Inqilab Logo

শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

শেরপুরের অপহৃত খালেককে মাগুরা থেকে উদ্ধার : গ্রেফতার-২

শেরপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৩:২৪ পিএম

শেরপুরে আব্দুল খালেক নামে সার্কিট হাউজের কর্মচারীকে র‌্যাবের স্টিকারযুক্ত গাড়িতে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগে দুই যুবককে মাগুরা থেকে আটক করেছে পুলিশ। একইসাথে অপহৃত আব্দুল খালেককে উদ্ধারসহ অপহরণকারীদের কাছ থেকে একটি খেলনা পিস্তল, ওয়াকিটকি, চার্জার ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃতরা হচ্ছে মাগুরা সদর উপজেলার কাশিনাথপুর গ্রামের আনসার মোল্লার ছেলে ইয়াসিন আলী ও একই এলাকার নায়েব আলী শেখের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন। এ ঘটনায় আজ বিকেলে আব্দুল খালেকের দায়ের করা মামলায় আটককৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, গত ১২ ডিসেম্বর শেরপুর সদর উপজেলার কামারিয়া এলাকার বাসিন্দা ও শেরপুর সার্কিট হাউজের কর্মচারী আব্দুল খালেক বাড়ি থেকে বের হয়ে ভোর পাঁচটায় নবীনগর বাস টার্মিনাল থেকে মুনিমুক্তা বাসযোগে ঢাকায় যান। ঢাকায় পৌঁছে আব্দুল খালেক মগবাজার যাওয়ার পর ইয়াসিন তাকে ফোন করে তার সাথে দেখা করে। পরে সেখানে ইয়াসিন ও জাহাঙ্গীরসহ কয়েকজন আব্দুল খালেককে র‌্যাবের স্টিকারযুক্ত একটি গাড়িতে জোর করে উঠিয়ে চোখ বেঁধে ফেলে এবং নির্যাতন শুরু করে। সেখান থেকে তাকে মাগুরা জেলায় নিয়ে একটি ভবনের দুতলায় রেখে নির্যাতন চালায় এবং পাঁচ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। পরে খালেকের পরিবার প্রথমে ৫০ হাজার ও পরে আরও ১০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে অপহরণকারীদের কাছে পাঠায়।

এদিকে ওই ঘটনায় খালেকের পরিবার থানায় একটি জিডি করার পর পুলিশ ঘটনাটির তদন্ত শুরু করে। পরে তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় সদর থানার এসআই জুবায়ের খালিদ অপহরণকারীদের অবস্থান শনাক্ত করতে সক্ষম হন। পরবর্তীতে র‌্যাবের সহায়তায় মঙ্গলবার রাতে অপহৃত আব্দুল খালেককে উদ্ধার এবং অপহরণকারী ইয়াসিন ও জাহাঙ্গীরকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় আব্দুল খালেক বাদী হয়ে সদর থানায় ইয়াসিন ও জাহাঙ্গীরসহ চারজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। অন্য দুই আসামি হচ্ছে একই জেলার শিপন ও সোহেল।

এ ব্যাপারে আজ বেলা আড়াইটায় শেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) বন্দে আলী বলেন, আমরা এ ঘটনাটি জানার পরপরই দ্রুত ব্যস্থা গ্রহন করেছি। পরে র্যাবের সাহয্যে ভিকটিমকে উদ্ধার করেছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উদ্ধার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ