Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৭ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৩ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

গ্রামীণফোনের ডিজিটাল ওয়ালেট ‘জিপে’

প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : গ্রাহকদের জীবন আরও সহজ করে তুলতে ডিজিটাল ওয়ালেট ‘জিপে’ সেবা চালু করেছে বেসরকারি মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন। নতুন ব্র্যান্ড নামে পুনরায় এই ওয়ালেট সেবা গ্রামীণফোনের বিদ্যমান সকল ধরনের পেমেন্ট সেবা ডিজিটাল ও স্মার্ট পদ্ধতিতে পাওয়া যাবে ‘জিপে’র মাধ্যমে। বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানিসহ গৃহস্থালির অন্যান্য বিল পরিশোধ (ইউটিলিটি বিল), ট্রেনের টিকিট কেনা, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট অথবা মোবিক্যাশ আউটলেট থেকে মোবাইলে টাকা ঢোকানোর মতো প্রয়োজনীয় সব সেবা পাওয়ার জন্য ‘জিপে’ গ্রামীণফোন ব্যবহারকারীদের আরও সুবিধাজনক ও উপযোগী ডিজিটাল সমাধান হবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা। গতকাল (সোমবার) রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে ‘জিপে’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানানো হয়। অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির হেড অব মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস এরওয়ান গিলেবার্ট এবং চিফ করপোরেট অফিসার মাহমুদ হোসেন। এছাড়াও, অনুষ্ঠানে ইউলিটি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান, সহযোগী ব্যাংক এবং মিডিয়া থেকে অন্যান্য অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
জিপি ওয়ালেটের মাধ্যমে গ্রাহকরা তাদের ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে পারবেন, নিজের অথবা অন্য জিপি নাম্বারে ফ্লেক্সিলোড করতে পারবেন এবং তাদের হ্যান্ডসেট থেকেই ট্রেনের টিকিট কিনতে পারবেন। এ সব সেবা পেতে গ্রাহক যে কোনো মোবিক্যাশ আউটলেট অথবা নির্বাচিত সহযোগী ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট যেমনÑ ডিবিবিএল রকেট মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট, এবি ব্যাংক কোর ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট এবং ইসলামি ব্যাংক এমক্যাশ অ্যাকাউন্ট অথবা ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে জিপে ওয়ালেটে টাকা ঢোকাতে পারবেন। এছাড়াও, তারা যেকোনো গ্রামীণফোন সেন্টার থেকে তাদের ওয়ালেটে টাকা ঢোকাতে পারবেন।
এ নিয়ে গ্রামীণফোনের হেড অব মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস এরওয়ান গিলেবার্ট বলেন, ‘জিপে সেবার কারণে ইউটিলিটি বিল দেয়া অথবা ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য গ্রাহককে আর লম্বা লাইনে দাঁড়াতে হবে না। এর বদলে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা তারা যে কোনো জায়গা থেকে শুধুমাত্র আঙুলের স্পর্শেই এটা করতে পারবেন। দেশের বড় বড় ১৪টি ইউটিলিটি প্রতিষ্ঠানের সাথে করছে ‘জিপে’। অত্যন্ত দ্রæতগতিতে দেশজুড়েই এ সেবার বিস্তৃতি ঘটছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের নগদ অর্থবিহীন লেনদেন ব্যবস্থা গড়ে ওঠা প্রয়োজন। সবার জন্য বিশেষত, প্রত্যন্ত অঞ্চলের অধিবাসীদের জন্য ডিজিটাল নাগরিককেন্দ্রিক সেবাদানে বাংলাদেশকে একধাপ এগিয়ে নিতে শীর্ষস্থানীয় ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে গ্রামীণফোনের জিপে ওয়ালেট/অ্যাপ ভূমিকা রাখবে।
*৭৭৭# ইউএসএসডি ডায়াল করে কিংবা গুগল প্লে স্টোর থেকে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করে অথবা মেসেজ অপশনে গিয়ে ‘জবম’ লিখে পাঠাতে হবে ১২০০ পর এর মাধ্যমে গ্রাহকরা বিল পে সেবা গ্রহণ করতে পারবেন এবং ট্রেনের টিকিট কিনতে পারবেন। পোস্টপেইড ও প্রিপেইড দু’ধরনের গ্রাহকই *৭৭৭# ডায়াল করে অথবা ‘জিপে’ অ্যাপ ব্যবহার করে মোবাইল টকটাইম কিনতে পারবেন। ‘জিপে’ অ্যাপ ব্যবহার করতে ইন্টারনেট সংযোগের প্রয়োজন হবে কিন্তু গ্রামীণফোন গ্রাহকরা এই অ্যাপ্লিকেশনটি কোনো ডাটা খরচ ছাড়াই ব্যবহার করতে পারবেন। ট্রাস্ট অ্যাকাউন্ট, ট্রেজারি ম্যানেজমেন্ট ও রেগুলেটরি রিপোর্টিং-এর ক্ষেত্রে জিপি স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সাথে কাজ করছে। ‘জিপে’ ওয়ালেট সহজে ব্যবহারযোগ্য এবং যে কোনো জায়গা থেকে যে কেউ হ্যান্ডসেট ও গ্রামীণফোন সংযোগের মাধ্যমে ‘জিপে’ ওয়ালেট ব্যবহার করে তাৎক্ষণিক সেবা পাবেন। অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীরা গুগল প্লে থেকে অ্যাপ্লিকেশনটি নামিয়ে নিতে পারবেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন