Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

ইন্দুরকানীতে কেন্দ্র সচিবের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৫ এএম

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ইং এর ইন্দুরকানী কেন্দ্র সচিবের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ এনেছেন কক্ষ পরিদর্শকরা। গতকাল মঙ্গলবার এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র ইন্দুরকানীর কেন্দ্র সচিব মো. সেলিম খানের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও অনিয়মের অভিযোগ এনে কক্ষ পরিদর্শকরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও প্রেসক্লাব বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রফি বিজ্ঞান বিভাগে ৪৬৫ টাকা, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ৪৩০ টাকা হারে সর্বমোট ৭৭২ জন শিক্ষার্থীর নিকট থেকে ২,৪০,০০০/- (দুই লক্ষ চল্লিশ হাজার) টাকা উত্তোলন করে কেন্দ্র সচিবের কাছে জমা রাখেন। সেখান থেকে ৬দিনে ৯টি পরীক্ষায় কক্ষ পরিদর্শক বাবদ ১৫০ টাকা হারে বরাদ্ধ করলে কক্ষ পরিদর্শকদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ সৃষ্টি হয়। কেন্দ্রসচিব বিভিন্ন অজুহাতে মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎ করেন।
এক শিক্ষক জানান, প্রতিষ্ঠান প্রধানদের সম্মানী বাবদ ৩ হাজার টাকা বরাদ্ধ করা হয়েছে। অথচ পরীক্ষা কেন্দ্রে তাদের কোন সংশ্লিষ্টতা না থাকায় শিক্ষকদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। একটি সূত্রে জানা যায়, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় করার কারণে বোর্ড কর্তৃপক্ষ বিজ্ঞান বিভাগে ১৩৫ টাকা এবং মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ১১০ টাকা হারে ফেরৎ প্রদানের নির্দেশনা থাকা সত্বেও প্রতিষ্ঠান প্রধানরা শিক্ষার্থীদের এখন পর্যন্ত টাকা পরিশোধ করেন নাই।
পরীক্ষার্থী হাবিবা জানায়, প্রবেশপত্র বাবদ আমাদের কাছ থেকে ৪৬৫ টাকা নিয়েছে। কিন্তু অতিরিক্ত টাকা এখনো ফেরৎ পাই নাই।
অভিযুক্ত কেন্দ্র সচিব মো. সেলিম খান জানান, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ হয়েছে তা আদৌ সত্য নয়। উপস্থিত প্রধান শিক্ষকদের সম্মতি ক্রমে আমরা বাজেট পেশ করেছি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুৎফুন্নেছা খানম জানান, এ বিষয় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিস্তারিত খোজ-খবর নিয়ে বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন