Inqilab Logo

শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ০৭ মাঘ ১৪২৮, ১৭ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

চীনকে দুঃসংবাদ ‘দিলেন’ পেং শুয়াই!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

চীনের টেনিস তারকা পেং শুয়াইয়ের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের কারণ দেখিয়ে দেশটি থেকে উইমেন্স টেনিস অ্যাসোসিয়েশনের (ডব্লিউটিএ) সব টুর্নামেন্ট প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। গতপরশু রাতে এক বিবৃতিতে এই ঘোষণা দেয় ডব্লিউটিএ। চীনের ভাইস-প্রিমিয়ার ঝাং গাওলির বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ তোলার পর প্রায় তিন সপ্তাহ জনসম্মুখে দেখা যায়নি ৩৫ বছর বয়সী পেংকে। ডব্লিউটিএ-এর প্রধান স্টিভ সিমন বিবৃতিতে পেংয়ের ‘নিরাপত্তা’ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, এই অ্যাথলেটের ‘মুক্ত ও নিরাপদ’ থাকার ব্যাপারে সন্দেহ আছে তার, ‘এমন অবস্থায় আমি কীভাবে সেখানে (চীন) অ্যাথলেটদের খেলার জন্য বলতে পারি।’
ডব্লিউটিএ শুরু থেকে বারবার পেংয়ের অভিযোগের বিষয়ে পূর্ণ তদন্তের আহ্বান জানিয়ে আসছে। কিন্তু চীনের উচ্চ পর্যায় থেকে এখনও এ বিষয়ে সুনিশ্চিত করে কিছু বলা হয়নি।
চীনের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ওয়েইবোয় গত ২ নভেম্বর এক পোস্টে টেনিস দ্বৈতের সাবেক নাম্বার ওয়ান পেং অভিযোগ তোলেন, তিন বছর আগে তাকে চীন সরকারের ওই উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা তার ও তার স্ত্রীর সঙ্গে টেনিস খেলতে আমন্ত্রণ জানান। বাড়িতে ডাকার পর তার সঙ্গে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক গড়েন ঝাং। একই সঙ্গে আগে ঝাংয়ের সঙ্গে তার একটা সম্পর্ক ছিল বলেও জানান পেং। বিস্তারিত ওই পোস্টে পেং আরও বলেন, নিজের অভিযোগের পক্ষে কোনো প্রমাণ তিনি দেখাতে পারবেন না। তবে সেই বিষয়ে কথা বলতে তার আপত্তি নেই।
টেনিস বিশ্বকে নাড়িয়ে দেওয়া ওই পোস্ট আধ ঘণ্টা পরই সরিয়ে ফেলা হয়। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত ঝাং কিংবা চীন সরকারের পক্ষ থেকে পেংয়ের অভিযোগের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। আলোচিত ওই পোস্টের পর পেংয়ের পক্ষ থেকে আর কিছুই বলা হয়নি। তিন সপ্তাহ জনসম্মুখেও তাকে দেখা যায়নি। মূলত এ কারণেই তার বর্তমান অবস্থা নিয়ে মানুষের মনে শঙ্কা জাগে। অবশ্য গত ২১ নভেম্বর আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির (আইওসি) প্রেসিডেন্টকে ভিডিও কলে পেং বলেন, তিনি ‘নিরাপদ’ ও ‘ভালো’ আছেন। ৩০ মিনিটের ওই ভিডিওতে পেংকে ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে হাসতেও দেখা যায়। তবে ডব্লিউটিএ বলছে, ভিডিওটি পেংয়ের নিরাপত্তার ‘পর্যাপ্ত প্রমাণ’ নয়। দীর্ঘ বিবৃতিতে সিমন বলেন, ২০২২ সালে চীনে কোনো ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হলে খেলোয়াড় ও স্টাফরা ঝুঁকির মুখে পড়তে পারে ভেবে তিনি ‘খুবই উদ্বিগ্ন।’
করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে গত দুই বছর ধরে চীনে কোনো ডব্লিউটিএ ইভেন্ট হয়নি। ২০১৯ সালে মৌসুম শেষের টুর্নামেন্ট ডব্লিউটিএ ফাইনালসহ দেশেটিতে আটটি ইভেন্ট হয়েছিল। চাইনিজ তাইপের শে সু-ওয়ের সঙ্গে জুটি বেঁধে ২০১৩ উইম্বলডন ও ২০১৪ ফরাসি ওপেনের দ্বৈতে শিরোপা জয়ী পেং ২০১৪ ইউএস ওপেনের এককে সেমি-ফাইনালেও উঠেছিলেন। ২০২০ সালের মার্চের পর ডব্লিউটিএ-এর কোনো টুর্নামেন্টে খেলেননি তিনি।
পেংয়ের ওই অভিযোগ চীনের ‘হ্যাশট্যাগ মি টু’ মুভমেন্টে সবচেয়ে বড় ও আলোচিত ঘটনা। ২০১৩ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত দেশটির ভাইস-প্রিমিয়ারের দায়িত্ব পালন করা এবং প্রেসিডেন্ট শি জিংপিংয়ের ঘনিষ্ঠ ৭৫ বছর বয়সী ঝাং এই অভিযোগের বিষয়ে এখনও কিছুই বলেননি। পরে চাইনিজ পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান এ বিষয়ে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে তিনি কিছু জানেন না। তখনই ডব্লিউটিএ বলেছিল, পেংয়ের অভিযোগের বিষয়ে চীনের কর্তৃপক্ষের জবাব সন্তোষজনক না হলে আগামী বছর সেখানে অনুষ্ঠেয় ১০টি টুর্নামেন্ট তারা সেখান থেকে সরিয়ে নেবে। সেটিই করল তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পেং শুয়াই
আরও পড়ুন