Inqilab Logo

রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

অন্তর্বর্তী সময়ের পর সরকারে না থাকার অঙ্গীকার বুরহানের

বিক্ষোভকারী ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ সুদানে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

সুদানের সামরিক বাহিনীর প্রধান জেনারেল আবদুল ফাত্তাহ আল-বুরহান জানিয়েছেন, অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের পর তিনি কোনো সরকারে থাকবেন না। রোববার কাতারভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার সাথে এক সাক্ষাতকারে এই অঙ্গীকার করেন তিনি। জেনারেল আল-বুরহান বলেন, আমরা নিজেদের, সুদানি জনগণের ও আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়ের কাছে গণতান্ত্রিক পরিবর্তনের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা, যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠান এবং শান্তিপূর্ণ, সাংবিধানিক আদেশের অধীন ও স্থগিত না হওয়া সংবিধানের অংশের অনুসারে কোনো রাজনৈতিক কর্মকান্ডে বাধা না দেয়ার অঙ্গীকার করছি। তিনি বলেন, আমরা অঙ্গীকার করছি জাতীয় স্বীকৃতিপ্রাপ্ত বেসামরিক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করার এবং প্রতিজ্ঞা করছি ক্ষমতার হস্তান্তরে বাধা দানকারী যেকোনো হস্তক্ষেপ প্রতিরোধ করার। সুদানে সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে চলমান বিক্ষোভে হতাহতের জন্য সামরিক বাহিনীর দায় অস্বীকার করেন জেনারেল বুরহান। তিনি বলেন, সুদানের সামরিক বাহিনী কোনো নাগরিককে হত্যা করেনি এবং ঘটনার বিষয়ে তদন্ত কমিটি অনুসন্ধান চালাচ্ছে যে প্রকৃতপক্ষে কী হয়েছিলো। গত ২৫ অক্টোবর সুদানে সামরিক অভ্যুত্থানের পর দেশজুরে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভে সামরিক বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে এই পর্যন্ত ১৪ বিক্ষোভকারী নিহত ও তিন শ›র বেশি লোক আহত হয়েছেন সেন্ট্রাল কমিটি অব সুদানিজ ডক্টরস জানায়। এদিকে সুদানে সামরিক অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে রোববার থেকে দুই দিনের ধর্মঘট শুরু হয়েছে। সাবেক একনায়ক ওমর আল-বশিরের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়া সুদানি পেশাজীবি সংগঠন সুদানিজ প্রফেশনালস অ্যাসোসিয়েশনস এই ধর্মঘটের ডাক দেয়। ধর্মঘটে বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভে অংশ নিয়েছেন হাজার হাজার লোক। বিক্ষোভ দমনে সামরিক ও নিরাপত্তা বাহিনী গ্রেফতারি অভিযান চালাচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করা হয়েছে। সুদানের সামরিক ও বেসামরিক নেতৃত্বের অংশীদারমূলক সরকার সভরেইন কাউন্সিলের উভয়পক্ষের মতবিরোধের জেরে প্রধানমন্ত্রী আবদুল্লাহ হামদুকসহ বিপুল বেসামরিক নেতৃত্বকে ২৫ অক্টোবর সামরিক বাহিনী গ্রেফতার করে এবং সামরিক প্রধান জেনারেল আবদুল ফাত্তাহ আল-বুরহান ক্ষমতা দখল করেন। সামরিক বাহিনীর এই পদক্ষেপকে ‹অভ্যুত্থান› হিসেবে উল্লেখ করে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সুদানজুড়ে বিক্ষোভ শুরু হয়। তবে জেনারেল বুরহান তার এই পদক্ষেপকে অভ্যুত্থানের বদলে ‹গণতান্ত্রিক উত্তরণকে শোধরানোর› পদক্ষেপ হিসেবে উল্লেখ করছেন। আল-জাজিরা।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সুদান


আরও
আরও পড়ুন