Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

দেশে খাদ্য সচেতনতা বাড়ায় মানুষ এখন বিষাক্ত খাদ্য এড়িয়ে চলছে -শিল্পমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, দেশে খাদ্য সচেতনতা বাড়ায় মানুষ বিষাক্ত খাদ্য এড়িয়ে চলছে। কিন্তু আমাদের অনেক শিল্পপতি-ব্যবসায়ীদের স্বাস্থ্য সচেতনতার ক্ষেত্রে জ্ঞানের অভাব রয়েছে। যে কারণে তারা মানহীন পণ্য উৎপাদন করছেন। এটিকে তাদের জ্ঞানের অভাব না অতি মুনাফার লোভ কোনটি বলব?
গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনে (বিএসটিআই) এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। ৪৭তম বিশ্ব মানদিবস উপলক্ষে বিএসটিআই সভাটির আয়োজন করে।
আমির হোসেন আমু বলেন, এখন বিদেশী বিনিয়োগ আসার জন্য প্রস্তুত। সব দেশই আমাদের দেশে বিনিয়োগ করতে চায়। এ জন্য ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করা হচ্ছে। তবে বিদেশী বিনিয়োগ আসার আগে দেশীয় উদ্যোক্তাদের পণ্যের মান নিশ্চিত করতে হবে। বিদেশী বিনিয়োগ আসার পর মান ভালো না হলে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকা যাবে না।
ব্যবসায়ীদের অতিমুনাফার মানসিকতা পরিহার করার আহŸান জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ব্যবসায়ীদের অতিমুনাফার মানসিকতা থেকে বেরিয়ে এসে পণ্যমানের বিষয়ে সচেতন হতে হবে। গুটিকয়েক অতিলোভী ব্যবসায়ীর কারণে সমাজ ও দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, ব্যবসায়ীদের ইমেজ ক্ষুণœ হচ্ছে।
আমু বলেন, প্রতিটি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অভাবনীয় সাফল্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এরই সাথে পাল্লা দিয়ে পণ্যমানের বিষয়ে বিএসটিআইকে যেমন তার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে হবে তেমনি ব্যবসায়ী সমাজকেও তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে হবে।
বিএসটিআই যে মানের ওপর ভিত্তি করে মান সনদ প্রদান করে পরবর্তীতে ব্যবসায়ীদের সেই মান বজায় রাখতে হবে। সরকার সবকিছু আইন প্রয়োগ করে বাধ্য করতে চায় না, সরকার চায় সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে পণ্যের মান ঠিক রাখতে।
তিনি বলেন, বিএসটিআইকেও অনুধাবন করতে হবে অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠানের চেয়ে তাদের কাজের গুরুত্ব অনেক বেশি। বিএসটিআইর ওপর জনস্বাস্থ্যসহ ব্যবসা-বাণিজ্য অনেক কিছু নির্ভর করছে।
আমু বলেন, ডিসেম্বরের মধ্যে হাজারীবাগ থেকে সাভারে চামড়া শিল্প নিয়ে আসতে পারলে পোশাক খাতের মতো চামড়া থেকেও মোটা অঙ্কের রফতানি আয় করা সম্ভব। পরিবেশবান্ধব স্থানে চামড়াশিল্প নিয়ে গেলে রফতানি আয় বাড়বে। বিএসটিআইর মহাপরিচালক ইকরামুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া ও এফবিসিসিআইর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন।
মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, বেশ কয়েক বছর ধরে সরকার বেসরকারি খাতকে গুরুত্ব দিয়ে আসছে। দেশের জিডিপিতে বেসরকারি খাতের অবদান ৮৮ শতাংশের মতো। সরকারি পদক্ষেপের কারণে সামনে পোশাক খাতের পাশাপাশি চামড়াসহ আরো কয়েকটি পণ্যের রফতানি বাড়বে বলে আমরা আশা করছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দেশে খাদ্য সচেতনতা বাড়ায় মানুষ এখন বিষাক্ত খাদ্য এড়িয়ে চলছে -শিল্পমন্ত্রী
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ