Inqilab Logo

শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

ভারতে জাল পাসপোর্ট ও পরিচয়পত্রসহ ৪০ বাংলাদেশি আটক

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ ডিসেম্বর, ২০২১, ৯:৫৭ এএম | আপডেট : ১০:৪১ এএম, ২ ডিসেম্বর, ২০২১

ভারতে অবৈধভাবে অবস্থানের দায়ে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্র থেকে ৪০ জন বাংলাদেশিকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) মুম্বাইয়ের ভিওয়ান্ডি ও এর আশপাশের এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।
বৈধ কোনো কাগজপত্র ছাড়াই তারা ভারতে বসবাস করছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। বুধবার (১ ডিসেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএনআই এবং সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউ।
ভারতীয় এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, মুম্বাইয়ের পার্শ্ববর্তী থানে জেলার অধীনস্থ ভিওয়ান্ডি শহর ও এর আশপাশের এলাকা থেকে ওই ৪০ বাংলাদেশিকে আটক করা হয়। এসময় অভিযুক্তদের অনেকের কাছ থেকে জাল পাসপোর্ট ও পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়।
ভিওয়ান্ডি শহরের জোন-২ এর ডেপুটি কমিশনার অব পুলিশ (ডিসিপি) যোগেশ চভন সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, আটককৃত বাংলাদেশিরা বিভিন্ন স্থানে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন এবং তিনটি পৃথক পুলিশ স্টেশনের অধীনস্থ এলাকায় বসবাস করতেন।
তিনি জানান, আটককৃতদের ভারতে অবস্থানের কোনো বৈধ কাগজপত্র নেই। আর তাই আটকের পর তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় পাসপোর্ট আইনে এবং বিদেশি নাগরিক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বেশ কয়েকটি তল্লাশি অভিযানের মাধ্যমে অভিযুক্তদের আটক করা হয়।
টাইমস নাউ সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, মুম্বাইয়ের শান্তিনগর এলাকা থেকে মোট ২০ জন বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছে। অন্যদিকে ভিওয়ান্ডি শহর এবং নারপোলি পুলিশ স্টেশন এলাকা থেকে ১০ জন করে বাংলাদেশিকে মঙ্গলবার আটক করা হয়।
আটকের সময় ওই ৪০ বাংলাদেশির কাছ থেকে জাল পাসপোর্ট, ভুয়া আধার কার্ড এবং প্যান (পার্মানেন্ট অ্যাকাউন্ট নাম্বার) কার্ড উদ্ধার করা হয়। এছাড়া তাদের কাছ থেকে ২৮টি মোবাইল ফোনও উদ্ধার করে পুলিশ। যার মূল্য ৯৪ হাজার ভারতীয় রুপি।
সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, উদ্ধারকৃত এসব ভুয়া নথিপত্রে মুম্বাই, গুজরাট এবং ভিওয়ান্ডির বিভিন্ন ঠিকানা ব্যবহার করেছিলেন আটককৃত বাংলাদেশিরা। এছাড়া তারা রেশন কার্ডও তৈরি করে ফেলেছিলেন। এর মাধ্যমে রাজ্যের দরিদ্র মানুষের মতো তারাও সুবিধা ভোগ করছিলেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
এর আগে গত ২৩ নভেম্বর মহারাষ্ট্রের নাগপুরের রেল স্টেশনের একটি ট্রেন থেকে ১৩ বাংলাদেশিকে আটক করে পুলিশ। তারা সবাই বাংলাদেশের নাগরিক এবং ভারতে পাচারের শিকার হয়েছিলেন।
আটককৃত ১৩ বাংলাদেশির মধ্যে ৯ জন নারী, তিন শিশু এবং একজন অল্পবয়সী যুবক ছিলেন। তারা ভুয়া পরিচয়পত্র নিয়ে ভারতে প্রবেশ করেছিলেন এবং ট্রেনে করে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতা থেকে মুম্বাই যাওয়ার পথে নাগপুর রেল স্টেশন থেকে আটক হন। সূত্র : এএনআই, টাইমস নাউ।



 

Show all comments
  • ash ২ ডিসেম্বর, ২০২১, ১:৫৭ পিএম says : 0
    EDER KAWKE DEKHE BANGLADESHI MONE HOY NA !
    Total Reply(0) Reply
  • Hm Imam Hossain ২ ডিসেম্বর, ২০২১, ৫:৫৬ পিএম says : 0
    এরকম একটা অভিযান বাংলাদেশেও হয়ে যাক, দেখা যাক কাগজপত্র ছাড়া কতজন ভারতীয় মোদের দেশে পাওয়া যায়।
    Total Reply(0) Reply
  • Momin Mon ২ ডিসেম্বর, ২০২১, ৫:৫৬ পিএম says : 0
    সঠিক পরিচয় নিশ্চিত করা ছাড়া কোন নাগরিককে কোন দেশ থেকে বাংলাদেশ গ্রহণ করা একেবারেই উচিত হবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Wilfred Quiah ২ ডিসেম্বর, ২০২১, ৫:৫৭ পিএম says : 0
    এদের চেহেরা এবং গায়ের রং দেখে এরা লেবার হিসাবে কাজ করতো তো মনেহয়না। এরা সব ভারতীয়, দেখানোর জন্য এইসব। এদের এখন বলা হবে জেল হয়েছে আমরা কয়মাস পরে ভুলে যাবো। বাংলাদেশে যে বারো লক্ষ ভারতীয় কাজ আর ব্যাবসা করেছে তার কাউন্টার হিসাবে এই সব। অনেক ভারতীয় অনেক ব্যাবসায় জড়িত, শুধু ব্যাবসা করলে তাহলেও হতো, কিন্তু তারা অপরাধের সাথেও জড়িত। আমাদের কিছু বাংলাদেশী এদেরকে প্রটেকশন দেয়াতে এরা সবসময় ধারা ছোয়ার বাইরে থেকে যায়।
    Total Reply(0) Reply
  • Golam Mostafa Akanda ২ ডিসেম্বর, ২০২১, ৫:৫৮ পিএম says : 0
    বাংলাদেশে অবৈধ ভারতীয় অভিবাসীদের আইনের আওতায় আনতে প্রশাসনের পদক্ষেপ জরুরি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ