Inqilab Logo

শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

টাঙ্গাইলে একই রাতে বিসিক শিল্প নগরী ও আমেরিকা প্রবাসীর বাসায় দুর্দর্শ ডাকাতি

প্রকাশের সময় : ২০ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা : টাঙ্গাইলে একসাথে দু’টি দুর্দর্শ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোররাতে বিসিক শিল্প নগরীর ‘টাঙ্গাইল ডাল কারখানা’ নামে একটি কারখানায় ও পৌরসভার আশেকপুর এলাকায় এক প্রবাসীর বাসায় একই সময়ে একইভাবে লোকজনকে আটকে রেখে ওই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এতে নগদ টাকাসহ অন্তত ৩০ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা।
ক্ষতিগ্রস্থ্য মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার ভোররাত পৌনে তিনটার দিকে একটি ট্রাকযোগে একদল ডাকাত সদস্য ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশে বিসিক শিল্প নগরীর ভেতরে আমার প্রতিষ্ঠিত ‘টাঙ্গাইল ডাল কারখানায়’ ঢুকে ভেতরে থাকা তিন শ্রমিককে বেঁধে ৫০ কেজি ওজনের ৩০২ বস্তা মসুর ডাল নিয়ে যায়। যার বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় ১৫ লাখ টাকা।
বিসিক শিল্প নগরীর ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি আবুল মনছুর সিকদারসহ অন্যরা জানান, ‘টাঙ্গাইল ডাল কারখানা’সহ একই সড়কের পাশে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে আশেকপুর এলাকায় আমেরিকা প্রবাসী আমার চাচাত ভাই হাফেজ সিকদার তার দু’তলা ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি ইউনিটে সপরিবারে থাকেন। কিছুদিন পূর্বে তিনি আমেরিকা থেকে এসেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোররাতে একই সময়ে একদল ডাকাত সদস্য ভবনের নিচের কলাপসিবল গেটের তালা ও পরে ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে সেখানে থাকা চারজনকে জিম্মি করে ১০ ভরি স্বর্ণালংকারসহ নগদ টাকা ও ডলার নিয়ে পালিয়ে যায়। তিনি বলেন, ‘আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতির কারণেই এমন ঘটনা বার বার ঘটছে। এছাড়াও বিসিক শিল্পনগরীতে প্রায়ই চুরির ঘটনা ঘটে থাকে। প্রতি রাতে পুলিশের টহল টিম কাজ করলেও মহাসড়কের পাশে ট্রাক দাড় করিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা বাড়িতে ডাকাতির ঘটনাটি সবাইকে আতঙ্কিত করেছে।
খোজ নিয়ে জানা যায়, এর আগেও এই সড়কের তিন কিলোমিটারের মধ্যে বিভিন্ন সামগ্রীর প্রায় ৮টি দোকানে একই রাতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায়ও ট্রাকের ব্যবহার করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় জিডি হলেও কেউ গ্রেফতার বা মালামাল উদ্ধার হয়নি।
টাঙ্গাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হাসান ভূইঞা, ডাকাতির ঘটনার কথা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি জানার পরেই দুটি ঘটনাস্থলেই পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। এ ব্যাপারে এখনো কেউ মামলা করেনি। মামলা হলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ