Inqilab Logo

রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ধর্ষণের অভিযোগ প্রার্থী আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে বাদীনিকে হুমকি

বগুড়া শাখারিয়া ইউপি নির্বাচন

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৪ এএম

বগুড়ার শাখারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং চলতি ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রভাষক এনামুল হক রুমির বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করে বিপদে পড়েছেন বাদীনি কোহিনুর বেগম। তিনি বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ আদালতে (১) ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।
মামলা করার পর হুমকির মুখে তাকে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে। বর্তমানে অজ্ঞাত স্থানে থাকা কোহিনুরের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আত্মীয় জানান, গত বুধবার কোহিনুর বেগম (৩৫) এর পক্ষে মামলা করেন বগুড়ার সিনিয়র আইনজীবী একেএম আব্দুল হাকিম।
মামলার আদেশে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ আদালত (১) এর বিচারক জেলা জজ একেএম ফজলুল হক আগামী ১৪ কর্ম দিবসের মধ্যে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশের বিশেষ শাখা পিবিআইকে নির্দেশনা দিয়েছেন। আর এ তথ্য সাংবাদিকদের জানিয়েছেন আদালতের বেঞ্চ সহকারি গৌতম নন্দী।
মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, বাদী কোহিনুর বগুড়া সদরের শাখারিয়া ইউনিয়নের জঙ্গলপাড়ার মো. কোরবান আলীর মেয়ে। তার স্বামীর নাম মো. নুর আলম। দারিদ্রের কারনে ৩ সন্তানের জননী কোহিনুর প্রতিবেশি প্রভাষক এনামুল হক রুমির বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করতেন। গত বছরের ১৭ অক্টোবর থেকে চলতি বছরের ২০ অক্টোবর পর্যন্ত ভয়ভীতি দেখিয়ে, কখনো বিয়ের প্রতিশ্রæতি দিয়ে ধর্ষণ করেন।
তবে শেষ পর্যন্ত বিয়ের প্রতিশ্রæতি পূরণ না হওয়ায় গত ১৯ নভেম্বর সে বগুড়া সদর থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ আদালতে মামলা দায়েরের পরামর্শ দেয়। সে প্রেক্ষিতে তিনি বিচারিক আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলা দায়েরের পরই তদন্তের জন্য বগুড়ায় পিবিআই কার্যালয়ে এজাহারের কপি পৌঁছে দেওয়া হয়।
এদিকে বাদী কোহিনুর বেগম মোবাইল ফোনে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ধর্ষক রুমির পক্ষে তার পরিবার তাকে স্বপরিবারে এলাকা ছেড়ে চলে যেতে বলেছে। না গেলে পরিণতি খারাপ হবে বলে হুমকি দেয়া হচ্ছে। এ অবস্থায় তিনি মানবাধিকার সংস্থা, গণমাধ্যাম ও পুলিশের সহায়তা কামনা করছেন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউপি নির্বাচন

৮ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন