Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৪ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

স্ত্রীর হাত কর্তনে, স্বামীসহ ৪ জনের কারাদন্ড

ঝিনাইগাতী (শেরপুর) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৪২ পিএম | আপডেট : ৬:৪৪ পিএম, ৫ ডিসেম্বর, ২০২১

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে স্ত্রীর হাত কেটে নেয়ার অভিযোগে স্বামীসহ ৪ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। রবিবার বিকালে শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান এ রায় দেন।
দন্ডপ্রাপ্তরা হলো- ঝিনাইগাতী বাজারের কসাইপাড়া এলাকার কুদরত আলীর ছেলে লিটন মিয়া, তার তিনভাই রিপন মিয়া, উজ্জ্বল মিয়া ও নূর ইসলাম।
আদালত স্বামী লিটন মিয়াকে ১২ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ১ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ, রিপন, উজ্জ্বল ও নূর ইসলামকে ৩ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড ও ২৫ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণ প্রদানের আদেশ দেন।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালে শেরপুর সদর উপজেলার বাদাতেঘরিয়া গ্রামের মৃত চান মিয়ার মেয়ে কুলসুম বেগমের সঙ্গে ঝিনাইগাতী উপজেলার কুদরত আলীর ছেলে কসাই লিটনের বিয়ে হয়। বিয়ের ৯-১০ মাস যেতে না যেতেই কুলসুমকে বাবার বাড়ি থেকে এক লাখ টাকা যৌতুক এনে দিতে বলে লিটন। টাকা আনতে না পারায় পিতৃহীন কুলসুমের উপর চলতো নানা নির্যাতন। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ১৩ জুন বিকেলে স্বামী লিটন ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুলসুমকে কুপিয়ে তার ডান হাত বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। লিটনের ৩ ভাই রিপন, উজ্জ্বল ও নূর ইসলাম ও কুলসুমকে শরীরের বিভিন্নস্থানে কুপিয়ে মারাত্বকভাবে জখম করেন।
এ ঘটনায় কুলসুম বাদী হয়ে ২০১৮ সালের ৩ জুলাই স্বামী লিটনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন। মামলার তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ৩১ আগস্ট ঝিনাইগাতী থানার তৎকালীন ওসি বিপ্লব কুমার বিশ্বাস আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আদালত রবিবার ( ৫ নভেমাবর ) এ রায় দেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কারাদন্ড

১১ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ