Inqilab Logo

রোববার, ১৬ জানুয়ারী ২০২২, ০২ মাঘ ১৪২৮, ১২ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

তিন সন্তানকে বিষপান করিয়ে হত্যাচেষ্টা

ফরিদপুর জেলাসংবাদাতা | প্রকাশের সময় : ১৫ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

মাদকাসক্ত পিতা কর্তৃক তিন শিশুকে বিষপানে হত্যার চেষ্টা করানো শিশু তিনটি গতকাল রোববার পর্যন্ত অচেতন অবস্থায় ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তিনিটি শিশুই হাসপাতালের শিশু মেডিসিন ওয়ার্ডে মরণযন্ত্রনায় ছটফট করছে। শিশু তিনটির করুন দৃশ্য দেখে প্রতিনদিন শতাধিক মানুষের ভীড় করছে। পিতার এমন কর্মকাণ্ডে মানুষ ঘৃনায় থ্ ুথু ছিটাচ্ছে।
প্রকাশ থাকে যে, নগরকান্দা উপজেলার মহাসড়কের বিপরীত পাশ মুকসুদপুর উপজেলার খান্দারপাড়া ইউনিয়নের মাদকাসক্ত পিতা মো. আলম সেখ (৪০) গোপালপুর গ্রামে তিন শিশু সন্তানকে আগাছা নাশক (বিষ) পানে হত্যার চেষ্টা করেছে গত বৃহস্পতিবার সকালে। তাৎক্ষণিকভাবে, শিশু সিয়াম শেখ (১০), হাসান শেখ (৩), হোসেন শেখ (৩) কে ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করান স্বজনরা।
ঘটনায় ফরিদপুর হাসপাতালসহ নগরকান্দা, মুকসুদপুর এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। সব জায়গায় একই কথা আলোচনা করছে মাদক কোথায় নিয়ে পিতাকে পৌঁছেছেন। আসুস্থ শিশু তিনটির জনৈক দুই আত্মীয় নগরকান্দার অনু মিয়া এবং মুকসুদপুর সীমানার ভাঙ্গা শুয়াদির এলাকার মো. হাফিজুল জানান, ঐ এলাকাটি মাদকের অভয়নগর বলে পরিচিত। পরিবার ও স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, স্ত্রীর কাছে নেশার টাকা চাইলে টাকা না দেয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে বাড়ি থেকে বের করে তিন সন্তানকে জোর করে কীটনাষক খাইয়ে দেয়। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে চিকিৎসার জন্য মুকসুদপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের অবস্থার অবনতি দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেলে প্রেরণ করে। কিন্তু তাদের আর্থিক অবস্থা খারাপ থাকায় ফরিদপুর নিতে না পারায় স্থানীয়দের সহায়তা ১৩ নভেম্বর শনিবার সকালে, ফরিদপুর মেডিকেলে নেওয়া হয়। শিশু তিনটির অবস্থা খুবই আশঙ্কা জনক। বড় ছেলে সিয়ামের মুখ দিয়ে বমির সাথে রক্ত বের হচ্ছে।
শিশু তিনটির মাতা সীমা বেগম (৩০) ইনকিলাকে জানায়, তার স্বামী আলম শেখ মাদকাশক্ত। তার কাছে নেশার টাকা চাইলে টাকা না দেয়ায় তাকে ব্যপক মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে শিশু তিনটি কে আগাছা নাশক কিটনাশক (বিশ) পানিতে মিশিয়ে জোর করে পান করিয়ে হত্যার চেষ্টা করে বাবা। তিন শিশুর মধ্য বড় ছেলেটির অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক।
এই বিষয়, কথা হলে মুকসুদপুর থানার ওসি আবু বকর মিয়া জানান, পারিবারিক দ্বন্দের জের ধরে এবং মাদকাশক্ত হওয়ায় নিজ ইচ্ছায় তিন সন্তানকে হত্যার উদ্দেশ্যে বিশ পান করিয়েছে। পরে তাদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে মুকসুদপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। এই ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হলে মাদকাশক্ত পিতা আলম শেখকে গ্রেফতার করে গোপালগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ