Inqilab Logo

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

‘প্রতিমন্ত্রী মুরাদের মতো আরও অনেককে ফুটপাতে ঘুমাতে হবে’

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের মতো মন্ত্রিসভার অনেক সদস্যেরও রাস্তায় ফুটপাতে ঘুমাতে হবে। সেদিন আর বেশি দূরে নয়। জনগণ জাগছে। আর এই গণজাগরণে অবৈধ সরকারের দুর্নীতিবাজ মন্ত্রীরা পালাতেও পথ পাবে না।
গতকাল জাসাস আয়োজিত বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা ও স্থায়ী মুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে তিনি এ কথা বলে।
রিজভী বলেন, সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুরাদ যখন কানাডায় ঢুকতে পারলেন না, তখন দুবাইতে ঢোকার চেষ্টা করেছেন। সেখানকার একটা ছবি ভাইরাল হয়েছে যে এয়ারপোর্টের ফ্লোরে শুয়ে আছেন তিনি। যিনি এক সময় প্রকট ক্ষমতার দাপট দেখিয়েছেন। ক্ষমতার দাপটে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গালি দিয়েছেন, ব্যঙ্গ করেছেন। তিনি দুবাইয়ের এয়ারপোর্টে জ্যাকেট মুড়ি দিয়ে শুয়ে আছেন। এমন করে মন্ত্রিসভার সদস্যদেরও একদিন রাস্তায় শুয়ে থাকতে হবে।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকার যাদের নিয়ে মন্ত্রিসভা গঠন করেছে তারা মিথ্যা কথা বলে। সাবেক অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন ৪ হাজার কোটি টাকা কোনো টাকাই না। শিক্ষামন্ত্রী বলেছিলেন তোমরা দুর্নীতি করো সহনীয় পর্যায়ে করো। যিনি ছাত্রদের নৈতিকতা শেখাবেন তিনি বলছেন সহনীয় পর্যায়ে দুর্নীতি করো। এই সরকারের ক্যাবিনেটের মন্ত্রীরা অনর্গল মিথ্যা কথা বলে যাচ্ছে।
রুহুল কবির রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ছেলে বলেছেন, বিএনপি রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কথা বলা আর সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলা এক না। রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কথা বলা অন্যায়। কিন্তু অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলা অন্যায় না। যে সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতায় এসেছে, দিনের ভোট রাতে করেছে তার বিরুদ্ধে কথা বলা আন্দোলন করা, সংগ্রাম করা, ষড়যন্ত্র করা কোনটাই অন্যায় না।
জাসাসের আহ্বায়ক হেলাল খানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন, ভাইস প্রেসিডেন্ট ইথুন বাবু, সদস্য সচিব জাকির হোসেন রোকন প্রমুখ।
এ ছাড়া বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার দাবিতে রিজভীর নেতৃতে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি। দুপুরে কাকরাইল মোড় থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে শান্তিনগর মোড়ে গিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ