Inqilab Logo

বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

দাখিল পরীক্ষার প্রবেশপত্র আটকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৫ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার পাঠাকাটা ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসার দাখিল পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র আটকিয়ে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার দুপুরে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার ও সাংবাদিকদের চাপের মুখে ৪১জন পরীক্ষার্থীর প্রবেশপত্র দিতে বাধ্য হয়। মাদরাসার শিক্ষার্থী সুমাইয়া আক্তার ও নাসরিন, শারমিন জানায়, ওই মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক কিরন শংকর তাদের কাছে প্রবেশপত্রের জন্য তিন হাজার টাকা দাবি করে। তারা ৩ জনেই তিন হাজার করে টাকা অনেক আগেই পরিশোধ করে। বাকি অনেক শিক্ষার্থী টাকা পরিশোধ না করায় সবার প্রবেশপত্র আটক রাখে এবং শনিবার পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানে সকল শিক্ষার্থীদের ধার্যকৃত টাকা পরিশোধ করে প্রবেশপত্র নিতে বলা হয়। গতকাল রোববার পরীক্ষা শুরু। তার আগের দিন দুপুর পর্যন্ত প্রবেশপত্র না পেয়ে পরীক্ষার্থীরা মানষিক ভাবে ভেঙে পরে।
মাদরাসার অপর আর এক শিক্ষার্থী সুমি আক্তার জানায়, মাদরাসা কর্তৃপক্ষের ধার্য্যকৃত তিন হাজার টাকার দুই হাজার টাকা পরিশোধ করলেও বাকি এক হাজার টাকা নিয়া মাদরাসায় যাওয়ার জন্য বলেন। যা আমাদের পড়াশুনায় অনকটাই বিঘ্ন ঘটে। মাদরাসার অপর ছাত্র ইকবাল হোসেন বলেন, প্রবেশপত্রের জন্য মাদরাসা কতৃপক্ষের নিকট বহু অনুনয় বিনয় করে ২৫০০ টাকা দেই।
এ বিষয়ে মাদরাসার সহ-সুপার মাওলানা আবু বক্কর ছিদ্দিক বলেন, শারীরিক অসুস্থতার কারণে আমি দীর্ঘদিন ছুটিতে থাকায় এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে পারছিনা না।
এ ব্যাপারে মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক কিরণ শংঙ্কর বৈষঞব প্রবেশপত্রের নামে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন- ফরম ফিলাপ ও পরীক্ষা চলাকালে অন্যান্য যে খরচ ধরা হয়েছিল তা সভাপতির নির্দেশে ধরা হয়েছিল। যা অনেক শিক্ষার্থী পরিশোধ করেনি। প্রবেশপত্র বিতরণে বিলম্বে কারণ সর্ম্পকে তিনি আরও বলেন, মাদরাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আ. রব হাওলাদার ঢাকায় থাকায় তার উপস্থিতিতে পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল। সে কারণে প্রবেশপত্র দিতে বিলম্ব হয়।
মাদরাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আ. রব হাওরাদার ঢাকায় থাকায় তার সাথে বলা সম্ভব হয়নি।
উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার (মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস) মো. রুহুল আমীন বলেন, মৌখিকভাবে খবর পেয়ে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে সাংবাদিক ও অভিভাবকদের উপস্থিতে শিক্ষার্থীদের মাঝে শনিবার দুপুরে প্রবেশপত্র বিতরণ করি।
উপজেলাা নির্বাহী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত) মো. বশির আহমেদ বলেন, সকল পরীক্ষা কেন্দ্র সচিব ও মাদরাসা প্রধানদের সাথে মিটিং করে বোর্ড নিধারিত শিক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র বাবদ ৩শ’ টাকা ধার্য করা হয়। অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের বিষয়ে তদন্ত করে দ্রুত সময়ের পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন