Inqilab Logo

বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

ঝিনাইগাতীতে বিভিন্ন হোটেলে ইউএনওর পরিচয়ে মোবাইল ফোনে চাঁদা দাবি : দ্রুত ইউএনওর হস্তক্ষেপ

শেরপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ নভেম্বর, ২০২১, ৮:৩৭ পিএম

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার ঝিনাইগাতী ও তিনানী বাজারে বিভিন্ন হোটেল মালিকদের ০১৯২২-৯৪৬৭৭৬ ও ০১৯২৯-৬৮৬৭৮১ নাম্বার থেকে ফোন করে ইউএনও ঝিনাইগাতীর পরিচয় দিয়ে চাঁদা দাবীর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ইতিমধ্যে স্থানীয় তিনানী বাজারের বিছমিল্লাহ হোটেল থেকে বিকাশের মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক চক্রটি। ঘটনাটি ঘটেছে ২৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়।

জানা যায়, ২৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালে ০১৯২২-৯৪৬৭৭৬ ও ০১৯২৯-৬৮৬৭৮১ নাম্বার থেকে ঝিনাইগাতীর হোটেল রাজমনি, হোটেল স্বপন, হোটেল সাঈদ, তিনআনী হোটেল বিছমিল্লাহকে বিভিন্ন পরিমান টাকা চাঁদা দাবি করেন নির্বাহী কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে প্রতারক চক্রটি। প্রতারকের খপ্পর বুঝতে না পেরে হোটেল বিছমিল্লাহ তিনআনীর মালিক বিকাশের মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা পাঠিয়ে দেয়।

হোটেল সাঈদের মালিক আবু সাঈদ প্রতারকের খপ্পর বুঝতে পেরে ইউএনও ফারুক আল মাসুদকে মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানান। খবর পেয়ে তাংক্ষনিক ভাবে ইউএনও ফারুক আল মাসুদ, সহকারি কমিশনার জয়নাল আবেদিন, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন চাঁন হোটেল সাঈদে চলে আসেন এবং প্রতারক চক্র সর্ম্পকে উপস্থিত হোটেল ব্যবসায়ীসহ সাধারণ জনগণকে অবহিত করেন এবং প্রতারক চক্রকে দরার মতো বিভিন্ন কৌশল শিখিয়ে দেন এবং নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনারের মোবাইল নাম্বার জনগণের মাঝে ওপেন করে দেন।

ইউএনও ফারুক আল মাসুদ সাধারণ জনগণকে ০১৭৮৪-০৯০৮০৬ ও ০১৭১৩-৬৫১৩২৫ নাম্বারটি সকলকে সংরক্ষণের আহবান করেন। সেই সাথে কোনরুপ সন্দেহ মনে হলে,নির্বাহী কর্মকর্তা ঝিনাইগাতীর সাথে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করেন ইউএনও ফারুক আল মাসুদ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ