Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২৩ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌ-রুট: সীমিত ফেরি চলাচলে যানবাহনের দীর্ঘ সারি

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ)উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ৪:০৭ পিএম

মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া মাদারীপুরের বাংলাবাজার রুটে ফেরি সীমিত চলাচলে কারণে উভয় ঘাটে বাঁধা পড়ছে শত শত যানবাহন। এ রুটে সকাল ৬টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৪ টি ফেরি দিয়ে সীমিত যানবাহন পারাপার করায় প্রতিদিনই ঘাট এলাকায় দীর্ঘসময় আটকা পড়ে থাকছে শত শত যাত্রী ও পণ্যবাহী গাড়ি। এতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এই পথে যাতায়াতকারী দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের।

দীর্ঘ সময় যানবাহন আটকা থাকা সংখ্যা দিন দিন বেড়ে যাওয়ার কারনে মানুষের দুর্ভোগও বেড়েই চলেছে। এ দুর্ভোগ কমাতে ভিআইপি গাড়িগুলো আগে পারাপার করতে গিয়ে আটকা পড়ছে পণ্যবোঝাই ছোট ছোট ট্রাক। গত কয়েকদিন এমন অবস্থা চরম সংকট তৈরি করেছে। শিমুলিয়া ঘাটে ফেরিপারের অপেক্ষায় আটকা পড়ে বিভিন্ন পণ্যবোঝাই শত শত ছোট ট্রাক ও পিকআভ্যান এতে নানামুখ্যা খরচ বাড়ছে। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যানবাহনের চালক ও যাত্রী‌দের। এছাড়া সময় মতো গন্তব্যে মালামাল নিয়ে যেতে না পেরে আর্থিকভাবে লোকসানে পরছেন সাধারণ ব্যবসায়ীরা। এতে ব্যবসায় ক্ষতি ও পণ্যের দাম বৃদ্ধির আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে বলে মনে করছেন অনেকে।

সরেজমিনে শনিবার (২৭ নভেম্বর) সকাল ১০টার দি‌কে শিমুলিয়া ফেরিঘাট এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, দেড় শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক ও অল্পকিছু ব্যাক্তিগত গাড়ির সারি রয়েছে। চালক‌দের নদী পার হ‌তে এক থে‌কে দুই দিন পর্যন্ত শিমুলিয়া প্রান্তে অপেক্ষা কর‌তে হচ্ছে। বর্তমানে এ রুটে কো-টাইপের ৪টি ফে‌রি চলাচল কর‌ছে।
চালকরা জানান, ভিআইপিদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করছে ঘাট কর্তৃপক্ষ। পিকআপভ্যান চালক মো.জসিম জানান, গতকাল সকাল ৮টায় ঘাটে আসছি ফরিদপুর যাবে আজ এখন বাজে সকাল ১০টায় এখন মাত্র ফেরিতে উঠতেছি। যাত্রী নিশি বেগম জানান,সভার থেকে গতকাল ঘাটে আসছি শিবচর যাবো বাসাবাড়ির মালামাল ও ফেমিলি নিয়ে এখনো ঘাটে সিরিয়ালে আছি। পিকআপ চালক সুরুজ মিয়া জানান, ঢাকা থেকে টাইলস নিয়ে গতকাল ঘাটে আসছি শিবচর যাবো। যাত্রী মিজানুর রহমান জানান, ফেমিলি নিয়ে পিরোজপুর চলে যাচ্ছি, বাসাবাড়ির মালামাল নিয়ে কেনো যাচ্ছেন যানতে চাইলে তিনি আরোও জানান ঢাকায় ব্যাটারির ব্যাবসা করতাম ব্যাবসা মন্দা তাই গ্রামে চলে যাচ্ছি। মাদারীপুরগামী মহিরুন নেছা (৭০) জানান, আয় কমে গেছে জিনিসপত্রর দাম বেশি তাই ফেমিলি নিয়ে গ্রামে চলে যাচ্ছি,মেয়ে ও নাতী নিয়ে শীতের মধ্য গাড়িতে সারা রাত আমাদের খুব কষ্ট হয়েছে। যাত্রী মো. রাসেল জানান, ফতুল্লা থাকতাম ফেমিলি নিয়ে বরিশালের বাকেরগঞ্জ গ্রামে যাচ্ছি গতকাল ঘটে আসছি বিকেল ৪টায় ফেরি বন্ধ হয়ে গিয়েছিলো তাই সারারাত গাড়িতেই ছিলাম, ফেরি চলাচলের সময় ও ফেরির সংখ্যা বাড়ানোর হলে আমাদের এই দুর্ভোগ পোহাতে হতো না।
এব্যাপারে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশন (বিআইডব্লিটিসি) শিমুলিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) সাফায়েত হোসেন জানান, সীমিত ফেরি চলাচলের কারণে প্রায়ই দিনশেষে কোনোদিন অর্ধশতাধিক, কোনোদিন শতাধিক যানবাহন ঘাটে আটকা পড়ছে। ফলে আটকে পড়া গাড়িগুলোকে পরের দিনে ফেরি পারাপারের জন্য হয় ঘাটেই রাত কাটাতে হচ্ছে, নয়তো ফিরে যেতে হচ্ছে ঢাকায়। এর সমাধানে হয় ফেরির সংখ্যা বাড়াতে হবে, নয়তো ফেরি চলাচলের সময় বাড়ানো প্রয়োজন।#



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ