Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

জাজিরায় মেয়র পুত্রের যাবজ্জীবন

ধর্ষণ মামলা

শরীয়তপুর জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২৫ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৪ এএম

ধর্ষণ মামলার আসামি জাজিরা পৌরসভার সাবেক মেয়র ইউনুছ বেপারীর ছেলে মাসুদ বেপারীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন শরীয়তপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আ. ছালাম খান। একই সাথে আসামিকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডও দিয়েছেন। অপর আসামি শরীফ সরদারকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়েছে এই আদেশে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় আসামি, রাষ্ট্রপক্ষ ও বাদীর (ভিকটিম) উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন বিচারক। শরীফ সরদারকে খালাস প্রদানে বাদী ও রাষ্ট্রপক্ষ বিক্ষুদ্ধ হয়েছেন। এই আদেশের বিরুদ্ধে তারা উচ্চ আদালতে যাবেন বলে জানিয়েছেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান রোকন বলেন, আসামি মাসুদ বেপারী ও শরীফ সরদার ২০১৯ সালের ৩০ জুন এক কলেজছাত্রীকে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগে জাজিরা থানায় মামলা করে। জাজিরা থানা পুলিশ তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। এই মামলার বাদী, ডাক্তার, পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটসহ ১৩ জন সাক্ষী ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য প্রদান করে। আসামিদের পক্ষেও ৮ জন সাফাই সাক্ষী হাজির করা হয়। ট্রাইব্যুনাল সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে দীর্ঘ যুক্তিতর্ক শুনানির পরে রায় ঘোষণা করেন। রায়ে মাসুদ বেপারীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও অপর আসামি শরীফ সরদারকে বেকসুর খালাসের আদেশ দিয়েছেন।
ভিকটিমের পিতা হযরত কাজী বলেন, আসামিরা আমার কলেজপড়ুয়া মেয়েকে ভুল বুঝিয়ে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। মামলা পরে আসামি ও তাদের লোকজন দ্বারা আমি ও আমার পরিবার অনেক নির্যাতিত হয়েছি। আমরা থানায়ও যেতে পারিনি। সেই মামলার আসামি মাসুদকে ট্রাইব্যুনাল সর্বোচ্চ সাজা দিয়েছেন। অপর আসামি শরীফকে খালাস দেয়ায় আমি ক্ষুদ্ধ। এই আদেশের বিরুদ্ধে আমি উচ্চ আদালতে আপিল করব।
আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট কামরুজ্জামান নজরুল বলেন, আমরা ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছি। এই আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাব। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পিপি অ্যাডভোকেট মির্জা হজরত আলী বলেন, ট্রাইব্যুনালে এই মামলার বাদী, পুলিশ, ডাক্তার, ম্যাজিস্ট্রেটসহ ১৩ জন সাক্ষ্য প্রদান করেছে। দীর্ঘ শুনানির পর ট্রাইব্যুনাল রায় দিয়েছেন। আসামি শরীফ সরদারকে খালাস দেয়ায় রাষ্ট্রপক্ষ বিক্ষুদ্ধ। বাদীকে ন্যায় বিচারের স্বার্থে উচ্চ আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দেবো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ মামলা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ