Inqilab Logo

বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করায় বাদীকে ৫ বছরের কারাদণ্ড

বরগুনা জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

ধর্ষণের অভিযোগে মামলা মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় মামলার বাদী আসমা বেগমকে ৫ বছরের কারাদণ্ডাদেশ ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান। গতকাল সোমবার আসমা বেগমের উপস্থিতিতে আদালত এ রায় দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীসহ উপস্থিত আইনজীবী ও বিচার প্রার্থীরা সন্তোষ প্রকাশ করেন।

নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এ রায় একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। মিথ্যা ও বানোয়াট নারী নির্যাতন-ধর্ষণ মামলা যারা করেন তাদের জন্য এটি সতর্কীকরণ। এ ধরনের মামলায় সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আসামিপক্ষের আইনজীবী জিয়া উদ্দীন বলেন, আশা করি মিথ্যা মামলা দেয়ার প্রবণতা কমে আসবে।
মামলার বিবরণে জানা যায়, তালতলী উপজেলার ঝাড়াখালী গ্রামের আব্দুস ছত্তার খানের ছেলে স্বপনের বিরুদ্বে প্রতিবেশী কালাম খানের স্ত্রী আসমা বেগম ধর্ষণের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ২০১৬ সালের ১৫ মে একটি মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলা তদন্তের জন্য তালতলী থানাকে নির্দেশ দেন। তালতলী থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা সরেজমিনে তদন্ত শেষে অভিযোগ অসত্য-ভিত্তিহীন উল্লেখ করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেন।
এই প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে বাদী আসমা বেগম নারাজি আবেদন করলে আদালত তা অগ্রাহ্য করেন। ২০১৭ সালের ২ জানুয়ারি স্বপন খান ধর্ষণ মামলার বাদী আসমা বেগমের বিরুদ্ধে একই আদালতে মিথ্যা ধর্ষণ মামলা করে সম্মানহানী, হয়রানি করার অভিযোগ মামলা দায়ের করেন। আদালত স্বাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আসমা বেগমের বিরুদ্ধে এ রায় প্রদান করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ