Inqilab Logo

শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

খুলনা ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ৩০ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৪ এএম

স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামী সোহান মোল্যাকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালতে। একই সঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ছয় মাসে সশ্রম করাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।
খুলনা জেলা ও দায়রা জজ-১ আদালত এর বিচারক মো. আশরাফ উদ্দিন গতকাল সোমবার দুপুরে এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আসামি সোহান ফুলতলা উপজেলার ডাউনকোনা এলাকার বাবুল মোল্যার ছেলে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে অভয়নগর উপজেলার কোটা পশ্চিমপাড়া এলাকার আতিয়ার শেখের মেয়ে সুমির সাথে ফুলতলা উপজেলার বাবুল মোল্যার ছেলে সোহানের বিয়ে হয়। এর ছয় মাস আগে সুমির সাথে তার ফুফাতো ভাই মিন্টুর বিয়ে হয়। কিন্তু পারিবারিক বনিবনা না হওয়ায় তাদের সে সংসার ভেঙ্গে যায়। দ্বিতীয় বিয়ের পর সুমি পূর্বের স্বামীর সাথে নিয়মিত মোবাইলে কথা বলত। যা নিয়ে তাদের দম্পত্য জীবনে প্রায় কলহ লেগে থাকত।

২০২০ সালের ১ মার্চ সুমি তার ছোট ভাই সুমন শেখের সাথে বাবার বাড়ি চলে আসে। এর আট দিন পর নিহতের শ্বাশুড়ি ফোন করে বাড়ি চলে আসতে বললে বড় ভাই সুজন শেখকে সাথে নিয়ে শ্বশুর বাড়িতে চলে আসে সে। ওই দিন রাতে সুমি মোবাইল ফোনে অপর এক ব্যক্তির সাথে ফোন কথা বলা অবস্থায় সোহান মোল্যার হাতে ধরা পড়ে। জিজ্ঞাসা করা মাত্র সুমি তাকে মারতে উদ্যত হয়। উভয়ের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। একপর্যায়ে সোহান মোল্যা তার গলা টিপে ধরে। জ্ঞান হারিয়ে ফেললে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয় সুমিকে। সেখানকার চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। পরবর্তীতে ঘটনাটি চাপা দেওয়ার জন্য বলা হয় সে বিষ খেয়ে মারা গেছে।

বিষয়টি নিহতের ভাইয়ের কাছে সন্দেহ হয়। তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন সুমির মুখ ও গলার দু’পাশে লাল দাগ রয়েছে। এ ঘটনায় তিনি ওই মাসের ১০ তারিখে ফুলতলা থানায় সোহান মোল্যাকে আসামিসহ আরও অজ্ঞাত তিন জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। একই বছরের ৪ জুলাই ফুলতলা থানার এস আই মো. বোরহান উদ্দিন সোহান মোল্যাকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যাবজ্জীবন


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ