Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৬ মাঘ ১৪২৮, ১৬ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

মোহামেডানের বিদায়, শেষ আটে সাইফ-সেনাবাহিনী

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ১০:৫৫ পিএম

ঘরোয়া ফুটবলের মৌসুমসূচক টুর্নামেন্ট স্বাধীনতা কাপ থেকে বিদায় নিয়েছে ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। টুর্নামেন্টের শেষ আটে জায়গা পেয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা পেতে ‘সি’ গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচে সাইফের বিপক্ষে জয়ের বিকল্প ছিলনা মোহামেডানের। কিন্তু তারা তা অর্জন করতে পারেনি। সোমবার রাতে কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে গ্রুপের শেষ ম্যাচে মোহামেডান ১-১ ব্যবধানে সাইফের সঙ্গে ড্র করে সমর্থকদের হতাশ করেছে।
এই ড্রতে স্বাধীনতা কাপের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হলো মোহামেডানকে। বিপরীতে তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট পেয়ে ‘সি’ গ্রুপ সেরা হয়েই শেষ আটে উঠলো সাইফ। একটি করে জয়, ড্র ও হারে সমান ৪ পয়েন্ট করে পেয়েছে মোহামেডান ও সেনাবাহিনী। তবে হেড টু হেডের হিসাবে ছিটকে গেছে মোহামেডান। তাদের হতাশ করে শেষ আটে জায়গা করে নিয়েছে সেনাবাহিনী।
সোমবার ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল উপহার দেয় সাইফ। ১৩ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো তারা। নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এমেকা ওগবাগের বক্সের বাইরে থেকে জোরালো শট ঝাঁপিয়ে পড়ে ফেরান মোহামেডান গোলরক্ষক আহসান হাবিব বিপু। চার মিনিট পর বক্সের বাইরে থেকে মারাজ হোসেনের শট একইভাবে আটকান বিপু। প্রথমার্ধের শেষ দিকে আর জাল অক্ষত রাখতে পারেননি মোহামেডান। ৪৫ মিনিটে ফয়সাল আহমেদ ফাহিমের দারুণ লম্বা ক্রসে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দারুণ ভলিতে গোল করেন সাইফের নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এমফন উদোহ (১-০)। এক গোলে পিছিয়ে বিরতিতে গিয়ে ঠিকই ম্যাচে ফিরেছে মোহামেডান। কিন্তু জয় পায়নি।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে মোহামেডানের মালির ফরোয়ার্ড সুলাইমানে দিয়াবাতের হেড ফেরান সাইফ গোলরক্ষক মিতুল হোসেন। ৫৩ মিনিটে সাইফও চেষ্টা করে ব্যবধান বাড়ানোর। সতীর্থের আড়াআড়ি ক্রসে শাহেদ পা ছোঁয়ানোর আগেই বিপু ছুটে এসে বল ক্লিয়ার করলে ব্যবধান বাড়েনি।
পাঁচ মিনিট পর দুই দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। ফলে সাইফের আশরর গফুরভ ও মোহামেডানের ইয়াসমিন মেসিনোভিচকে হলুদ কার্ড দেখিয়ে সতর্ক করেন রেফারি। এরপর গোল পেতে মরিয়া হয়ে লড়ে সাদাকালোরা। কিন্তু সাইফের রক্ষণভাগের দৃঢ়তায় গোল পায়না তারা। অবশেষে দেখা মেলে গোলের। ম্যাচের যোগকরা সময়ে (৯০+১ মিনিট) কর্নার থেকে হেডে দলকে সমতায় ফেরান মেসিনোভিচ (১-১)। কিন্তু কোন লাভ হয়নি। ম্যাচে সমতা আসার পরপরই শেষ বাঁশি বাজান রেফারি।
এদিন বিকালে এই গ্রুপের আরেক ম্যাচে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ১-১ ব্যবধানে ড্র করে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রের বিপক্ষে। মুক্তিযোদ্ধার মিশরের ফরোয়ার্ড আইমান আহমেদ ও সেনাবাহিনীর সামিউল হক একটি করে গোল করেন।

 

 

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন