Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

পুলিশের বাসায় ‘ডিম ভাজতে দেরি’ হওয়ায় গৃহকর্মীকে নির্মম নির্যাতন!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ ডিসেম্বর, ২০২১, ৯:৪৮ পিএম

সাভারে এক পুলিশ সদস্যের বাসায় গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ ছাড়া বিষয়টি কাউকে জানালে ভুক্তভোগী ওই গৃহকর্মীকে হত্যার হুমকি দিয়ে ঘরে আটকে রাখারও অভিযোগ উঠেছে ওই পুলিশ সদস্যের স্ত্রীর বিরুদ্ধে। ঘটনায় পর ভুক্তভোগী ওই গৃহকর্মী বাসা থেকে পালিয়ে থানায় গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন সাভার মডেল থানা-পুলিশ।

ভুক্তভোগী ওই গৃহকর্মী জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ থানার বাসিন্দা। অভাবের তাড়নায় দেড় বছর পূর্বে বাসা বাড়িতে কাজ করতে শুরু করেন তিনি। অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যের স্ত্রী সুইটি বেগম। তার স্বামীর নাম শাহেদ এবং তারা পৌর এলাকার তালবাগ মহল্লায় বসবাস করেন। ভুক্তভোগী গৃহকর্মী জানান, বৃহস্পতিবার সকালে ডিম রান্না করতে দেরি হওয়ায় সুইটি বেগম রুটি বানানোর কাঠের বেলন দিয়ে তার হাতে আঘাত করে। এতে তিনি হাতে গুরুতর আঘাত পান। পরবর্তীতে সুইটি বেগম তাকে কাপড় পরিষ্কার করতে বলে। তবে হাতে আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় কাজ করতে পারবে না জানালে আবারও কাঠের বেলন দিয়ে মারধর করে সুইটি বেগম। এলোপাতাড়ি মারধরের ঘটনায় শরীরের বিভিন্ন স্থানসহ মাথা ও চোখে গুরুতর আঘাত পেলেও

তাকে কোনো চিকিৎসা না করিয়ে উল্টো বিষয়টি কাউকে জানালে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে বাসায় আটকে রাখা হয়। তিনি আরো জানান, শুক্রবার সকালে বাড়িতে কেউ না থাকায় কৌশলে বাসা থেকে বের হয়ে স্থানীয় একটি রিকশার গ্যারেজে আসেন তিনি। পরে সেখান থেকে স্থানীয়দের সহায়তায় থানায় গিয়ে মারধর ও নির্যাতনের বিষয়টি জানিয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেন তিনি। ভুক্তভোগীর আরো অভিযোগ, গত দেড় বছর যাবৎ গৃহকর্মীর কাজ করে তিনি পেয়েছেন মাত্র ১৩ হাজার টাকা। কিছুদিন আগে মায়ের অসুস্থতার খবর শুনে যেতে চাইলে যেতে দেওয়া হয়নি তাকে। বিভিন্ন সময়ে কারণে অকারণে মারধরসহ অমানবিক নির্যাতন করা হলেও সুইটিকে বাধা দেয়নি স্বামী-সন্তানরা। মাসখানেক আগেও তাকে মেরে নাক ফাটিয়ে দেয় সুইটি।

তবে মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে কোনো বক্তব্য দিতে রাজি হয়নি পুলিশ সদস্য শাহেদের স্ত্রী সুইটি বেগম। সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোমিনুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ভুক্তভোগী গৃহকর্মী একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী গৃহকর্মী পুলিশ হেফাজতে রয়েছে জানানো হলেও অভিযুক্ত সুইটির স্বামী কোন থানায় কর্মরত রয়েছেন তা নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ