Inqilab Logo

শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করেছেন

ডিএসসিসি মেয়র

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে আত্মত্যাগ করেছেন, যারা এ দেশের স্বাধীনতা রচনা করেছেন, পঁচাত্তর পরবর্তী বাংলাদেশের ইতিহাসে তাদের কোনও নাম ছিল না, তাদের কোনও মূল্যায়নও ছিল না বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

গতকাল সোমবার দুপুরে নগরীর ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন পরিচালিত পুরানা মোগলটুলী উচ্চ বিদ্যালয় এ বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
দীর্ঘকাল অন্ধকারে নিমজ্জিত থেকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই স্বাধীন বাংলাদেশ আবারও আলোর পথে যাত্রা শুরু করেছে মন্তব্য করে মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, ২০০৮ সালে আবার নুতন করে স্বপ্ন দেখলাম। স্বপ্ন দেখালেন জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি সে সময় ১১ মাস কারাগারে নিষ্পেষিত ছিলেন। সেই কারাগারে বসেই তিনি রচনা করলেন দিনবদলের সনদ-রূপকল্প ২০২১। সেই রূপকল্পে লক্ষ্য ছিল ২০২১ সালে বাংলাদেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত হবে। বাংলাদেশ ডিজিটাল বাংলাদেশ হবে। তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করেছেন।
মেয়র বছরের প্রথমদিনেই বিনামূল্যে ৩৬ কোটি বই বিতরণ, শিক্ষার উন্নয়নে উপবৃত্তিসহ নানামুখী উদ্যোগ তুলে ধরেন। পরে তিনি শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন এবং শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় নাচ ও গান উপভোগ করেন।
মোগলটুলী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. মফিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য জিন্নাতুল বাকিয়া, দক্ষিণ সিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহম্মদ, সচিব আকরামুজ্জামান, ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাজী মো. আবু সাঈদ বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানে সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর শাহিনুর বেগম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় সম্পাদক আব্দুর রহমান, ধর্ম সম্পাদক মো. ইসমাইল হোসেন, বংশাল থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক এম সিরাজুদ্দিন বাদল, ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়ালি হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সুলতান আহমেদ বিপুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ