Inqilab Logo

শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

কষ্টের জয়ে মৌসুম শুরু শেখ রাসেলের

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ৮:১১ পিএম

প্রতি বছর ফেডারেশন কাপ দিয়ে ঘরোয়া ফুটবলের নতুন মৌসুম শুরু হলেও এবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে স্বাধীনতা কাপ দিয়েই তা শুরু হয়েছে। শনিবার বিকালে কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে স্বাধীনতা কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে অংশ নেয় শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ও উত্তর বারিধারা ক্লাব। ম্যাচে বারিধারাকে ১-০ গোলে হারিয়ে কষ্টের জয়ে মৌসুম শুরু করেছে শেখ রাসেল। বিজয়ী দলের পক্ষে একমাত্র জয়সূচক গোলটি করেন তরুণ ফরোয়ার্ড মান্নাফ রাব্বি। কাগজে-কলমে শক্তিশালী শেখ রাসেল অপেক্ষাকৃত দূর্বল উত্তর বারিধারার বিপক্ষে ম্যাচে শেখ রাসেল প্রত্যাশা অনুযায়ী খেলতে পারেনি। বরং উল্টো ম্যাচের শুরু থেকে তাদের সঙ্গে সমান তালেই লড়েছে বারিধারা। ম্যাচের প্রথমার্ধে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলা চললেও গোল হয়নি। ফলে গোলশূন্য অবস্থায় বিরতিতে যায় দু’দল। তবে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে গোলের দেখা যায় শেখ রাসেল। ৫৯ মিনিটে এক মূহুর্তের অমনযোগে গোল হজম করে বসে বারিধারা। এসময় বাঁ প্রান্ত দিয়ে বল নিয়ে দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে গিয়ে বক্সে মান্নাফ রাব্বিকে পাস দেন ইসমাইল। বলা যায় গোলটা তিনিই বানিয়ে দেন। কারণ তিনি যে পাসটি দেন তা জালেই প্রবেশ করছিল। বারিধারার তিন ডিফেন্ডারও ছিলেন সেখানে। কিন্তু অনেক চেষ্টা করেও তারা বল থামাতে পারেননি। চলন্ত বলে আলতো টোকায় বল গোল লাইন পার করেন মান্নাফ রাব্বি (১-০)। শেষ পর্যন্ত গোল আর শোধ দিতে পারেনি বারিধারা। ফলে মৌসুমের শুরুতেই হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের। একই মাঠে সন্ধ্যায় শুরু হওয়া দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ৩-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীকে।

এদিকে টুর্নামেন্ট শুরু হবার আগেই একবার সূচী পরিবর্তন করে ফেলেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। নতুন সূচী অনুযায়ী রোববার ‘সি’গ্রুপের দু’টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। কমলাপুরস্থ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে বিকাল ৪টায় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব খেলবে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রের বিপক্ষে। একই মাঠে সন্ধ্যা ৬ টায় সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের কারণে দুই বছর আলোর মুখ দেখেনি ঘরোয়া ফুটবলের অন্যতম টুর্নামেন্ট স্বাধীনতা কাপ। সর্বশেষ এই টুর্নামেন্ট মাঠে গড়িয়েছিল ২০১৮ সালে। এরপর সারা বিশ্বে করোনাভাইরাস জেঁকে বসায় বন্ধ হয়ে যায় সব খেলাধুলা। এ ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ফুটবলের ঘরোয়া আসরগুলোও বন্ধ থাকে। করোনার কারণে দুই বছর আয়োজন করা সম্ভব না হলেও মৌসুমসূচক টুর্নামেন্ট হিসেবে এবার ঠিকই মাঠে গড়ালো স্বাধীনতা কাপ। টুর্নামেন্টের এবারের আসরে খেলছে ১৫টি দল। দলগুলো চার গ্রুপে ভাগ হয়ে অংশ নিচ্ছে। গ্রুপ পর্ব শেষে চার গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দল খেলবে টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে। শেষ আটের সেরা চার দল খেলবে সেমিফাইনাল এবং সেমির শীর্ষ দুই দল শিরোপা নির্ধরাণী ম্যাচ খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে ১৮ ডিসেম্বর।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঘরোয়া ফুটবল

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন