Inqilab Logo

শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

ব্যালন ডি’অরের সপ্তম স্বর্গে মেসি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

অনেকটা অনুমিতই ছিল। ক্লাব ফুটবলে গেল মৌসুমটা আহামরি না কাটলেও জাতীয় দলের হয়ে দীর্ঘ শ‚ন্যতা ঘোচানোর মাঝেই আসল কাজটা সেরে রেখেছিলেন লিওনেল মেসি। দীর্ঘ ২৮ বছর শিরোপাখরা কাটিয়ে আর্জেন্টিনাকে জিতিয়েছিলেন কোপা আমেরিকা। আর তাতেই বর্ষসেরা ফুটবলারের লড়াইয়ে এগিয়ে যান অনেকটা। বাকি ছিল কেবল আনুষ্ঠানিকতা। মিলে গেল তার স্বীকৃতিও। সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ২০২১ সালের ব্যালন ডি’অর জিতে নিলেন পিএসজি তারকা।
গতপরশু রাতে প্যারিসের থিয়েটার ডু চ্যাটেলেটে এক জাঁকজমকপ‚র্ণ অনুষ্ঠানে ২০২১ সালের ব্যালন ডি’অর জিতে নিয়েছেন মেসি। আর তাতে নিজের রেকর্ড আরও সমৃদ্ধ করে সপ্তমবারের মতো জিতলেন এ পুরষ্কার। ২০০৯ সালে প্রথমবার জয়ের পর ২০১০, ২০১১, ২০১২, ২০১৫ ও ২০১৯ সালেও এই শ্রেষ্ঠত্বের স্মারক জিতেছিলেন এ মহাতারকা। গত বছর করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এ পুরস্কার দেওয়া হয়নি। তাতে রোনালদোর সঙ্গে ব্যালন ডি’অরের ব্যবধানটা বাড়ল আরও। পাঁচটি ব্যালন ডি’অর জিতেছেন পর্তুগিজ তারকা।
সাতবার! অমিত প্রতিভা ও অবিশ্বাস্য ধারাবাহিকতার মিশেলে বিষ্ময়সূচক চিহৃটি তার নামের সঙ্গে সব সময়ই লেপ্টে থাকে। প্যারিসেও সে বিষ্ময় ধরে রাখলেন সপ্তমে নিয়ে। ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিনের দেওয়া গত বছরের সেরা খেলোয়াড়ের এ পুরস্কার জয়ের দৌড়ে ফেবারিট ছিলেন পিএসজির আর্জেন্টাইন এ তারকা। রবার্ট লেভান্দোভস্কি এই পুরস্কার জয়ে ছিলেন মেসির নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী। লড়াইটা শুধু এই দুজনের মধ্যেই দেখেছেন বেশির ভাগ বিশ্লেষক। শেষ পর্যন্ত ভোটাভুটিতে লেভান্দোভস্কিকে হারিয়ে নিজের সর্বোচ্চসংখ্যক ব্যালন ডি’অর জয়ের রেকর্ডকে আরও এক ধাপ উঁচুতে নিয়ে গেলেন ৩৪ বছর বয়সী মেসি। পাঁচবার ব্যালন ডি’অর জেতা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো এবার ষষ্ঠ হয়েছেন।
সংক্ষিপ্ত পাঁচজনের তালিকায় উঠে আসেন মেসি, লেভান্দোভস্কি, জর্জিনিও, করিম বেনজেমা ও এনগোলো কান্তে। এই পাঁচ খেলোয়াড়ের মধ্যে সাংবাদিকদের সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে পুরস্কারটি জিতলেন মেসি। দ্বিতীয় হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেভান্দোভস্কিকে। তৃতীয় চেলসির ইতালিয়ান মিডফিল্ডার জর্জিনিও।
গত মৌসুমের শুরু থেকে এ পর্যন্ত বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে ৬০ ম্যাচে ৭৩ গোল করা লেভান্দোভস্কি ২০২০ সালে ফিফা ও উয়েফার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতেন। মেসি গত জুলাইয়ে কোপা আমেরিকা জেতেন আর্জেন্টিনার হয়ে। দেশের হয়ে এটাই তার প্রথম শিরোপা। আগস্টে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দেওয়ার আগে কাতালান ক্লাবটিকে জেতান কোপা দেল রে। এ বছর ৪০ গোল করেছেন মেসি। এর মধ্যে ২৮ গোল বার্সার হয়ে, ৪ গোল পিএসজির হয়ে এবং ৮ গোল করেছেন আর্জেন্টিনার জার্সিতে। সর্বোচ্চ ৬১৩ পয়েন্ট পেয়ে নিজের এই পারফরম্যান্সের পুরস্কার জিতলেন মেসি। সেরা স্ট্রাইকারের পুরস্কার জেতা লেভা ৫৮০ ভোট পেয়ে বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের দৌড়ে দ্বিতীয় হন। চেলসির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ইতালির হয়ে ইউরোজয়ী জর্জিনিও ৪৬০ পয়েন্ট পেয়ে তৃতীয়। বেনজেমা চতুর্থ এবং পঞ্চম কান্তে।
বর্ষসেরার পুরস্কার হাতে নিয়ে মেসি বলেন, ‘এখানে আবার আসতে পারাটা অবিশ্বাস্য। দুই বছর আগেও ভেবেছিলাম এবারই শেষ। মানুষ আমাকে প্রশ্ন করছিল আমি কবে অবসরে যাবো কিন্তু এখন আমি প্যারিসে আছি এবং খুবই খুশি।’ কোপা আমেরিকা জয়ের উচ্ছ¡াসের কথাও প্রকাশ করেছেন এলএম৩০, ‘আমার কাছে মারাকানা স্টেডিয়ামে কোপা আমেরিকা জয় এবং আর্জেন্টিনার মানুষের সাথে উদযাপন করাটা অনেক বড় ব্যাপার। আমি জানি না এটাই আমার সেরা বছর কি না। লম্বা ক্যারিয়ার আমার। তবে আর্জেন্টিনার হয়ে কঠিন সময় ও সমালোচনার পর শিরোপা জয়ের সাথে এই পুরষ্কারটা বিশেষ কিছু। কোপা আমেরিকা জয়ই চাবিকাঠি।’ লিওনেল মেসি রানার আপ হওয়া লেভান্দোভস্কিরও প্রশংসা করে বলেছেন, গতবার পুরষ্কার দেয়া হলে তিনিই জিততেন, ‘সবাই জানে এবং আমরাও একমত যে তুমিই গত বছর এ পুরস্কার জিতেছ।’
মেয়েদের বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতেছেন বার্সেলোনাকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতানো অ্যালেক্সিয়া পুতেল্লাস। গত মৌসুমটা স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডারের স্বপ্নের মতোই কাটে। স্পেনের শীর্ষ ঘরোয়া লিগ জয়ের পাশাপাশি বার্সেলোনার জার্সিতে তিনি জেতেন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। ইউরোপ সেরা প্রতিযোগিতার ফাইনালে তার নেতৃত্বেই চেলসির বিপক্ষে ৪-০ ব্যবধানে জেতে বার্সেলোনা। ওই ম্যাচে একটি গোলও করেন তিনি। ২০২০-২১ মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে মিডফিল্ডারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ২৬ গোল করেন পুতেয়াস। চোখ ধাঁধানো পারফরম্যান্সের জন্য উয়েফার বর্ষসেরা নারী খেলোয়াড় ও মিডফিল্ডারের পুরস্কারও জেতেন তিনি।
সেরা উদীয়মান ফুটবলারের পুরস্কার ‘কোপা অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন বার্সেলোনার স্প্যানিশ মিডফিল্ডার পেদ্রি। ১৮ বছর বয়সে সিনিয়র ফুটবলে অভিষেকেই আলোড়ন সৃষ্টি করেন তরুন এই মিডফিল্ডার। অসাধারণ ধারাবাহিকতায় ২০২০-২১ মৌসুমে বার্সেলোনা ও স্পেনের (ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ ও টোকিও অলিম্পিকস) হয়ে মোট ৭৩টি ম্যাচ খেলেন, অবিশ্বাস্য! সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার ‘ইয়াশিন ট্রফি’ জিতেছেন ইতালির ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা রাখা জিয়ানলুইজি দোন্নারুম্মা। জুন-জুলাইয়ের ইউরোপ সেরার আসরে সেরা গোলরক্ষকও হয়েছিলেন গত জুনে এসি মিলান ছেড়ে পিএসজিতে যোগ এই ইতালিয়ান ‘প্রচীর’। আর বর্ষসেরা ক্লাবের পুরস্কার জিতেছে ইংলিশ দল চেলসি।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন