Inqilab Logo

শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

উদ্বোধনের আগেই ছাদ চুইয়ে ঝরছে পানি

শ্রীনগরে মাদরাসা ভবন নির্মাণে দুর্নীতির অভিযোগ

মুনীরুল ইসলাম, শ্রীনগর (মুন্সিগঞ্জ) থেকে | প্রকাশের সময় : ২৮ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

শ্রীনগরে পাটাভোগ ইউনিয়নের হোঁগলাগাও হাজি রিয়াজুল ইসলাম দারুচ্ছুন্নাত দাখিল মাদরাসায় প্রায় তিন কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মাণাধীন চারতলা ভবন নির্মাণে অবহেলা ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।
বিশাল এ প্রকল্পের শুরু থেকেই বিভিন্ন অনিয়ম (নিম্নমানের সুরকি, বালু এবং রড) লক্ষ্য করে উক্ত মাদরাসার কয়েক জন শিক্ষক ও এলাকাবাসি মাদরাসার সুপারিন্টেনডেন্ট আবুল বাশার তালুকদারকে জানালে তিনি জানান ভবনের শিডিউলে যেভাবে আছে সেভাবেই কাজ হচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রকল্পের তত্তাবধায়ক ইঞ্জিনিয়ার বেলায়াতের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন শিডিউলের বাইরে কোন কাজ হবে না। আপনারা চাইলে শিডিউল দেখতে পারেন।
কিন্তু মাদরাসার সুপার আবুল বাশার বা ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত কেউই শিডিউল দেখাননি। এভাবেই বিশাল এ ভবনের কাজ প্রায় শেষের দিকে চলে এসেছে। চতুর্থতলার ছাদ ঢালাই হয়েছে অনেক দিন হলো, এরই মধ্যে সকলের নজর পরে ছাদ চুইয়ে পানি জড়ছে কক্ষের ভেতর। এ বিষয়টি নিয়ে এলাকায় গুঞ্জন শুরু হয়।
পরে তা সাংবাকিদের নজরে এলে, সরেজমিনে ঘটনাটির সত্যতার প্রমাণ পাওয়া যায়।
এ ব্যাপারে মাদরাসার সুপার আবুল বাশার বলেন, আমি ছাদ চুইয়ে রুমে পানি পরার বিষয়ে অবগত হয়েছি। এটি ইঞ্জিনিয়ারের সাথে কথা বলে সমাধান করবো।
এ বিষয়ে ইঞ্জিনিয়ার বেলায়াত বলেন, এখানে কোনো দুর্নীতি হয়নি। পানি পরার বিষয়টি আমরা জানি, আমরা তা মেরামত করে দিবো।
বিশাল এ ভবনের নির্মাণের কাজ করছে স্বপ্ন কন্সট্রাকশন নামের একটি প্রতিষ্ঠান। স্বপ্ন কন্সট্রাকশনের মালিক রবিন মল্লিকের কাছে ছাদ চুইয়ে পানি পরার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা কোন ব্যাপার না, টাইলস বসিয়ে দিলে ঠিক হয়ে যাবে। তবে সে সাংবাকিদের প্রশ্নের মুখে স্বীকার করেন যে, এটা বড় ধরনের একটা ত্রæটি। ভবিষ্যতে যেন ভবনের কোন সমস্যা না হয় আমরা সে কাজ করে দেবো।
এলাকাবাসী এবং মাদরাসার শিক্ষকগণ বলেন, ছাদের ওপরে অতিরিক্ত আস্তর দিয়ে বা গ্যারাটিন দিয়ে সাময়িকভাবে পানি চুয়ানো বন্ধ্য করা হলেও তা বেশি দিন টেকসই হবেনা এবং পুনরায় পানি পরা শুরু হবে। এবং এতো টাকা ব্যায়ে নির্মিত ভবনটি বেশি দিন স্থায়ী হবেনা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন