Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৪ মাঘ ১৪২৮, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০৭ এএম

প্রশ্ন : ফেরাউন শব্দের অর্থ কি? বিভিন্ন নবীর সময় ফেরাউনের অস্তিত্ব পাওয়া যায়, তারা কি সবাই একই ব্যক্তি না ভিন্ন ভিন্ন?
উত্তর : প্রাচীণ মিসরের কিবতি বা মৎসজীবী সম্প্রদায়ের শাসক বংশের উপাধি ফেরাউন। ইংরেজিতে এদের ফারাও বলা হয়। ফেরাউন শব্দটি ফারউন শব্দ থেকে নির্গত। এর অর্থ শাখা-প্রশাখা। ফেরাউন শব্দের মর্মগত অর্থ রাজবংশের শাখা তথা উত্তরাধিকারী। পরিভাষায় : প্রাচীন মিসরের রাজপুরুষ। ইতিহাসে যতজন ফেরাউনের উল্লেখ রয়েছে এরা প্রত্যেকেই ভিন্ন ভিন্ন ব্যক্তি। বলা হয়, হজরত মূসা আ. এর জীবনেই দু’জন ফেরাউনের সাথে তার সংগ্রাম করতে হয়েছিল। প্রাচীন ইতিহাস গ্রন্থে ফেরাউনদের নামের একটি তালিকা পাওয়া যায়, তবে এসবের ওপর পূর্ণ নির্ভর করা যায় না। কারণ এ পর্যায়ে ইতিহাস অনেকাংশেই জনশ্রুতি বা কিংবদন্তি নির্ভর হয়ে থাকে।
প্রশ্ন : একটি ক্লিনিকে আমার বাবার চিকিৎসা করিয়েছিলাম। মোট বিল সাত কি আট হাজার টাকা হয়েছিল। যেটা আমার কাছে বেশি মনে হয়েছিল এবং অনেকটা অমানবিকও। রিলিজ নেয়ার সময় দুই হাজার টাকা কম ছিল। তখন একজনকে জামিন রেখে মানে যে ডাক্তার দেখিয়েছি, তাকে জামিন রেখে চলে আসি। সে টাকা আজো দেয়া হয়নি। এখন টাকাটা ডাক্তারকে দেবো, নাকি ক্লিনিককে দেবো বুঝতে পারছি না । তবে এখনো রাগ হয়, কারণ এক রাত ক্লিনিকে থেকে এত বিল হওয়ার কথা নয়। শুধুমাত্র হাতভাঙা ব্যান্ডেজ করেছিল। তাই এতদিন টাকাটা দেয়া হয়নি। দয়া করে জানাবেন।
উত্তর : যতই অমানবিক মনে হোক, পাওনাদারের টাকা দিতেই হয়। বিশেষ করে কাউকে জামিন বানালে তাকে উদ্ধার করতে হয়। ওয়াদা দিলে তার বরখেলাপ করা যায় না। আপনার ও আপনার মতো শত শত লোকের কষ্ট আমি বুঝি, কিন্তু শরীয়ত অনুযায়ী আগে দরদাম না করে কোনো কাজ করলে তখন পাওনাদারের চাহিদা পূরণ করতে মানুষ বাধ্য থাকে। বিশেষ করে যেখানে কোনো সুবিচার ও বিবেচনার কর্তৃপক্ষ না থাকে।
যারা মানুষকে জিম্মি করে বা তাদের বেকায়দা অবস্থার সুযোগ নিয়ে অধিক উপার্জন করে তাদের ওপর লা’নত এসেছে। তবে আপনি সেই ডাক্তারকে দুই হাজার টাকা দিতে বাধ্য। ডাক্তারকে আপনি আপনার কষ্টের কথা নরম ভাষায় বোঝান। এতে যদি তিনি ক্লিনিককে কম নিতে বা টাকা ছেড়ে দিতে রাজি করাতে পারেন, তাহলে আপনার সুবিধা হবে। যদি এমন না হয় তাহলে ধৈর্য ধরে টাকা পরিশোধ করে দিন। অন্যায় করলে তারা করুক, আপনি কেন গুনাহর ভাগি হবেন?



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম

১৫ জানুয়ারি, ২০২২
১৫ জানুয়ারি, ২০২২
১৪ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ