Inqilab Logo

রোববার, ১৬ জানুয়ারী ২০২২, ০২ মাঘ ১৪২৮, ১২ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

আলোচনা ব্যর্থ হলে পদক্ষেপের প্রতিশ্রুতি

টিটিপি প্রসঙ্গে তালেবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

তালেবানরা ক্ষমতায় আসার আগে থেকেই পাকিস্তানে নিষিদ্ধ তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তান (টিটিপি) এবং বালুচ গোষ্ঠীগুলোর মতো সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আফগান সরকারের সাথে আলোচনা করে আসছিল।
তালেবান নেতৃত্বের সাথে তাদের কথোপকথনে পাকিস্তানি কর্মকর্তারা স্পষ্ট দাবি করেছেন যে, এসব গোষ্ঠীকে কেবল জায়গা দেয়া বন্ধ করলেই হবে না, বরং তাদের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থাও চাওয়া হবে। গত ১৫ আগস্ট তালেবান কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর, পাকিস্তান তাদের প্রত্যর্পণ চেয়ে মোস্ট ওয়ান্টেড সন্ত্রাসীদের একটি তালিকা শেয়ার করেছে। এ ঘটনার সাথে পরিচিত সূত্রের মতে, তালেবান নেতৃত্ব টিটিপি এবং এর সহযোগীদের সাথে আলোচনা শুরু করার জন্য পাকিস্তানকে প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু একই সময়ে অন্তর্র্বর্তীকালীন তালেবান সরকার সেসব গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, যারা পুনর্মিলনে আগ্রহী নয়।

এ কারণেই পাকিস্তান টিটিপির সাথে আলোচনা শুরু করেছিল। দুই পক্ষ অন্তত তিনটি মুখোমুখি বৈঠক করেছে বলে জানা গেছে। একটি কাবুলে অনুষ্ঠিত হয় এবং অন্য দুটি খোস্তে অনুষ্ঠিত হয়। হাক্কানি নেটওয়ার্কের প্রধান সিরাজুদ্দিন হাক্কানি মধ্যস্থতার ভূমিকা পালন করেছেন বলে মনে করা হয়। যদিও কোন আনুষ্ঠানিক নিশ্চিতকরণ ছিল না, প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে পাকিস্তান সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর কয়েক ডজন বন্দীকে মুক্তি দেয়ার বিনিময়ে টিটিপি এক মাসব্যাপী যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করতে সম্মত হয়েছে।

আফগানিস্তানে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত মনসুর আহমেদ খান দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনকে বলেছেন, ‘আমি পাকিস্তান এবং টিটিপির মধ্যে আলোচনার খবর নিশ্চিত বা অস্বীকার করতে পারি না।’ তিনি অবশ্য বলেছেন, টিটিপি বা এর সহযোগীদের সাথে সম্পৃক্ততাকে সন্ত্রাসবিরোধী প্রচেষ্টা এবং পাকিস্তান ও তালেবান সরকারের মধ্যে সম্মত একটি কৌশলের পরিপ্রেক্ষিতে দেখা উচিত। তিনি বলেন, ‘যখন আমরা কোনো সমস্যার সমাধানের জন্য যাই, তখন এটি মোকাবেলা করার উপায় আছে।’ দূত বলেন, সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর মধ্যে এমন কিছু সদস্য রয়েছে যারা পুনর্মিলন করতে ইচ্ছুক এবং অন্যরা যারা সামরিক পদক্ষেপের সাথে মোকাবিলা করতে পারে।

তালেবান সরকারের বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপ নিতে অস্বীকার করার কারণে পাকিস্তান টিটিপির সাথে আলোচনা শুরু করেছে কিনা জানতে চাইলে রাষ্ট্রদূত মনসুর বলেন, ‘তালেবান সরকার কোনো পর্যায়ে বলেনি যে তারা টিটিপিকে রক্ষা করবে বা তাদের অভয়ারণ্য দেবে। প্রতিটি পর্যায়ে তারা আমাদের আশ্বস্ত করেছে যে কোনো গোষ্ঠীকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আফগান মাটি ব্যবহার করার অনুমতি দেয়া হবে না।’ রাষ্ট্রদূত মনসুর বলেন,‘তালেবান সরকার আমাদের আশ্বস্ত করেছে যে এই ধরনের সব গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ তিনি আরও যোগ করেছেন যে, তালেবান সরকার তাদের মাটি পাকিস্তান বা অন্য কোনও দেশের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেবে না। এই গোষ্ঠীগুলোকে নির্মূল করা হবে,’ রাষ্ট্রদূত দাবি করেছেন, যিনি প্রায়শই তালেবান সরকারের সাথে যোগাযোগ করেন।

পাকিস্তান দ্বিমুখী কৌশল নিয়ে তালেবান সরকারের সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছেছে বলে মনে করা হচ্ছে। তালেবান সরকারের অনুরোধে পাকিস্তান আলোচনার সুযোগ দিতে রাজি হয়েছে। যদি সেই প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়, তালেবান সরকার টিটিপি এবং পাকিস্তানকে হুমকি প্রদানকারী অন্যান্য গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নেবে। সূত্র : ট্রিবিউন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তালেবান

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ