Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৪ মাঘ ১৪২৮, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

জার্মানিতে করোনা সামলাতে আরো কড়া পদক্ষেপের ডাক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ নভেম্বর, ২০২১, ৬:৩১ পিএম

জার্মানিতে করোনা সংক্রমণের হার লাগাতার বেড়ে চলায় লকডাউনসহ আরো কড়া পদক্ষেপের জন্য চাপ বাড়ছে। হাসপাতালে গুরুতর অসুস্থ রোগীর জরুরি চিকিৎসার নিশ্চয়তা আর দিতে পারছেন না চিকিৎসকরা।

এখনো পর্যন্ত কোনো পদক্ষেপই জার্মানিতে করোনা সংক্রমণের ঊর্দ্ধগতি থামাতে পারছে না। প্রতি এক লাখ মানুষের মধ্যে সাপ্তাহিক গড় সংক্রমণের হার শুক্রবার ৪৩৮ পেরিয়ে গেছে। দৈনিক সংক্রমণের হার ৭৬,০০০-এরও বেশি। করোনা মহামারির সূচনা থেকে এখনো পর্যন্ত জার্মানিতে মৃতের সংখ্যা এক লাখ পেরিয়ে গেছে।

সারা দেশে হাসপাতালগুলির উপর চাপ বেড়ে চলায় বিশেষজ্ঞরা প্রমাদ গুনছেন। বৃহস্পতিবার জার্মানির ১৬টি রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রীরা দেশজুড়ে জরুরি নয় এমন অপারেশনের তারিখ পিছিয়ে দেবার ডাক দিয়েছেন। বিশ্ব চিকিৎসক সংগঠনের সভাপতি জার্মানির ফ্রাংক উলরিশ মন্টগোমারি বলেছেন, সব গুরুতর অসুস্থ মানুষকে ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিটে আর স্থান দেওয়া যাবে না। বাঁচার সম্ভাবনার ভিত্তিতে রোগী বাছাই করতে হবে।

ইতোমধ্যেই এমন কঠিন পদক্ষেপের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। দেশের দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলে হাসপাতালের উপর চাপ কমাতে জার্মানির বিমানবাহিনী অসুস্থ রোগীদের দেশের অন্য প্রান্তে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার কাজে সহায়তা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। আপাতত দুটি বিমান এই কাজের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বাভেরিয়া, স্যাক্সনি ও টুরিঙ্গিয়া রাজ্যে এমন চরম পদক্ষেপের প্রয়োজন বাড়ছে। ইউরোপের অন্যান্য দেশেও জার্মান রোগী স্থানান্তর করার প্রয়োজন হতে পারে।

বিদায়ী চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণ করতে মানুষের মধ্যে যোগাযোগ কমানোর আরও কড়া পদক্ষেপের ডাক দিয়েছেন। তার মতে, প্রতিটি দিনই গুরুত্বপূর্ণ। ভবিষ্যৎ চ্যান্সেলর মহামারি সামলাতে জরুরি কমিটি গড়ার যে উদ্যোগ নিচ্ছেন, ম্যার্কেল সেই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে ক্ষমতা হস্তান্তরের আগেই সেই পদক্ষেপে সহায়তার আশ্বাস দেন। তবে চ্যান্সেলর ও মুখ্যমন্ত্রীদের আগামী বৈঠক ৯ নভেম্বরের বদলে আগেই আয়োজন করার ডাক সম্পর্কে তিনি কোনো মন্তব্য করেন নি।

পরিস্থিতি সামলাতে অস্ট্রিয়ার মতো জার্মানিতে সম্পূর্ণ লকডাউনের সম্ভাবনাও আর উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে না। স্যাক্সনি ও উত্তরের মেকলেনবুর্গ ওয়েস্টার্ন পমারেনিয়া রাজ্য বড়দিন পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণার ইঙ্গিত দিয়েছে। সেইসঙ্গে দীর্ঘমেয়াদী ভিত্তিতে সংকট সামলাতে করোনা টিকা বাধ্যতামূলক করার জন্যও চাপ বাড়ছে। বাভেরিয়ার মুখ্যমন্ত্রী মার্কুস স্যোডার গত সপ্তাহে খোলাখুলি এমন প্রস্তাব রেখেছেন। ম্যার্কেলও এমন পদক্ষেপের পক্ষে বলে সংবাদমাধ্যমের একাংশে দাবি করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের ওষুধ দফতর পাঁচ থেকে এগারো বছর বয়সি শিশুদের জন্য করোনা টিকা অনুমোদন করায় স্কুলের উপর চাপ কিছুটা কমানোর আশা বাড়ছে। উল্লেখ্য, বর্তমানে স্কুলে করোনা সংক্রমণের হার গত বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় তিন গুণ বেড়ে যাওয়ায় দুশ্চিন্তা বাড়ছে। বড়দিনের আগেই শিশুদের করোনা টিকা দেওয়ার কাজ শুরু হবে বলে সরকার আশ্বাস দিচ্ছে। তবে জার্মানির টিকা কমিশনের পরামর্শ ছাড়া অনেক চিকিৎসক এ বিষয়ে সংশয় প্রকাশ করছেন। সূত্র: ডয়চে ভেলে



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনা

১৭ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ