Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৬ মাঘ ১৪২৮, ১৬ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানো জরুরি

সুচকিৎসা সম্পর্কে মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

দেশের শান্তি-স্থিতিশীলতার প্রয়োজনেই খালেদা জিয়াকে সুচিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর জরুরি বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, যদি সত্যিকার অর্থে দেশের শান্তি-স্থিতিশীলতা চান, গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে চান তাহলে বেগম খালেদা জিয়াকেই দরকার হবে। অন্যথায় কেউ এখানে শান্তি-স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে পারবে না। গতকাল রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়াকে দ্রুত বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠানোর দাবিতে স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে এই দাবি জানাচ্ছি। বার বার বলছি তাকে বিদেশে পাঠান চিকিৎসার জন্যে। কিন্তু আমরা বুঝি না, মাথাই আসে না- সমস্যাটা কোথায়? কেনো আইনের কথা বলছেন? আইন তো ভুল দেখাচ্ছেন আপনারা। অতএব তাকে পাঠিয়ে দিন।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। প্রতিদিন চিকিৎসকরা তার জীবন রক্ষার জন্য পরিশ্রম করছেন। তাকে শর্ত সাপেক্ষে আটক রাখার কারণটা কী?
বিএনপি মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়া যদি সুস্থ হয়ে জনগণের মধ্যে ফিরে আসেন, তাহলে এদের দুর্নীতি, গণবিরোধী কাজ-কর্ম, জনগণের অধিকার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আদায় করবেন। তার পেছনে মানুষ হেমিলনের বংশীবাদকের মতো আসবে সেজন্য তারা তাকে মুক্তি দিতে চান না, তার চিকিৎসা করাতে চান না। আইন দেখায়, ৪০১ ধারার আইন। ওই আইনেই তো পরিস্কার করে বলা আছে যে, সরকার শুধুমাত্র সরকারই পারে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠাতে। বহু উদাহরণ আছে। আসম আবদুর রবকে জার্মানিতে, আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ নাসিমকে সিঙ্গাপুরে পাঠানো হয়েছিলো চিকিৎসার জন্য। এই ৪০১ ধারাতেই আছে, আপনি পাঠাতে পারে। মিথ্যা কথা বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করে আপনি আইনের কথা বলছেন।”

হাফ ভাড়ার দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, শিক্ষার্থীদের জন্য সরকারি পরিবহনে ভাড়া কমানো হলেও বেসরকারি পরিবহনে কেনো হবে না? সরকার বলছে, আমরা বিআরটিসির ভাড়া তো কমালাম কিন্তু প্রাইভেট বাসের ভাড়া তো আমরা কমাতে পারবো না। তোমরা প্রাইভেট টেলিফোন, মোবাইল কন্ট্রোল করতে পারো, তোমরা প্রাইভেট সমস্ত কিছুই নিয়ন্ত্রণ করতে পারো ব্যবসা-বাণিজ্য। আর বাসের ভাড়া ছেলে-মেয়েদের জন্য কমিয়ে দিয়ে সেখানে যদি দুই হাজার-আড়াই হাজার টাকা ভর্তুকি দিতে হয় তা তোমরা দেবে না কেনো?

মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের ছেলে-মেয়েরা রাস্তায় দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করছে, ভাড়া কমাতে বলছে। তাদের লেখা-পড়া, শিক্ষা, উন্নত ভবিষ্যতের জন্য ছাত্র-ছাত্রীদের এই দাবির প্রতি সম্পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি এবং দাবি করছি যে, অনতিবিলম্বে তাদের ভাড়া কমিয়ে হাফ পাস ভাড়ার ব্যবস্থা করা হোক। প্রয়োজনে সরকার ভুর্তকী দেবে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের মা-বাবারা যারা নিম্ন মধ্যবিত্ত, মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ তারা হিমশিম খাচ্ছে। একদিকে চাল-ডাল-তেল-লবনের দাম বেড়ে গেছে। অন্যদিকে বইপত্রের দাম বেড়েছে। সেই সঙ্গে বাসভাড়া আরো বাড়িয়ে দিয়ে তাদেরকে একটা চরম বিপর্যয়ের মধ্যে ঠেলে দেয়া হয়েছে।

স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, যুগ্ম সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, সাদরেজ জামানের যৌথ সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আমান উল্লাহ আমান, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরাফত আলী সপু, সেলিমুজ্জামান সেলিম, যুব দলের সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, কৃষক দলের হাসান জাফির তুহিন, স্বেচ্ছাসেবক দলের গোলাম সারোয়ার, বিথিকা বিনতে হোসাইন, আনু মো. শাহিন, জামিল হাসান, এমদাদুল হক, ইয়াসীন আলী, এসএম জিলানী, ফখরুল ইসলাম রবিন প্রমূখ নেতারা বক্তব্য রাখেন।
এদিকে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার জন্য বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে ৩০ নভেম্বরের সমাবেশ সফল করতে স্বেচ্ছাসেবক দলের কার্যালয়ে স্বেচ্ছাসেবক দল কেন্দ্রীয় কমিটির সাথে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ, ঢাকা মহানগর উত্তর এবং ঢাকার পাশর্^বর্তী ৬টি মহানগর ও জেলার নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন- কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি গোলাম সরোয়ার। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন এভারকেয়ার হাসপাতালে। কারণ বাংলাদেশ, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র মানেই খালেদা জিয়া। বাংলাদেশ ও দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষায় এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য বেগম জিয়াকে মুক্ত করার আন্দোলনে নেতাকর্মীদের জীবনবাজী রেখে আন্দোলনে নামার আহ্বান জানান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মির্জা ফখরুল

১ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ