামদুলিল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • রফিক কবির ৭ নভেম্বর, ২০২১, ৪:১১ এএম says : 0
    এভাবে পরস্পরে হাতধরে সামনে এগিয়ে যাক।কাশ্মীরের বঞ্চিত মানবতা ও মজলুম ফিলিস্তিনিদের দু:খের অবসান ঘটুক।
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ৭ নভেম্বর, ২০২১, ২:০০ এএম says : 0
    তুরস্ক পাকিস্তান বানাইতেছে,অত্যাধুনিক অস্ত্র বিমান যুদ্ধ বিমান,বাংলাদেশের সরকার আছে শুধু,ক্ষমতায় জোর করে থেকে ,জনগণের ইচ্ছার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া,এই ছাড়া আর কিছু যে দেশের সারতের জন্য করবেন ,সেই চিন্তা নেই ,শুধু আছে কি ভাবে একটি নির্বাচন করে ক্ষমতায় থাকা যায়,আর জনগণ কে ঘুম খুন হত্যা ধর্ষণ করা যায়,এবং বড় বড় আলেম ওলামাদের ফাঁসি কি তরিকায় দেওয়া সম্ভব এই চিন্তা নিয়েই বাংলাদেশের সংসদীয় আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতির চিন্তা ভাবনা,1990তে এই দলীয় আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতি করেছে ,শুধু মাত্র জনগণ কে অধিকার থেকে বঞ্চিত করে ,দলীয় ভাবে সব কিছু লুট পাঠ করে খাওয়ার জন্য,আজ যদি রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি থাকতো আমরাও তুরস্ক পাকিস্তানের মতো হতাম,দুর্ভাগ্য আমাদের জনগণ এই পলিসি এবং পলিটিক্স না বুজে আজ দেশকে কার হাতে দিলেন,জনগণ কিছু বলতে পারে না,সব কিছু দলীয়,যদি 72এর সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি পদ্ধতি না করা হয়,এই দেশ জালেম সংসদীয় আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতির এম পি মন্ত্রীদের মধ্যে চলে যাবে,গরিব আরো গরিব হবে,বিচার তো নেই ,সামনে ছেলে মেয়েদের ভবিষ্যত্ অন্ধকার।
    Total Reply(0) Reply
  • Mominul Hoque ৭ নভেম্বর, ২০২১, ১০:০৪ এএম says : 0
    আমরা যাদের বন্ধু ভাবি তারা আমাদের পায়ে ধরে নিচের দিকে টেনে নামানোর চেষ্টায় আছে। কিন্তু আজো আমরা আমাদের প্রকৃত বন্ধুকে খুঁজে নিতে পারে নাই। দীর্ঘ একযুগের বেশী একক ক্ষমতায় আওতায় থেকেও আমরা আমাদের কাঙ্খত সফলতার পরিবর্তে পেয়েছি- রাজনৈতিক দূর্বিত্তায়ন, হত্যা, গুম, খুন, চাঁদাবাজী আর দখলবাজ। তুরস্ক পাকিস্তানের সাথে সম্পর্ক জোরদার করে আমাদের এগিয়ে যাওয়ার পথ তরান্বিত করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তুরস্ক-পাকিস্তান

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ