Inqilab Logo

সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

বিএনপির ৩২ জেলার সমাবেশ শুরু আজ

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসা ইস্যু

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে জনমত গড়তে ৩২ জেলায় সমাবেশ করবে বিএনপি। প্রথম দিনে আজ দেশের ৬ জেলায় সমাবেশ করবে দলটি।

এগুলো হচ্ছে- টাঙ্গাইল, হবিগঞ্জ, যশোর, বগুড়া, দিনাজপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া। আগামী ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত একই দাবিতে জেলায় জেলায় সমাবেশ করবে বিএনপি। এসব সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতারা অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। প্রত্যেক জেলার জন্য পৃথক কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক পদাধিকারবলে অন্তর্ভূক্ত থাকবেন, পাশাপাশি অঙ্গসংগঠনের নেতাদেরাও প্রতিটি সমাবেশে প্রতিনিধিত্ব করবেন।

বিএনপির নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের একাধিক নেতা জানান, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দাবিতে সমাবেশ হলেও কয়েকটি বিষয়ে সমাবেশগুলো সময়োপযোগী। বিভাগীয় সমাবেশে বিএনপি ছাড়াও সব শ্রেণি পেশার মানুষের উপস্থিতি প্রমাণ করে যে, বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল হচ্ছে বিএনপি। মহামারী করোনার কারণে দীর্ঘদিন মাঠের কর্মসূচি না থাকায় এসব সমাবেশের দ্বারা তৃণমূলের নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত। তাদের ভীতি ও জড়তা কাটছে। সেইসাথে ক্ষমতাসীন দলের নেতারা বিদেশীদের কাছে বলে যে, ‘বিএনপির জনসমর্থন নেই’। কিন্তু এসব সমাবেশে সব শ্রেণিপেশার লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতি বিদেশিদের সেই ধারণা পাল্টে দিয়েছে।

জানা গেছে, সম্প্রতি বিএনপির বিভিন্ন সমাবেশ কর্মসূচির মাধ্যমে তৃণমূলের কোন কোন নেতা মাঠে সক্রিয় রয়েছেন তাদের বিষয়েও খোঁজ খবর নিচ্ছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। তারই ধারাবাহিকতায় বিভাগীয় সমাবেশের পর এবার জেলাভিত্তিক সমাবেশ হচ্ছে। এভাবে একপর্যায়ে থানাভিত্তিক সমাবেশের পরিকল্পনাও রয়েছে বিএনপির। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় এসব কর্মসূচির মাধ্যমে সারা দেশের নেতাকর্মীদের আরো সক্রিয় করে তোলা হবে।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, বাংলাদেশের তিনবারের নির্বাচিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে দ্রæত বিদেশে পাঠানোর দাবিতে আমরা অহিংস এবং শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালন করছি। এই দাবি শুধু বিএনপির নয়, সারাদেশের মানুষের। বিশে^র বিভিন্ন দেশ ও পার্লামেন্টে দেশনেত্রীর বিদেশে সুচিকিৎসার বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। সুতরাং আমরা এই দাবিতে যত শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক কর্মসূচি আছে তার সবই পালন করবো। সারাদেশে সভা-সমাবেশ তারই অংশ। এসব কর্মসূচির মাধ্যমে দেশ-বিদেশে জনমত তৈরি হচ্ছে।

বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু বলেন, দেশের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে বিভাগীয় সমাবেশগুলো সব শ্রেণীর মানুষের উপস্থিতিতে জনসমুদ্রে পরিণত হয়। যা প্রমাণ করে খালেদা জিয়ার মুক্তি শুধু বিএনপির নয়, দেশের সব মানুষের দাবি। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় যেসব কর্মসূচি পালন হচ্ছে তা অত্যন্ত সময়োপযোগী। এসব সমাবেশের দ্বারা জনমত তৈরি হচ্ছে। খালেদা জিয়াকে বিদেশে যেতে না দেয়ার কারণে দেশ-বিদেশে তার নাম উচ্চারিত হচ্ছে। তার জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলছে। সেইসাথে দেশনায়ক তারেক রহমানের দল পরিচালনায় দক্ষতা প্রমাণিত হয়েছে।

আগামী শুক্রবার ৬ জেলা, রোববার ৬ জেলা, মঙ্গলবার ৭ জেলা ও বৃহস্পতিবার ৭ জেলায় সমাবেশ করবে বিএনপি। আজ ৬ জেলার সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে টাঙ্গাইলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান; হবিগঞ্জে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবদীন ফারুক; যশোরে স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মশিউর রহমান; বগুড়ায় স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু; দিনাজপুরে স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূইয়া অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: খালেদা জিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ