Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৪ মাঘ ১৪২৮, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

বিবাহবহিভূত সম্পর্ক গোপন রাখতে প্রবাসীর স্ত্রীকে হত্যা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০৬ এএম

সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার বাসিন্দা পরিবহন কর্মচারী বাবার ৬ মেয়ে ও দুই ছেলের মধ্যে খুশি বেগম (১৫) সবার ছোট। সিলেটের ইউসুফ নামে এক লন্ডন প্রবাসীর সঙ্গে দুই বছর আগে মোবাইলফোনে বিয়ে হয় তাদের। তবে এ সম্পর্কের বাইরে একই এলাকার মহিউদ্দিন (২২) নামে এক যুবকের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ওঠে তার। একপর্যায়ে বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে খুশি। কিন্তু মহিউদ্দিন বিয়েতে নারাজ। বিয়েতে অস্বীকৃতি জানালে খুশি সম্পর্কের কথা ফাঁস করার হুমকি দেয়। সম্মানহানির ভয়ে মহিউদ্দিন গত ১৭ নভেম্বর খুশি বেগমকে কৌশলে বাড়ি থেকে ডেকে পার্শ্ববর্তী ধান ক্ষেতে নিয়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়।
ওই ঘটনার পর খুশির পরিবার নিখোঁজের জিডি করে। তিন দিন পর ধান ক্ষেত থেকে ওই কিশোরীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ক্লুলেস হত্যাকা-ের রহস্য উন্মোচনসহ ঘটনার মূল অভিযুক্ত মহিউদ্দিনকে গ্রেফতার করে সিআইডির এলআইসি শাখার একটি দল। গতকাল রাজধানীর মালিবাগ সিআইডি সদর দফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর।
তিনি বলেন, গত ১৭ নভেম্বর নিখোঁজ হয় ছাতকের গৌরীপুরের খুশি বেগম (১৫)। সে মুক্তিরগাঁও হাফিজিয়া মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ছিল। নিখোঁজের বিষয়ে দুই দিন পর তার বাবা ছাতক থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ২১ নভেম্বর সকালে প্রত্যক্ষদর্শীদের দেওয়া খবরের ভিত্তিতে গ্রামের একটি ধান ক্ষেত থেকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় খুশি বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
স্থানীয় থানা পুলিশ সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ হাসপাতালে পাঠায়। ওই ঘটনায় নিহতের বাবা অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।
এ ঘটনায় গুরুত্বের সঙ্গে সিআইডি ছায়া তদন্ত শুরু করে।
সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর বলেন, সংগৃহীত বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিচার বিশ্লেষণ করে আসামিকে শনাক্ত করা হয়। তিনি বলেন, সিলেট শহর এলাকার ইউসুফ নামে এক লন্ডন প্রবাসীর সঙ্গে প্রায় ২ বছর আগে পরিবারের সম্মতিতে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ভিকটিম খুশির বিয়ে হয়। স্বামীর অবর্তমানে একই এলাকার মো. মহিউদ্দিনের সঙ্গে খুশি বেগমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সব বিষয়াদি যাচাই বাছাই করে এই ক্লুলেস হত্যাকা-ের সঙ্গে মহিউদ্দিনের সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যায়। পরবর্তীতে এলআইসি শাখার একটি চৌকস দল মহিউদ্দিনকে গ্রেফতার করে।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার মহিউদ্দিন খুশি বেগমের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক স্বীকার করেছেন। তিনি জানান, খুশি বেগম তাকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিচ্ছিল। বিয়েতে অস্বীকৃতি জানালে তাদের সম্পর্কের বিষয়টি ফাঁস করার হুমকি দেয় খুশি। এরই জেরে পরিকল্পিতভাবে ১৭ নভেম্বর রাতে খুশি বেগমকে কৌশলে বাড়ি থেকে ডেকে পার্শ্ববর্তী ধান ক্ষেতে নিয়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন তিনি।



 

Show all comments
  • Abu Zahid ৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৭:০৫ এএম says : 0
    বিবাহ বহির্ভূত প্রেমের সম্পর্ক‌ই বর্তমান যুগের সংসারে অশান্তির মূল কারণ।
    Total Reply(0) Reply
  • Gobin Das ৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৭:০৫ এএম says : 0
    পরকীয়া যতদিন থাকবে, এমন ঘটনা চলতেই থাকবে. অবিলম্বে পীরকীয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার. স্বামী বা স্ত্রী কেউ একে অপরকে ধোঁকা দিলে মেনে নেওয়া যায়না.
    Total Reply(0) Reply
  • Krishna Mukherjee ৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৭:০৬ এএম says : 0
    যার যতো ই দোষ থাকুক খুন,,, আত্মহত্যা,, একেবারেই গ্রহন যোগ্য নয়
    Total Reply(0) Reply
  • সত্য উন্মোচন ৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৭:০৬ এএম says : 0
    পরকীয়া যত দিন যাচ্ছে বেড়ে চলেছে এই বাজে নোংরা খারাপ পরকীয়া কে বন্ধ করবার জন‍্য প্রতিবাদ করা হোক বিয়ে হয়ে যাবার পর অন্যের প্রতি আকষন এটা ঠিক না কত কি খারাপ হচ্ছে এই পরকীয়ার জন‍্য সমাজকে খারাপ করছে এই পরকীয়া
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ