Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

‘বঙ্গবন্ধু দেশে আবহাওয়া বিজ্ঞানের উন্নয়নে দূরদর্শী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলেন’

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ১১ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০১ এএম

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের আবহাওয়া বিজ্ঞানের উন্নয়নে দুরদর্শী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভিসি প্রফেসর ড. মো.আখতারুজ্জামান।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের আবহাওয়া বিজ্ঞানের উন্নয়নে দুরদর্শিতার স্বাক্ষর রেখে গেছেন। দূর্যোগ মোকাবেলা ও দেশের সার্বিক উন্নয়নে আবহাওয়ার পূর্বাভাস জান-মাল রক্ষাসহ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে, যা তিনি সর্বদাই উপলব্ধি করতেন। এজন্যই বঙ্গবন্ধু ১৯৭৫ সালে রাঙামাটির বেতবুনিয়ায় দেশের ১ম ভূ-উপগ্রহ স্থাপন করেছিলেন।

গতকাল শুক্রবার ঢাবির আবহাওয়া বিজ্ঞান বিভাগের মিলনায়তনে ‘আবহাওয়া ও জলবায়ু বিজ্ঞান’ শীর্ষক দু’দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিসি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবহাওয়া বিজ্ঞান বিভাগ ও বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের যৌথভাবে এই সম্মেলন আয়োজন করে।

আবহাওয়া বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারপার্সন ও আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. তৌহিদা রশীদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রো-ভিসি (শিক্ষা) প্রফেসর ড. নাসরীন আহমাদ, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আজিজুর রহমান এবং এনপিআই ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের ভিসি প্রফেসর ড. ডি. এ. কাদির বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন।

প্রফেসর ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত স্বপ্ন পূরণে তাঁর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এদেশের ১ম উপগ্রহ ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট’ চালু হয়েছে। এই অনন্য অর্জনের মাধ্যমে আবহাওয়া ও জলবায়ুর পূর্বাভাস পেতে এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আমরা অনেক ধাপ এগিয়ে গেছি।


তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বিশ্ব সম্পধদায়ের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার বিকল্প নেই। আবহাওয়া ও জলবায়ুর পরিবর্তনের সঠিক পূর্বাভাস পেতে মৌলিক গবেষণা ও উদ্ভাবন বৃদ্ধি করতে হবে। এই সম্মেলনে লব্ধ জ্ঞান নীতিনির্ধারক, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থা এবং গবেষকবৃন্দের সংশ্লিষ্ট বিষয়ে শিক্ষা-গবেষণায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে ভিসি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
সম্মেলনে ভারত, চীন, নেপাল, ভুটান, জাপান, মিশর, বেলজিয়াম, অস্টেলিয়া ও আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশের শিক্ষক, গবেষক, নীতিনির্ধারক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ অংশ নেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ